তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৫ অক্টোবর ২০২১

তথ্যবিবরণী ১৫ অক্টোবর ২০২১

তথ্যবিবরণী                                                                                                           নম্বর :  ৪৯৩০

 

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক থাকার আহ্বান স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর

 

ঢাকা, ৩০ আশ্বিন (১৫ অক্টোবর) : 

 

          দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের সকল জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক অবস্থানে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম। যারা উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে কুমিল্লায় মূর্তির পায়ে কোরান শরিফ রেখে হিন্দু-মুসলমানদের মধ্যে বিভেদ  তৈরি করে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করতে চায় তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান মন্ত্র্রী।

 

          আজ রাজধানীর মিন্টু রোডে তাঁর সরকারি বাসভবনে সম্প্রতি কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে সৃষ্ট ঘটনা নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফকালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

 

          মন্ত্রী বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা এবং সিটি কর্পোরেশনসহ জনপ্রতিনিধিত্বশীল প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা জাতির দুঃসময়ে, দুর্দিনে, বিপদে-আপদে সবার আগে মানুষের পাশে দাঁড়ায়। দেশে সকল ধর্ম-বর্ণের মানুষ মিলে মিশে বসবাস করে। এদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এক অনন্য দৃষ্টান্ত। আজকে সেই সম্প্রীতি নষ্ট করতে এবং দেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে একটি মহল ষড়যন্ত্র করছে। এই ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করার জন্য সকল জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক থাকতে হবে। সম্প্রতি কুমিল্লার পূজামণ্ডপে সৃষ্ট ঘটনাকে উদ্দেশ্য প্রণোদিত এবং ষড়যন্ত্রের একটি অংশ উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই ঘটনার সাথে জড়িতদের শনাক্ত করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

          মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, স্বাধীনতা বিরোধী শত্রুরা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার জন্য বিভিন্ন সময় ষড়যন্ত্র করেছে এবং এখনও করে যাচ্ছে। তাদের আন্দোলনে মানুষের সাড়া পায় না বলেই দেশকে অস্থিতিশীল করতে ধর্মীয় অনুভূতি কাজে লাগিয়ে ইন্ধনের চেষ্টা করছে। শুধু দেশে নয় দেশের বাহিরেও ষড়যন্ত্র হচ্ছে উল্লেখ তিনি ষড়যন্ত্রকারীদের কঠোরভাবে দমন করতে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান।

         

#

 

হায়দার/সাহেলা/এনায়েত/রফিকুল/সেলিম/২০২১/১৯:২০ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                 নম্বর : ৪৯২৯

করোনাকালেও সকল ফসলের উৎপাদন বেড়েছে

                                             ---কৃষিমন্ত্রী

ঢাকা, ৩০ আশ্বিন (১৫ অক্টোবর) :

          কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, করোনাকালে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী কৃষি মন্ত্রণালয় সময়োপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ ও তা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। ফলে করোনাকালেও দেশে খাদ্য উৎপাদনের ধারা অব্যাহত রয়েছে এবং তা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০২০-২১ অর্থবছরে রেকর্ড বোরো উৎপাদন হয়েছে ২ কোটি টনেরও বেশি, যা দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ। গত বছরের তুলনায় এবছর সকল ফসলের উৎপাদনই বেড়েছে। মোট চালের উৎপাদন হয়েছে ৩ কোটি ৮৬ লাখ টন, গম ১২ লাখ টন, ভুট্টা প্রায় ৫৭ লাখ টন, আলু ১ কোটি ৬ লাখ টন, শাকসবজি ১ কোটি ৯৭ লাখ টন, তেল ফসল ১২ লাখ টন ও ডাল ফসল ৯ লাখ টন।

          বিশ্ব খাদ্য দিবস ২০২১ উদযাপন উপলক্ষ্যে ঢাকার ফার্মগেটে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের (বিএআরসি) মিলনায়তনে প্রেস ব্রিফিংয়ে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

          কৃষি মন্ত্রণালয় এবং জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) আয়োজিত এ প্রেস ব্রিফিংয়ে সভাপতিত্ব করেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ মেসবাহুল ইসলাম ও   গেস্ট অভ্ অনার হিসেবে বক্তব্য রাখেন এফএওর বাংলাদেশ প্রতিনিধি রবার্ট ডি. সিম্পসন। এসময় কৃষি মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সংস্থাপ্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

          মন্ত্রী বলেন, পেঁয়াজে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে একবছরেই কৃষি মন্ত্রণালয় ৭ লাখ টন উৎপাদন বৃদ্ধি করতে সক্ষম হয়েছে। এবছর ৩৩ লাখ টন পেঁয়াজ উৎপাদন হয়েছে।

          উল্লেখ্য, আগামীকাল ১৬ অক্টোবর শনিবার কৃষি মন্ত্রণালয় ও জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) এর যৌথ উদ্যোগে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পালিত হবে ‘বিশ্ব খাদ্য দিবস-২০২১। এবারের প্রতিপাদ্য ‘আমাদের কর্মই আমাদের ভবিষ্যৎ- ভালো উৎপাদনে ভালো পুষ্টি, আর ভালো পরিবেশেই উন্নত জীবন’।

          এবছর দিবসটির গুরুত্ব তুলে ধরতে কৃষি মন্ত্রণালয় বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। কাল শনিবার দিবসের প্রথমভাগে সকালে ঢাকার হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে প্রতিপাদ্যের ওপর একটি আন্তর্জাতিক সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। সেমিনারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি উপস্থিত থাকবেন।

          জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ স্মরণীয় করে রাখার জন্য কৃষি মন্ত্রণালয় বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। তার অংশ হিসেবে এ সেমিনারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি) প্রকাশিত ‘100 Years of Agricultural Development in Bangladesh’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন এবং বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি) উদ্ভাবিত ‘বঙ্গবন্ধু ধান ১০০ অবমুক্ত করবেন। এছাড়া, প্রধানমন্ত্রী ‘বঙ্গবন্ধু ধান ১০০ দিয়ে নির্মিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি উন্মোচন করবেন।

          মন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমান সরকার সকলের জন্য নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্য নিশ্চিত করতে সচেষ্ট রয়েছে। সেজন্য, একটি টেকসই খাদ্য ব্যবস্থা উন্নয়নে ‘জাতীয় কৃষি নীতি ২০১৮’, জাতীয় কৃষি সম্প্রসারণ নীতি ২০২০’ ‘জাতীয় কৃষি যান্ত্রিকীকরণ নীতি ২০২০’ ‘বাংলাদেশ উত্তম কৃষি চর্চা নীতিমালা ২০২০’ এবং ‘জাতীয় খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নীতি ২০২০’ প্রণয়ন করা হয়েছে। এ সকল নীতির লক্ষ্য হলো খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিতের মাধ্যমে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জন। 

 

#

কামরুল/এনায়েত/রফিকুল/আব্বাস/২০২১/১৮০৬ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                  নম্বর : ৪৯২৮

 

প্রতিবন্ধীরা বোঝা নয় সম্পদ

          ---সমাজকল্যাণমন্ত্রী

 

ঢাকা, ৩০ আশ্বিন (১৫ অক্টোবর) :

 

          সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেছেন, প্রতিবন্ধীরা দেশের বোঝা নয় সম্পদ। প্রতিবন্ধীদের জন্য গৃহীত কর্মসূচিসমূহ সফলভাবে বাস্তবায়িত হওয়ার ফলে প্রতিবন্ধীরা দেশের সম্পদে পরিণত হতে চলছে।

 

          মন্ত্রী আজ রাজধানীর মিরপুরে জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশনে বিশ্ব সাদাছড়ি নিরাপত্তা দিবস ২০২১ উপলক্ষ্যে আয়োজিত  আলোচনা সভা এবং দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের সম্মাননা/অনুদান প্রদান ও স্মার্ট হোয়াইট ক্যান বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ব্লাইন্ড এডুকেশন রিহেবিলিটেশন ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (বার্ডো) এর নির্বাহী পরিচালক মোঃ সাইদুল হক।

 

          মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন প্রতিবন্ধীদের জন্য কাজ করে সারা বিশ্বকে আলোড়িত  ও সুনাম অর্জন করেছেন। প্রতিবন্ধীদেরকে সম্পদে পরিণত করার জন্য সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে নানা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

 

          মন্ত্রী প্রতিবন্ধীবান্ধব সমাজ গঠনে সকলকে আহ্বান জানিয়ে বলেন, প্রতিবন্ধীদের প্রতি সবাইকে আন্তরিক হতে হবে। তাদের জন্য কাজ করতে হবে।  তিনি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উদ্দেশ্য বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যাশানুযায়ী সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় হতে প্রতিবন্ধীদের জন্য গৃহীত কর্মসূচিগুলো সকলকে আন্তরিকভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে।

 

          সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মাহফুজা আখতারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, এছাড়া সমাজসেবা অধিদফতরের মহাপরিচালক শেখ রফিকুল ইসলাম ও জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ আনিছুজ্জামান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

 

          পরে মানিকগঞ্জ জেলায় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে স্মার্ট হোয়াইট ক্যান বিতরণ করা হয় এবং  দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মেধাবী শিক্ষার্থীদের সম্মাননা ও অনুদান প্রদান করা হয়।

 

          এর আগে দিবসটি উপলক্ষ্যে জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের সামনে একটি প্রতীকী র‌্যালি হয়।

 

#

জাকির/এনায়েত/রফিকুল/আব্বাস/২০২১/১৮:০১ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                 নম্বর : ৪৯২৭

তুরস্কের গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ে

‘পঞ্চাশে বাংলাদেশ: উন্নয়ন ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

 

ইস্তান্বুল (তুরস্ক), ১৫ অক্টোবর :  

        তুরস্কের ইস্তান্বুলে গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশ স্টাডিজ ও রিসার্চ সেন্টারে গতকাল ‘পঞ্চাশে বাংলাদেশ: উন্নয়ন ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

          কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অর্থনৈতিক উন্নয়ন, দারিদ্র্য বিমোচন, নারীর ক্ষমতায়ন, জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাব মোকাবিলা ও বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের সাফল্য তুলে ধরেন। তিনি বলেন, প্রতিটি দেশেরই নিজ নিজ চ্যালেঞ্জ রয়েছে, কিন্তু বাংলাদেশের জনগণ ও নেতৃত্বের সফলতা হলো চ্যালেঞ্জকে সুযোগে পরিবর্তন করা। বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় শামিল হওয়ার জন্য তিনি তুরস্কের জনগণের আরো নিবিড়ভাবে সম্পৃক্ততা কামনা করেন। বাংলাদেশ-তুরস্ক সম্পর্ক আরো গভীরভাবে জানার জন্য তিনি দু’দেশের  মধ্যকার শিল্প ও সাংস্কৃতিক সহযোগিতা বাড়ানোর উপর জোর দেন। এক্ষেত্রে গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সদ্য প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ স্টাডিজ ও রিসার্চ সেন্টার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

          সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে সাংস্কৃতিক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আসিফ মুনীর রোহিঙ্গা ইস্যুকে বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান চ্যালেঞ্জ হিসেবে বর্ণনা করে এর ঐতিহাসিক পটভূমি ও অর্থনৈতিক, সামাজিক, নিরাপত্তা ও পরিবেশগত প্রভাব ব্যাখ্যা করেন। এ সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রদত্ত সাম্প্রতিক বক্তব্য উল্লেখ করে তিনি তুরস্ক সরকার ও জনগণের সহযোগিতা তথা বিশ্ব সম্প্রদায়ের অর্থবহ সমর্থন ও সহযোগিতা কামনা করেন ।

          অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস রেক্টর প্রফেসর ড. আহমেদ কেসিক। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, গবেষক, উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শিক্ষার্থী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

#

মেহেদী/জুলফিকার/রেজ্জাকুল/শামীম/২০২১/১৩০৪ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                   নম্বর : ৪৯২৬

বিশ্ব খাদ্য দিবসে প্রধানমন্ত্রীর বাণী

ঢাকা, ৩০ আশ্বিন (১৫ অক্টোবর) :

          প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল ১৬ অক্টোবর ‘বিশ্ব খাদ্য দিবস-২০২১’  উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :

          প্রতি বছরের ন্যায় এবারও জাতিসংঘের অন্যান্য সদস্য দেশের মতো কৃষি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে বাংলাদেশ ১৬ অক্টোবর ‘বিশ্ব খাদ্য দিবস’ পালন করতে যাচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত।

এবারের প্রতিপাদ্য- ‘আমাদের কর্মই আমাদের ভবিষ্যৎ। ভালো উৎপাদনে ভালো পুষ্টি আর ভালো পরিবেশেই উত্তম জীবন।’ করোনাকালীন পরিবর্তিত সময়ে যথাযথ ও সময়োপযোগী হয়েছে বলে আমি মনে করি।

          সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিকল্পনা ও কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার গত সাড়ে ১২ বছরে কৃষি উন্নয়নে কৃষিবান্ধব ও বাস্তবমুখী বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। ২০০৯ সালে সরকার গঠনের পর আমরা কৃষির উন্নয়ন ও কৃষকের কল্যাণকে সর্বোচ্চ বিবেচনায় নিয়ে রূপকল্প-২০৪১ এর আলোকে জাতীয় কৃষিনীতি-২০১৮, নিরাপদ খাদ্য আইন, টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট, ডেল্টা প্ল্যান-২১০০ সহ উল্লেখযোগ্য কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি। কৃষির উন্নয়নে আমরা কৃষকদের জন্য সার, ডিজেল, বিদ্যুৎ ও কৃষিযান্ত্রিকীকরণে আর্থিক সহায়তা প্রদান এবং কৃষি প্রণোদনা/কৃষি পুনর্বাসন, কৃষিঋণ, কৃষি উপকরণ সহায়তা কার্ড বিতরণ, ১০ টাকায় ব্যাংক অ্যাকাউন্ট  খোলা, ই-কৃষির প্রবর্তন, জলবায়ু ও ঝুঁকি সহনশীল ফসলের জাত/প্রযুক্তি উদ্ভাবন ইত্যাদির ব্যবস্থা করেছি। কৃষি শিক্ষা-গবেষণা খাতে আরো বরাদ্দ বৃদ্ধি করেছি। যার ধারাবাহিকতায় খোরপোশের কৃষি আজ বাণিজ্যিক কৃষিতে রূপান্তরিত হচ্ছে। দেশব্যাপী ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হচ্ছে এতে কৃষিনির্ভর শিল্পের কাঁচামাল সরবরাহে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনসহ ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।

          আমাদের সরকার গৃহীত কৃষিবান্ধব নীতি ও কার্যক্রমে দানাদার খাদ্য, মাছ, মাংস ও ডিম উৎপাদনে বাংলাদেশ আজ স্বয়ংসম্পূর্ণ এবং দুধ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতার দ্বারপ্রান্তে। বাংলাদেশ বর্তমান বিশ্বে পাট ও কাঁঠাল উৎপাদনে দ্বিতীয়, ধান ও সবজি উৎপাদনে তৃতীয়, আম ও আলু উৎপাদনে সপ্তম, পেয়ারা উৎপাদনে অষ্টম, অভ্যন্তরীণ উন্মুক্ত জলাশয়ে  মৎস্য উৎপাদনে তৃতীয় এবং বদ্ধ জলাশয়ে মৎস্য উৎপাদনে পঞ্চম অবস্থানে রয়েছে। বর্তমানে আমাদের মোট খাদ্যশস্য উৎপাদন বেড়ে ৪ কোটি ৫৩ লাখ ৪৩ হাজার  মেট্রিক টন হয়েছে। আমরা মানুষের পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছি।

          আমরা জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করে যাচ্ছি। ইনশাআল্লাহ সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বাংলাদেশকে উন্নত, সমৃদ্ধ ও আধুনিক দেশ হিসেবে বিশ্বে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হবো।

 

          আমি ‘বিশ্ব খাদ্য দিবস-২০২১’ উপলক্ষ্যে গৃহীত সকল কর্মসূচির সাফল্য কামনা করছি।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু

বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”

#

আশরাফ/মেহেদী/জুলফিকার/রেজ্জাকুল/শামীম/২০২১/১২২১ ঘণ্টা

 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                    নম্বর : ৪৯২৫

বিশ্ব খাদ্য দিবসে রাষ্ট্রপতির বাণী  

ঢাকা, ৩০ আশ্বিন (১৫ অক্টোবর) :

          রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ আগামীকাল ১৬ অক্টোবর ‘বিশ্ব খাদ্য দিবস-২০২১’ উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :

          “প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও বাংলাদেশে ‘বিশ্ব খাদ্য দিবস-২০২১’ উদ্‌যাপনের উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। বিশ্ব খাদ্য দিবসের এ বছরের প্রতিপাদ্য ‘আমাদের কর্মই আমাদের ভবিষ্যৎ। ভালো উৎপাদনে ভালো পুষ্টি আর ভালো পরিবেশেই উন্নত জীবন’ যথার্থ হয়েছে বলে আমি মনে করি।

          জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন কৃষি অন্তপ্রাণ। সদ্যস্বাধীন দেশ পুনর্গঠনে জাতির পিতা কৃষি বিপ্লবের ডাক দিয়েছিলেন।  তিনি কৃষির উন্নয়নে কৃষকদের মাঝে খাস জমি বিতরণ, ভর্তুকি মূল্যে সার, কীটনাশক, উন্নত বীজ, সেচ ও অন্যান্য কৃষি উপকরণ সরবরাহ নিশ্চিত করেন। জাতির পিতা গ্রামীণ ও কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে  যে উন্নত, সুখী ও সমৃদ্ধিশালী সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন, সে স্বপ্ন বাস্তবায়নে সরকার নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। সরকারের যুগোপযোগী নীতি ও পদক্ষেপে দেশ দানাদার খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। ফল, সবজির উৎপাদন অনেক গুণ বেড়েছে। দেশের অভ্যন্তরীণ জলাশয়ে উৎপাদিত মাছ এবং মাংস উৎপাদনে দেশের চাহিদা পূরণে সক্ষমতা অর্জিত হয়েছে। বাংলাদেশের কৃষিপণ্যে রপ্তানি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষিকে লাভজনক করতে কৃষি যান্ত্রিকীকরণে উন্নয়ন সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। আমি আশা করি, সরকারের এ সকল উদ্যোগ  দেশের কৃষি উৎপাদনকে আরো বেগবান করার পাশাপাশি নতুন কর্মসংস্থান ও উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে সহায়ক হবে।

          ছোট ভূখণ্ডের বিপুল জনসংখ্যার আমাদের এই দেশে খাদ্য চাহিদা মেটানোর জন্য কৃষি জমির উপর চাপ প্রতিনিয়ত বাড়ছে। আধুনিক বিজ্ঞানের কল্যাণে খাদ্য উৎপাদন জনসংখ্যার সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়লেও উৎপাদন পরবর্তী সংগ্রহ ও পরিবহণকালীন অপচয়ের কারণে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ খাদ্যশস্য নষ্ট হচ্ছে।  ভবিষ্যতে মানুষের জন্য নিরাপদ, পুষ্টিকর খাদ্যের যোগান নিশ্চিত করতে অপচয় কমিয়ে সুষম পুষ্টিকর খাবারের অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। এ ছাড়া শস্যের বহুমুখীকরণ ও ভূমির সর্বোত্তম ব্যবহার, কৃষি আধুনিকীকরণ, প্রতিকূলতাসহিষ্ণু নতুন নতুন জাত উদ্ভাবন এবং লাগসই প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও ব্যবহারে সংশ্লিষ্ট সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান নিরলস প্রয়াস অব্যাহত রাখবে – এ প্রত্যাশা করি।

          আমি ‘বিশ্ব খাদ্য দিবস-২০২১’ উপলক্ষ্যে গৃহীত সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্য কামনা করি। 

 

জয় বাংলা।

খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”

#

হাসান/মেহেদী/জুলফিকার/রেজ্জাকুল/শামীম/২০২১/১১৩৩ ঘণ্টা

 

 

 

2021-10-15-14-19-c7898ef629f1eb26c9f8cd700b77e5a1.doc 2021-10-15-14-19-c7898ef629f1eb26c9f8cd700b77e5a1.doc

Share with :

Facebook Facebook