তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৩rd অক্টোবর ২০১৮

তথ্যবিবরণী 23/10/2018

তথ্যবিবরণী                                                       নম্বর : ২৯৩৬
চলতি অর্থবছরে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে বরাদ্দ প্রায় ৮১৭ কোটি ১৫ লাখ টাকা
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর):
২০১৮-১৯ অর্থবছরে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে ৪০টি প্রকল্পের জন্য বরাদ্দকৃত প্রায় ৮১৭ কোটি ১৫ লাখ টাকার বিপরীতে বিগত ৩ মাসে ব্যয় হয়েছে মোট ৬৭ কোটি ৮ লক্ষাধিক টাকা। বিগত ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৪৪টি প্রকল্পে বরাদ্দ ছিল ৯৭৭ কোটি ৭১ লাখ টাকা এবং একই সময়ে ব্যয় হয়েছিল মোট ১০৫ কোটি ৫১ লক্ষাধিক টাকা। উল্লেখ্য, চলতি অর্থবছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রকল্প বাস্তবায়নে জাতীয় গড় অগ্রগতি হয়েছে ৮ দশমিক ২৫ শতাংশ। 
তবে মন্ত্রণালয়ের সর্বমোট ৪০টি প্রকল্পের মধ্যে মৎস্য উপখাতের ২০টি প্রকল্পে চলতি অর্থবছরে (২০১৮-১৯) বরাদ্দ আছে ৪৪০ কোটি ৭২ লাখ টাকা। এরমধ্যে গত ৩ মাসে ব্যয় হয়েছে ৩১ কোটি ৮১ লক্ষাধিক টাকা। গত (২০১৭-১৮) অর্থবছরে ২৪টি প্রকল্পে বরাদ্দকৃত ৪৮৪ কোটি ৮৩ লাখ টাকার মধ্যে একই সময়ে ব্যয় হয়েছিল মোট ৪৩ কোটি ৫৮ লক্ষাধিক টাকা। 
উল্লেখ্য, মৎস্যসম্পদ উপখাতের ২০টি প্রকল্পের মধ্যে মৎস্য অধিদফতর ১৩টি প্রকল্পে বরাদ্দ পেয়েছে ৩৪১ কোটি ২৮ লাখ, মৎস্য  গবেষণা ইনস্টিটিউট (ইঋজও) ৫ প্রকল্পে ৩৪ কোটি ৪৯ লাখ এবং বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশন (ইঋউঈ) ২টি প্রকল্পে ৬৪ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। 
অন্যদিকে, চলতি অর্থবছরে প্রাণিসম্পদ খাতেও নির্ধারিত ২০টি প্রকল্পের জন্য বরাদ্দকৃত ৩৭৬ কোটি সাড়ে ৪২ লক্ষাধিক টাকার মধ্যে এই ৩ মাসে ব্যয় হয়েছে ৩৫ কোটি সাড়ে ২৬ লক্ষাধিক টাকা। বিগত অর্থবছরে একই সময়ে সমসংখ্যক প্রকল্পে এখাতে ৪৯২ কোটি ৮৮ লাখ টাকা বরাদ্দ ছিল এবং ব্যয় হয়েছিল মোট ৬১ কোটি সাড়ে ৯২ লক্ষাধিক টাকা। 
এছাড়া, চলতি অর্থবছরে প্রাণিসম্পদ উপখাতের ২০টি প্রকল্পের মধ্যে প্রাণিসম্পদ অধিদফতর (উখঝ) ১৩টি প্রকল্পে বরাদ্দ পেয়েছে ৩৩৮ কোটি ৪৪ লাখ, প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট (ইখজও) ৬ প্রকল্পে ৩০ কোটি ৭২ লাখ ও বাংলাদেশ ভেটেরিনারি কাউন্সিল ১টি প্রকল্পে ৭ কোটি সাড়ে ২৬ লক্ষাধিক টাকা। 
মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দের সভাপতিত্বে ২ উপখাতের পৃথক-পৃথক এডিপি পর্যালোচনা-সভায় আজ এসব তথ্য জানানো হয়।  
মন্ত্রণালয়ের সচিব রইছউল আলম ম-লের পরিচালনায় সভায় মন্ত্রণালয়ের সকল উইং, সংস্থা ও অধিদফতরের প্রধান, প্রকল্প পরিচালক এবং মন্ত্রণালয়ের ঊর্র্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।  
#
শাহআলম/ফারহানা/রফিকুল/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/২২২০ ঘণ্টা   
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৯৩৫
 
মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রীর সাথে বিশ্ব খাদ্য সংস্থার স্থানীয় প্রতিনিধির সাক্ষাৎ 
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর) :
মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকির সাথে আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে তাঁর অফিস কক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত বিশ্ব খাদ্য সংস্থার নবনিযুক্ত কান্ট্রি প্রতিনিধি রিচার্ড রাগান (জরপযধৎফ জধমধহ) সাক্ষাৎ করেছেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাছিমা বেগম এনডিসি এবং অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন ও পরিকল্পনা) মাহমুদা শারমীন বেনু। 
সাক্ষাতের সময় রিচার্ড রাগান হতঃদরিদ্র নারীদের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক বাস্তবায়িত বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি ভিজিডি’র সুবিধা ভোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি করায় মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকিকে ধন্যবাদ জানান এবং তাঁর হাতে লেটার অভ্ এপ্রিসিয়েশন (প্রশংসাপত্র) তুলে দেন। 
রিচার্ড রাগান ভিজিডিসহ বাংলাদেশ সরকারের অন্যান্য সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি, নারীর ক্ষমতায়ন এবং শিশু উন্নয়নের প্রশংসা করেন। 
প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি এবং সচিব নাছিমা বেগম এনডিসি এ সময় নারী ও শিশু উন্নয়নে মন্ত্রণালয়ের গৃহীত বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরেন।
#
খায়ের/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/২১১০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                        নম্বর : ২৯৩৪
 
শিশুদের যোগ্য ও দক্ষ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে সংস্কৃতি চর্চার বিকল্প নেই
                                                        -- সংস্কৃতিমন্ত্রী
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর):
 
সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, শিল্পের একটি অন্যতম প্রধান মাধ্যম হলো নৃত্য। এর মধ্য দিয়ে সৌন্দর্যের বিকাশ ঘটে। শিল্পের বিভিন্ন মাধ্যম তথা নাচ ও গানের মাধ্যমে শিল্পীরা সমাজকে বিভিন্ন বার্তা পৌঁছে দেন। এর মাধ্যমে সংস্কৃতি মনস্ক মানবিক ও সচেতন সমাজ গড়ে ওঠে।
 
মন্ত্রী আজ রাজধানীর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের ৮নং ফ্লোরে এটিএন বাংলা স্টুডিওতে ইধহমষধফবংয ঋওউঅঋ (ঋবফবৎধঃরড়হ ড়ভ ওহঃবৎহধঃরড়হধষ উধহপব ঋবংঃরাধষ) ঋবংঃরাধষ ঙৎমধহরুরহম ঈড়সসরঃঃবব এর অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
 
মন্ত্রী বলেন, শিশুদের ভবিষ্যতের যোগ্য ও দক্ষ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হলে লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা ও সংস্কৃতি চর্চার বিকল্প নেই। কিন্তু অভিভাবকগণ শুধু বাচ্চাদের বইয়ের পাতায় ঠেসে ধরে জিপিএ-৫ পাওয়া নিয়ে বেশি আগ্রহ দেখান। খেলাধুলা ও সংস্কৃতি চর্চার ক্ষেত্রে তাদের আগ্রহের ঘাটতি রয়েছে। এ মানসিকতা পরিহার করতে হবে।
 
ঋওউঅঋ ইধহমষধফবংয এর সভাপতি এবং এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজ এর চেয়ারম্যান 
ড. মাহফুজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন ঋওউঅঋ ইধহমষধফবংয এর সহসভাপতি ও বাংলাদেশ নৃত্যশিল্পী সংস্থার সভাপতি মিনু হক।
 
উল্লেখ্য, আগামী বছরের ২৪-৩০ অক্টোবর বাংলাদেশে অনুষ্ঠেয় ইধহমষধফবংয ওহঃবৎহধঃরড়হধষ ঈঁষঃঁৎধষ ঋবংঃরাধষ ২০১৯ আয়োজনের জন্য ঋওউঅঋ ইধহমষধফবংয এর ঋবংঃরাধষ ঙৎমধহরুরহম ঈড়সসরঃঃবব গঠিত হয়।
 
#
 
ফয়সল/ফারহানা/রফিকুল/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/২০২০ ঘণ্টা   
 
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৯৩৩
 
পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর) :
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের গণসংযোগ অধিশাখা-২ প্রেরিত পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক সংক্রান্ত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিটি নি¤œরূপ :
দশম জাতীয় সংসদের পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ৩৫তম বৈঠক কমিটি সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর সভাপতিত্বে আজ সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়।
কমিটি সদস্য পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং, মোহাম্মদ সুবিদ আলী ভূঁইয়া, কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, ফিরোজা বেগম (চিনু) এবং এম এ আউয়াল বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। 
কমিটি পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি অধিগ্রহণ আইন, ১৯৫৮ এর সংশোধন বিল আগামী একাদশ সংসদে দ্রুততার সাথে পাশ করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করে।
রাঙ্গামাটির চন্দ্রঘোনাস্থ কর্ণফুলি পেপার মিলে কর্মরত কর্মচারীদের বকেয়া বেতন ভাতা, অবসর ভোগীদের পেনশন, অবসর ভাতা এবং ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের বকেয়া বিল পরিশোধের লক্ষ্যে ১০০ কোটি টাকা ভর্তুকি দেওয়ার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সুপারিশ করে কমিটি।
মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি, বিদ্যুৎ উৎপাদন স্বাভাবিক রাখা এবং পার্বত্য অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থা সচল রাখার জন্য কাপ্তাই লেক দ্রুত খনন করার ব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে কমিটি সুপারিশ করে।
কমিটি কর্ণফুলি পেপার মিলের কাঁচামালের চাহিদা পূরণের উদ্দেশ্যে মিলের অনুকূলে লাইসেন্সকৃত জমিতে উচ্চ ফলনশীল বাঁশের চাষ সম্প্রসারণসহ অন্যান্য জাতের বৃক্ষরোপণ কার্যক্রম বৃদ্ধির প্রয়োজীয় ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করে।
পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
#
সাব্বির/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/২০০০ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                    নম্বর :  ২৯৩২
 
বাংলাদেশের উন্নয়নের চাকা কোন ষড়যন্ত্রেই থেমে যাবে না 
                                            -- সমাজকল্যাণমন্ত্রী 
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর):
 
সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, বাংলাদেশের উন্নয়নের চাকা এখন দ্রুত বেগে ঘুরছে। এই চাকাকে কোন ষড়যন্ত্র করেই আর থামিয়ে রাখা যাবে না। বর্তমান সরকার যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েই বাংলাদেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত করতে পেরেছে। খাদ্য নিরাপত্তায় সরকার ৩ হাজার কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ দিয়েছে। সমগ্র দেশের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিতে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে বাজেট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে মোট বাজেটের ১৩ দশমিক ৪ শতাংশ। এই খাতের মাধ্যমে সরকার দেশের বৃদ্ধ, বিধবা, হিজড়া, দলিত জনগোষ্ঠী ও প্রতিবন্ধীসহ পিছিয়ে থাকা সকল মানুষের একীভূত সমাজের অংশ করেছে। বাংলাদেশ এখন বিশ্বের কোন দেশের কাছেই হাত পাতে না, আর্থিক সহায়তা চায় না। কৃষিতে ব্যাপক উন্নয়ন ঘটিয়ে বাংলাদেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। 
 
মন্ত্রী আজ রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনের সম্মেলন কক্ষে ‘গ্লোবাল হাঙ্গার ইনডেক্স ২০১৮’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
 
বিশেষ অতিথি হিসেবে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ মহসীন ও খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ আরিফুর রহমান অপু এসময় উপস্থিত ছিলেন।
 
#
 
মাইদুল/মাহমুদ/সঞ্জীব/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/১৮০৫ ঘণ্টা   
তথ্যবিবরণী                                                        নম্বর : ২৯৩১
 
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর):
 
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের গণসংযোগ অধিশাখা প্রেরিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক সংক্রান্ত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিটি নি¤œরূপ :
 
দশম জাতীয় সংসদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ২৫তম বৈঠক আজ জাতীয় সংসদের ২নং কমিটি কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সভাপতি  টিপু মুন্সী  বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।
 
বৈঠকে কমিটির সদস্য ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন, মোঃ মোজাম্মেল হোসেন, মোঃ শামসুল হক টুকু, ওমর ফারুক চৌধুরী, মোঃ ফরিদুল হক খান, আবুল কালাম আজাদ, ফখরুল ইমাম এবং কামরুন নাহার চৌধুরী অংশগ্রহণ করেন।
 
বৈঠকে “মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ বিল, ২০১৮” বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা  হয় এবং বিলটি পুঙ্খানুপুঙ্খ পরীক্ষা নিরীক্ষাপূর্বক প্রয়োজনীয় সংশোধনীসহ সংসদে উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়।
 
বৈঠকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগের সচিব  ফরিদ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী  এবং  বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের  সংশ্লিষ্ট কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  
 
#
 
নূরুল/মাহমুদ/সঞ্জীব/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/২০০০ ঘণ্টা   
 
 
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৯৩০
 
শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর) :
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের গণসংযোগ অধিশাখা-২ প্রেরিত শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক সংক্রান্ত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিটি নি¤œরূপ :
দশম জাতীয় সংসদের শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি’র ২৯তম বৈঠক আজ কমিটির সভাপতি মোঃ আফছারুল আমীনের সভাপতিত্বে  সংসদভবনে অনুষ্ঠিত হয়।
  কমিটির সদস্য শিক্ষা মন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ, গোলাম মোস্তফা, এস এম আবুল কালাম আজাদ, মোঃ ছলিম উদ্দিন তরফদার, মোহাঃ মামুনুর রশিদ এবং সেলিনা আক্তার বানু বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
  বৈঠকে ‘জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডবিল, ২০১৮’ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়।
  জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডবিল, ২০১৮ এর প্রতিটি ধারা উপধারা নিখুঁতভাবে পরীক্ষানিরীক্ষা করা হয় এবং প্রয়োজনীয় সংশোধনীসহ চূড়ান্ত রিপোর্ট সংসদে উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়।
  শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিবসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
#
মিজানুর/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/১৯৫৫ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৯২৯
 
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক 
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর) :
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের গণসংযোগ অধিশাখা-২ প্রেরিত জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক সংক্রান্ত সংবাদটি নি¤œরূপ ঃ
দশম জাতীয় সংসদের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ৩৪তম বৈঠক আজ কমিটির সভাপতি এইচ এন আশিকুর রহমানের সভাপতিত্বে সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়।
কমিটি সদস্য জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক, এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী, র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, মোঃ আব্দুল্লাহ, মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, খোরশেদ আরা হক এবং জয়া সেন গুপ্তা বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
বৈঠকে বিগত বৈঠকসমূহে গৃহীত সিদ্ধান্তের বাস্তবায়ন অগ্রগতি এবং সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮ এর খসড়া সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।
বৈঠকে জানানো হয়, বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় ও জেলা প্রশাসনের কার্যালয় নির্মাণ করার জন্য শেরে বাংলা নগরে গণপূর্ত অধিদপ্তর কর্তৃক বরাদ্দকৃত ২ দশমিক ৩৭ একর জমতে অবৈধ দখলকারীদেরকে উচ্ছেদের জন্য মামলা সৃজন করে পরবর্তী কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।
কমিটি সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮ শীর্ষক বিল পরীক্ষানিরীক্ষা করে কতিপয় সংশোধন সাপেক্ষে মহান জাতীয় সংসদে চূড়ান্ত প্রতিবেদন প্রদানের সুপারিশ করে।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিপিএটিসি’র রেক্টর, কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড, মুদ্রণ ও প্রকাশনা অধিদপ্তর, বিয়ামের মহাপরিচালক, অর্থ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব, স্বাস্থ্য বিভাগের অতিরিক্ত সচিব, ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
#
এমাদুল/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/১৯৫৫ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৯২৮
 
ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক 
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর) :
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের গণসংযোগ অধিশাখা-২ প্রেরিত  ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক সংক্রান্ত সংবাদটি নি¤œরূপ ঃ
 
দশম জাতীয় সংসদের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ২৮তম বৈঠক কমিটির সভাপতি ইমরান আহমদের সভাপতিত্বে আজ সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়।
কমিটির সদস্য জুনাইদ আহমেদ পলক, মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, শওকত হাচানুর রহমান (রিমন), শেখ আফিল উদ্দিন এবং হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। বিশেষ আমন্ত্রেণে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বৈঠকে যোগদান করেন।
বৈঠকে বিগত বৈঠকের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের অগ্রগতি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা হয় এবং ডইঘ প্রকল্প বর্তমান সরকারের মেয়াদের মধ্যে দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।
কমিটি প্রত্যেক মোবাইল অপারেটর প্রতিবছর তাদের নিজস্ব অডিটর দ্বারা আর্থিক ও টেকনিকেল অডিট সম্পন্ন করে তাদের প্রতিবেদন বিটিআরসি ও ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির নিকট প্রদানের সুপারিশ করে।
মোবাইল অপারেটরগুলো তাদের মেসেজ সংখ্যা কমানো এবং এ বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য বিটিআরসিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করে।
১৫ কোটি মোবাইল সিম উন্মুক্ত করার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে কমিটির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানানো হয়।
ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান, বিটিসিএল, টেলিটক, বিকেশি, টেশিস, বিএসসিসিএল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ডাক অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
#
এমাদুল/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/১৯৫০ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                        নম্বর :  ২৯২৭
 
২৪-২৬ অক্টোবর নয়াদিল্লীতে বাংলাদেশ-ভারত নৌসচিব পর্যায়ের বৈঠক
নৌসচিবের নেতৃত্বে ১৪ সদস্যের প্রতিনিধিদলের ঢাকা ত্যাগ
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর):
বাংলাদেশ-ভারত নৌসচিব পর্যায়ের বৈঠক আগামী ২৪-২৬ অক্টোবর নয়াদিল্লীতে অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেবেন নৌপরিবহন সচিব মোঃ আবদুস সামাদ। বৈঠকে অংশ নিতে নৌপরিবহন সচিবের নেতৃত্বে ১৪ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল নয়াদিল্লীর উদ্দেশে আজ ২৩ অক্টোবর ঢাকা ত্যাগ করেছে।  
বৈঠকে বাংলাদেশ ও ভারতের নৌখাত সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। এছাড়া দু’দেশের মধ্যে  যাত্রী ও পর্যটকবাহী ক্রুজ (জাহাজ) চলাচল সংক্রান্ত স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি), নৌপথে পণ্য চলাচল সুবিধার জন্য প্রচলিত প্রটোকল ইনল্যান্ড ওয়াটার ট্রানজিট এন্ড ট্রেড (পিআইডব্লিউটিটি)-এ প্রয়োজনীয় সংশোধন এবং চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহার করে ভারতীয় পণ্য পরিবহন বিষয়ে চুক্তি স্বাক্ষর হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে নৌ বাণিজ্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় ১৯৭২ সালের ১ নভেম্বর প্রটোকল অন ইনল্যান্ড ওয়াটার ট্রানজিট এন্ড ট্রেড (পিআইডব্লিউটিটি) স্বাক্ষরিত হয় এবং নৌ বাণিজ্য নিরবচ্ছিন্নভাবে চলমান থাকে। উক্ত প্রটোকলের মেয়াদ ২০১৫ সালের ৩১ মার্চ উত্তীর্ণ হলে ২০১৫ সালের ৬ জুন পুনরায় পিআইডব্লিউটিটি স্বাক্ষরিত হয়। 
এছাড়া, ২০১৫ সালের ৬ জুন  ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরকালে বাংলাদেশ এবং ভারতের মধ্যে (১) কোস্টাল শিপিং বিষয়ক চুক্তি; (২) প্রটোকল অন ইনল্যান্ড ওয়াটার ট্রানজিট এন্ড ট্রেড (পিআইডব্লিউটিটি) এবং (৩) চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহার সংক্রান্ত চুক্তি, প্রটোকল, সমঝোতা স্মারকপত্র স্বাক্ষরিত হয়। এরপর ২০১৭ সালের ৮ এপ্রিল বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরকালে (১) বাংলাদেশ-ভারত প্রটোকল রুটের সিরাজগঞ্জ-দৈখাওয়া এবং আশুগঞ্জ-জকিগঞ্জ  রুট উন্নয়ন; (২) কোস্টাল এবং প্রটোকল রুটে যাত্রী ও পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল এবং (৩) দু’দেশের মধ্যে নেভিগেশন সহায়ক সহযোগিতা সংক্রান্ত তিনটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। 
প্রতিনিধিদলের অন্য সদস্যরা হলেন: বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান তপন কুমার চক্রবর্তী, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য খন্দকার মুহাম্মদ আমিনুর রহমান, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মনোজ কান্তি বড়াল, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (প্রশাসন ও পরিকল্পনা) মোঃ জাফর আলম, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব এ এইচ এম আহসান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক মোঃ মোশারফ হোসেইন, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমডোর এ কে এম ফারুক হাসান, নৌপরিবহন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কমডোর সৈয়দ আরিফুল ইসলাম, বিআইডব্লিউটিএ’র সদস্য (পরিকল্পনা ও অপারেশন) মোঃ শহীদুল ইসলাম, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মোঃ মহিদুল ইসলাম, উপসচিব এ টি এম মোনেমুল হক, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পরিচালক (দক্ষিণ এশিয়া) রিয়াদ হোসেইন এবং উইন শিপ কোম্পানির স্বত্ত্বাধিকারী সৈয়দ বশির আহমেদ।  
#
 
জাহাঙ্গীর/মাহমুদ/সঞ্জীব/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/১৮০৫ ঘণ্টা   

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৯২৬

 
পত্রিকার শিরোনাম দেখে মেডিকেল ছাত্রকে শিক্ষা সহায়তা দিলেন শ্রম প্রতিমন্ত্রী
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর) :
একটি জাতীয় দৈনিকে ‘টাকার অভাবে মেডিকেলে পড়াশুনা নিয়ে সংশয়’ শিরোনাম দেখে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মোঃ মুজিবুল হক ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার থুমনিয়া গ্রামের পান দোকানদার শ্রী ভবেশ চন্দ্র রায়ের ছেলে রিপন চন্দ্র রায়কে আজ মন্ত্রণালয়ে ডেকে এনে তার হাতে বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিল থেকে শিক্ষা সহায়তার চেক তুলে দেন।
গত ২১ অক্টোবর একটি জাতীয় দৈনিকে রিপনের মেডিকেল পড়াশুনা নিয়ে একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। শ্রম প্রতিমন্ত্রী যশোর মেডিকেলে সদ্য ভর্তি হওয়া রিপনের হাতে ৫০ হাজার টাকার চেক তুলে দেন। রিপন শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিল থেকে আগামী তিন বছরে ৩ লাখ টাকা শিক্ষা সহায়তা পাবে। 
চেক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক-অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতে নিয়োজিত শ্রমিক, মেহনতি মানুষ, দিনমজুরের সন্তান সরকারি মেডিকেল কলেজ, টেক্সটাইল বিশ^বিদ্যালয়, প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয় এবং কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ে ভর্তি হলে এ তহবিল থেকে তিন লাখ করে টাকা শিক্ষা সহায়তা প্রদান করা হয়। অপর দিকে কোন শ্রমিকের সন্তান যদি সরকারি বিশ^বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে শ্রমিক কল্যাণ তহবিলের নির্দিষ্ট ফরমে আবেদন করলে তাকেও ৫০ হাজার টাকা শিক্ষা সহায়তা দেয়া হয়। 
অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে চা-প্রক্রিয়াকরণ কারখানায় দুর্ঘটনায় হাত হারানো চা-শ্রমিক মহাবির করকে শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিল থেকে এক লাখ টাকার আর্থিক সহায়তার চেক প্রদান করেন। 
এ সময় বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়নের নবনির্বাচিত কমিটির সভাপতি মাখন লাল কর্মকার এবং সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরীর নেতৃত্বে ৬ সদস্যের প্রতিনিধিদল শ্রম প্রতিমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করেন। 
অনুষ্ঠানে মন্ত্রণালয়ের সচিব আফরোজা খান, বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ড. আনিসুল আউয়াল, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক মোঃ শামসুজ্জামান ভূইয়া, শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শিবনাথ রায় এবং কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের আঞ্চলিক কার্যালয় দিনাজপুরের উপমহাপরিদর্শক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানসহ মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
#
আকতারুল/মাহমুদ/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৮/১৯২০ঘণ্টা

Handout                                                                                                        Number : 2925

President's message on the United Nations Day

Dhaka, 23 October :

            President Md. Abdul Hamid has given the following message on the occasion of United Nations Day :    

            "I am delighted to know that the Ministry of Foreign Affairs has taken initiative to celebrate the United Nations Day in a befitting manner in Bangladesh.

            United Nations has been the most prominent and comprehensive international organization since its inception on 24 October 1945. After more than seven decades of its foundation, the United Nations remains equally important and active for the cause of security, peace, sustainable development and human rights. As we are implementing the Sustainable Development Goals (SDGs) and fighting together for eliminating poverty and combating terrorism, the role of the United Nations is assuming more prominence today.

            The role played by the United Nations today is irreplaceable by any other international organization. Therefore, concrete effort needs to be taken by all of us to uphold the positive image of United Nations by realizing the principles stated in the UN Charter.

            As a responsible member of international community, Bangladesh will always respect the principles of United Nations. Bangladesh will continue its efforts to build cooperation among nations in order to solve economic, social, cultural, or humanitarian problems and to contribute worldwide peace and security, On this day of commemoration, let us reaffirm our commitment to strengthen the United Nations for a better and brighter future where people can live their lives with dignity, peace, and prosperity and no one is left behind.

            I wish continuous strengthening of the engagement of Bangladesh with the UN System.

            Khoda Hafez, May Bangladesh Live Forever."

#

Emranul/Mahmud/Sanjib/Rezaul/2018/1912 hours

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৯২৪
 
আদালতের পরোয়ানার ভিত্তিতে ব্যারিস্টার মইনুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে
                                                                  --- আইনমন্ত্রী
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর) :
আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন টেলিভিশন টক শোতে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে যা বলেছেন তাতে শুধু মাসুদা ভাট্টির মানহানি হয়নি, বাংলাদেশের নারী সমাজ মনে করে তার ঔদ্ধত্যপূর্ণ কথাটি পুরো নারী সমাজকে অপমানিত করেছে। সেখান থেকে মামলা হয়েছে। এই মামলা করার পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কোনো পদক্ষেপ না নিলে বাংলাদেশের নারী সমাজ ক্ষুব্ধ হতো এবং এ ধরনের ঔদ্ধত্যপূর্ণ ও অশ্লীল বক্তব্য দেওয়াকে উৎসাহ দেওয়া হতো। সে জন্যই আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানার ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
মন্ত্রী আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মোজাফফর আহমেদ চৌধুরী মিলনায়তনে এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন। ‘উন্নয়নের রোল মডেল বাংলাদেশ: বর্তমান সরকারের মূল্যায়ন (২০০৯-২০১৮)’ শীর্ষক এ সেমিনারের আয়োজন করে রাষ্ট্রবিজ্ঞান সমিতি। 
মন্ত্রী বলেন, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন জাতীয় ঐক্য ফ্রন্ট গঠন করার আগে থেকেই সরকারের বিরুদ্ধে টক শোতে অনেক কথাই বলতেন। তখন কিন্তু তাঁকে গ্রেফতার করা হয়নি। তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে আদালত থেকে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হওয়ার কারণে। 
রাষ্ট্রবিজ্ঞান সমিতির সভাপতি অধ্যাপক  ড. গিয়াস উদ্দিন মোল্ল্যার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মহিলা সংসদ সদস্য কামরুল লায়লা জলি,  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল মান্নান, সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. সৈয়দ আশরাফুর রহমান, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের  অধ্যাপক ড. খুরশিদা বেগম সাইদ প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
#
রেজাউল/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/১৮৫০ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৯২৩
 
২৮ অক্টোবর ঢাকায় ‘শেখ হাসিনা পার্বত্য চট্টগ্রাম কমপ্লেক্স’ উদ্বোধন
 
ঢাকা, ৮ কার্তিক (২৩ অক্টোবর):
আগামী ২৮ অক্টোবর ঢাকার বেইলী রোডে ১৯৪ কোটি টাকা ব্যয়ে পার্বত্য ঐতিহ্যম-িত ‘শেখ হাসিনা পার্বত্য চট্টগ্রাম কমপ্লেক্সস’ ভবনের উদ্বোধন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর উদ্বোধন করবেন। 
‘শেখ হাসিনা পার্বত্য চট্টগ্রাম কমপ্লেক্স’ শীর্ষক প্রকল্পটি সরকারের মধ্যমেয়াদি বাজেটের অন্তর্ভুক্ত যা ২০১৬ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি একনেক-এ অনুমোদিত হয়। উক্ত কমপ্লেক্সে একটি মাল্টিপারপাস হল, ডরমেটরি, প্রশাসনিক ভবন, মিউজিয়াম, লাইব্রেরি ইত্যাদি ছাড়াও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী ও পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যানের বাসভবন নির্মাণ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষের সাথে সমতলের মানুষের পারস্পরিক সাংস্কৃতিক আদানপ্রদান, সহযোগিতা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মেলবন্ধন তৈরিতে কমপ্লেক্সটি অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। তাছাড়া স্থাপনাটি পার্বত্য অঞ্চলের বিভিন্ন নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য, সামাজিক রীতিনীতি, ভাষা, ধর্ম এবং আচরণ সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষকে পরিচিত করে তুলবে। কমপ্লেক্সটি পর্যটকদের জন্য পার্বত্য চট্টগ্রামের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও কৃষ্টিসংস্কৃতির সমন্বয়ে একটি দৃষ্টিনন্দন শৈল্পিক স্থাপনা হিসেবেও বিবেচিত হবে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জ
Todays handout (9).docx Todays handout (9).docx

Share with :

Facebook Facebook