তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৪ জানুয়ারি ২০১৮

তথ্যবিবরণী 04/01/2018

তথ্যবিবরণী                                                                                   নম্বর : ৪৬

সরকারি ব্যবস্থাপনায় মিয়ানমার নাগরিকদের বায়োমেট্রিক নিবন্ধন চলছে

উখিয়া (কক্সবাজার), ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :

    কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ১২টি অস্থায়ী আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমার নাগরিকদের সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬টি ক্যাম্পের মাধ্যমে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন কাজ এগিয়ে চলছে। পাসপোর্ট অধিদপ্তর নিবন্ধন কাজ বাস্তবায়ন করছে।

আজ কুতুপালং-১ ক্যা¤েপ ৩ শত ৫৩ জন পুরুষ ও ৩ শত ৫০ জন নারীসহ  মোট ৭ শত ৩ জন, কুতুপালং-২ ক্যাম্পে ৯ শত ৪৮ জন পুরুষ ও ১ হাজার ১ শত ৭১ জন নারীসহ  মোট ২ হাজার ১ শত ১৯ জন, নোয়াপাড়া ক্যাম্পে ২ শত ২৬ জন পুরুষ ও ১ শত ৮৮ জন নারীসহ  মোট ৪ শত ১৪ জন, থাইংখালী-১ ক্যাম্পে ১ শত ৩২ জন পুরুষ ও ১ শত ৩০ জন নারীসহ  মোট ২ শত ৬২ জন, থাইংখালী-২ ক্যাম্পে ১ শত ২ জন পুরুষ ও ৭০ জন নারীসহ  মোট ১ শত ৭২ জন, বালুখালী ক্যাম্পে ৩ শত ১৫ জন পুরুষ ও ২ শত ৫২ জন নারীসহ  মোট ৫ শত ৬৭ জন এবং পুরোদিনে ৬টি কেন্দ্রে মোট ৪ হাজার ২ শত ৩৭ জনের জনের বায়োমেট্রিক নিবন্ধন করা হয়েছে।

এ নিয়ে আজ পর্যন্ত বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে মোট ৯ লাখ ৪৩ হাজার ৮ শত ৫৩ জনের নিবন্ধন করা হয়েছে।

#

সাইফুল/ফারহানা/মোশারফ/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/২০১০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                   নম্বর :  ৪৫

মিয়ানমার নাগরিকদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত

উখিয়া (কক্সবাজার), ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :

    কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ১২টি অস্থায়ী আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমার নাগরিকদের জন্য মানবিক সহায়তার অংশ হিসেবে বেসরকারি উৎস থেকে প্রাপ্ত ত্রাণ সরকারি উদ্যোগে বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।

         উখিয়ায় স্থাপিত নিয়ন্ত্রণকক্ষে আজ ১৬ জন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান ৩২ ট্রাকের মাধ্যমে ৫১ মেট্রিক টন ত্রাণ জমা দিয়েছে। প্রাপ্ত এসব ত্রাণসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে ১ হাজার ৪ শত ৮০ প্যাকেট শুকনো খাবার, ৪ শত ২৮ প্যাকেট শিশুখাদ্য, ৮ হাজার পিস কাপড়চোপড়, ১৬ হাজার ৯ শত ৯৪ পিস গৃহস্থালিসামগ্রী ও ১ হাজার ২ শত ৬২টি স্যানিটেশনসামগ্রী। এসব ত্রাণ আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমার নাগরিকদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে।  
 
#

সাইফুল/ফারহানা/মোশারফ/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/২০১৫ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                   নম্বর : ৪৪
ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির আওতায় ১ লাখ ২৬ হাজার জনগোষ্ঠী অস্থায়ী কর্মে নিযুক্ত  
ঢাকা, ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :
ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির আওতায় এ পর্যন্ত ৩৭টি জেলার ১২৮টি উপজেলায় ১ লাখ ২৮ হাজার ৮৯৬ জনকে প্রশিক্ষণ এবং ১ লাখ ২৬ হাজার ৫৬১ জনের অস্থায়ী কর্মে নিয়োজিত করা হয়েছে। এর মধ্যে যুবনারীর অংশগ্রহণ প্রায় শতকরা ৪৫ ভাগ।
আজ যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটির এক সভায় এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।
সভায় জানানো হয়, ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচিতে সুবিধাভোগীদের ব্যাপক অংশগ্রহণ সংশ্লিষ্ট উপজেলাগুলোতে সরকারি বিভিন্ন বিভাগে কর্ম-চাঞ্চল্যের সৃষ্টি ও সেবার পরিধি এবং মান বৃদ্ধি করেছে। যুবদের দক্ষতা, আত্মবিশ্বাস ও সচেতনতা বৃদ্ধিসহ তাদের আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। যেসব যুব নারী পুরুষ ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে অস্থায়ী কর্মে নিযুক্তি সম্পন্ন করেছেন তাদের মধ্যে ৪৩,০১৪ জন স্থায়ী কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থানে নিয়োজিত হয়েছে; যাদের মধ্যে যুবনারীর সংখ্যা প্রায় শতকরা ৪২ ভাগ। এ কর্মসূচিতে নারীর ব্যাপক অংশগ্রহণের ফলে নারীদের ক্ষমতায়নের পথ সুগম হচ্ছে।
ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির অধীনে ১০টি মডিউলে ৩ মাস প্রশিক্ষণ প্রদান করে বিভিন্ন সরকারি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানে ২ বছরের জন্য অস্থায়ী কর্মসংস্থানে সংযুক্তি প্রদান করা হচ্ছে। বর্তমানে দারিদ্র্য মানচিত্র মোতাবেক বিভিন্ন উপজেলাকে ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির আওতাভুক্ত করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য, ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচিটি ২০০৯-২০১০ অর্থবছরে সূচিত হয়।
ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি পর্যায়ক্রমে দেশের অন্যান্য জেলা ও উপজেলায় সম্প্রসারিত হবে। ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি বাস্তবায়নে সরকার এযাবত ১৭২১ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। এ কর্মসূচি শিক্ষিত বেকার যুবদের বেকারত্ব মোচনের ক্ষেত্রে এক যুগান্তকারী সাফল্য বয়ে আনবে।
যুব ও ক্রীড়া সচিব মোঃ আসাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে উক্ত সভায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের ঊর্র্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ  অংশগ্রহণ করেন।
#
শফিকুল/ফারহানা/মোশারফ/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/১৮২৫ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                   নম্বর :  ৪৩

আগামী ৫-৭ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় ওআইসি’র পর্যটন মন্ত্রীদের সম্মেলন

ঢাকা, ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :

    ওআইসিভুক্ত (অর্গানাইজেশন অভ্ ইসলামিক কনফারেন্স)  দেশসমূহের  পর্যটন মন্ত্রীদের  দশম সম্মেলন আগামী  ৫ থেকে ৭ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ  সম্মেলন উদ্বোধন করবেন। উল্লেখ্য ২০১৫ সালের ২১-২৩ নভেম্বর নাইজারের রাজধানী নিয়ামীতে অনুষ্ঠিত ৯ম সম্মেলনে  সর্বসম্মতভাবে ১০ম সম্মেলন ঢাকায় অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত হয়।  

    আজ সচিবালয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী এ, কে, এম শাহজাহান কামালের সভাপতিত্বে এ সংক্রান্ত স্টিয়ারিং কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়।

    সদস্য রাষ্ট্রসমূহের মধ্যে পর্যটনভিত্তিক পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি, ইসলামিক কালচারাল হেরিটেজ, রিলিজিয়াস ট্যুরিজমসহ পর্যটনের প্রসারের মাধ্যমে বিনিয়োগ, বাণিজ্য ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে এ সম্মেলন বিশেষভাবে ভূমিকা রাখবে বলে সভায় আশাবাদ ব্যক্ত করা  হয়।

    সভায় বিমান ও পর্যটন সচিব এস এম গোলাম ফারুক এবং মন্ত্রণালয় ও দপ্তরসমূহের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

#

মাহবুব/ফারহানা/মোশারফ/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/১৮২০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                   নম্বর : ৪২

খান মোঃ আব্দুল মান্নানকে ১ বছরের জন্য
মহাপরিদর্শক (নিবন্ধন) পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ

ঢাকা, ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :

    আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীন নিবন্ধন অধিদফতরের মহাপরিদর্শক খান মোঃ আব্দুল মান্নানকে  রাষ্ট্রপতির অনুমোদনক্রমে তাঁর অবসরউত্তর ছুটি বাতিলের শর্তে ৭ জানুয়ারি ২০১৮ তারিখ অথবা তাঁর যোগদানের তারিখ থেকে মহাপরিদর্শক, নিবন্ধন পদে (স্ব-পদে)  এক বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে।

    আজ বৃহস্পতিবার আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

#

রেজাউল/ফারহানা/মোশারফ/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/১৮১৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ৪১
 
 
২০১৯ সালের মধ্যেই জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৮ শতাংশে উন্নীত হবে
                                                --- পরিকল্পনামন্ত্রী
 
ঢাকা, ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :
পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, বিনিয়োগ না বাড়িয়েও প্রবৃদ্ধি বাড়ানো যায়। এক্ষেত্রে উৎপাদনশীলতা বাড়াতে হবে। দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন আনতে হবে। উৎপাদনশীলতা ও দক্ষতা বাড়ানো গেলে ২০১৯ সালের মধ্যেই জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৮ শতাংশে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে। আজ রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলনকক্ষে পরিকল্পনা বিভাগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত রিবেজিং এন্ড রিভিশন অভ্ জিডিপি : বাংলাদেশ পার্সপেকটিভ’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, বিনিয়োগ না বাড়িয়ে উৎপাদনশীলতা বাড়ানোর কারণে প্রবৃদ্ধি বেড়েছে। তবে কাক্সিক্ষত প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে হলে শিক্ষা ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আনতে হবে। রোবটিকস ও প্রযুক্তি বিষয়ে পড়াশোনার উপর গুরুত্ব দিয়ে ক্ষেত্র বাড়াতে হবে। তিনি আরো বলেন, এখন প্রযুক্তি, ই-কমার্স, মোবাইল ব্যাংকিংসহ বিভিন্ন নতুন বিষয় অর্থনীতিতে যোগ হয়েছে। তাই জিডিপির এ বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।
রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রফেসর ওয়াহিদ উদ্দিন মাহমুদ ও ইউকের আলস্টার ইউনিভার্সিটির প্রফেসর এস আর ওসমানি। বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. ফরাস উদ্দিন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. মির্জা মোহাম্মদ আজিজুল ইসলাম। সেমিনারটি পরিচালনা করেন সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. শামসুল আলম এবং সভাপতিত্ব করেন পরিকল্পনা সচিব জিয়াউল ইসলাম।
#
তৌহিদুল/ফারহানা/মোশারফ/জয়নুল/২০১৮/১৮২০ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ৪০
 
 
ফটোজার্নালিস্ট এসোসিয়েশেনের পাশে থাকব
                            --- নৌপরিবহণ মন্ত্রী 
ঢাকা, ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :
বাংলাদেশ ফটোজার্নালিস্ট এসোসিয়েশেনের কার্যনির্বাহী কমিটির একটি প্রতিনিধিদল আজ নৌপরিবহণ মন্ত্রী শাজাহান খানের সাথে তাঁর সচিবালয়স্থ দফতরে সাক্ষাৎ করেন। 
  সংগঠনের সভাপতি এ বি এম রফিকুর রহমান প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন। এসময় সহসভাপতি শরিফ সারওয়ারসহ অন্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সাক্ষাৎকালে নেতৃবৃন্দ তাদের কার্যক্রম ও বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন।
মন্ত্রী ফটোজার্নালিস্ট এসোসিয়েশেনের কার্যনির্বাহী কমিটির নেতৃবৃন্দকে স্বাগত জানান। তিনি তাদের কাজের প্রশংসা করেন। শাজাহান খান বঙ্গবন্ধুর উদ্যোগ ও পৃষ্ঠপোষকতায় গড়া এ সংগঠনের সমৃদ্ধি কামনা করেন।  এসময় তিনি তাদের সমস্যা সমাধানে পাশে থাকার আশ্বাস দেন।
 
#
জাহাঙ্গীর/ফারহানা/মোশারফ/জয়নুল/২০১৮/ ১৮১৫ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর :  ৩৯
 
দলিল লেখকদের ৬৫ বছরের বয়সসীমা বিলুপ্তির অনুমোদন দিলেন আইনমন্ত্রী
 
ঢাকা, ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :
২০১৭ সালের ৯ ডিসেম্বর বাংলাদেশ দলিল লেখক সমিতির কাউন্সিল অধিবেশনে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক এর প্রতিশ্রুতির পরিপ্রেক্ষিতে এখন থেকে ৬৫ বছর বয়সের পরেও দলিল লিখতে পারবেন সনদধারী দলিল লেখকরা। তাদের ৬৫ বছরের সর্বোচ্চ বয়সসীমা বিলুপ্তকরণ সংক্রান্ত নথিতে অনুমোদন দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। এখন আইন মন্ত্রণালয়ের অধীন নিবন্ধন অধিদপ্তর এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করবে।
নিবন্ধন সনদ পাওয়ার জন্য ২০০৩ সালের পূর্বে দলিল লেখকদের বয়সসীমা এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার শর্ত ছিল না। ২০০৩ সালে জারিকৃত এক পরিপত্রের মাধ্যমে তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ এবং সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৬৫ বছরের শর্ত আরোপ করা হয়।
এতে করে ৬৫ বছরের পর অনেক দলিল লেখক বেকার হয়ে যায়। ফলে তারা ৬৫ বছরের সর্বোচ্চ বয়সসীমা বিলুপ্ত করার দাবি জানান। তাদের দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ২০১৭ সালের ৯ ডিসেম্বর বাংলাদেশ দলিল লেখক সমিতির কাউন্সিল অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় দলিল লেখকদের সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৬৫ বছর বিলুপ্তির ঘোষণা দেন। ওই ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে দলিল লেখকদের ৬৫ বছরের সর্বোচ্চ বয়সসীমা বিলুপ্তকরণ সংক্রান্ত নথিতে অনুমোদন দিলেন আইনমন্ত্রী ।
#
রেজাউল/ফারহানা/মোশারফ/জয়নুল/২০১৮/ ১৭৪৫ঘণ্টা 
 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ৩৮

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রী হিসেবে যোগ দিলেন রাশেদ খান মেনন 

ঢাকা, ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :
 আজ সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রী হিসেবে মন্ত্রণায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে আনুষ্ঠানিকভাবে  প্রথম বৈঠক করলেন  সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। এ সময় মন্ত্রীর সাথে বৈঠকে  উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, সমাজকল্যাণ সচিব জিল্লার রহমানসহ মন্ত্রণালয়ের সকল ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।
বৈঠকে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘অনগ্রসর পিছিয়ে পড়া সমাজের দুঃস্থ অসহায় মানুষের জন্যই এই সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সুতরাং সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষদের জন্যই আমাদের নিরলসভাবে কাজ করে যেতে হবে।’ এসময় সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সামনের নির্বাচনের বিষয়ে বলেন, ‘আমাদের হাতে নানামুখী উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করার জন্য আরো সময় আছে নয় মাস। আগামী ছয়মাসের মধ্যে আমাদের দৃশ্যমান কিছু করে দেখাতে হবে।’ এজন্য তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। 
এরপর সভায় সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ নবনিযুক্ত মন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, ‘বর্তমান সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় মন্ত্রীর নেতৃত্বে আরো গতিশীলতা লাভ করবে বলে আমি বিশ^াস করি।’ তিনি আরো বলেন, সকলে মিলেমিশে  কাজ করলে এই মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সামনের দিনগুলো দেশের পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠীর অভূতপূর্ব উন্নয়ন ঘটবে।
#
মাইদুল/ফারহানা/মোশারফ/জয়নুল/২০১৮/১৯০০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর :  ৩৭
 
বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ে নবনিযুক্ত মন্ত্রী এ, কে, এম শাহজাহান কামাল
বিমান হবে যাত্রীদের নিরাপত্তা ও আস্থার প্রতীক
 
ঢাকা, ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :
বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের নবনিযুক্ত মন্ত্রী এ, কে, এম শাহজাহান কামাল বলেছেন, নেতিবাচক ইমেজ দূর করে বিমান যাতে আকাশে যাত্রীদের নিরাপত্তা ও আস্থার প্রতীক হয় সে লক্ষ্যে তিনি কাজ করবেন। পর্যটন শিল্প যাতে সরকারের নীতি নির্ধরণী মহলের কাছে যথাযথ গুরুত্ব পায় সে প্রচেষ্টাও তিনি নেবেন। 
তিনি বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, কর্মসংস্থান ও ভাবমূর্তি বৃদ্ধিতে এভিয়েশন ও পর্যটনখাত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।  এর সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে পারলে এ খাত হতে পরে দেশের সমৃদ্ধির অন্যতম হাতিয়ার। তাই  বিমান ও পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে তিনি সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার প্রদান করবেন। এ জন্য তিনি মন্ত্রণালয় ও অধীন দপ্তর সমূহের কর্মকর্তাদের সহযোগিতা কামনা করেন। 
এর আগে বিদায়ী মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন সচিবালয়ে নবনিযুক্ত মন্ত্রী এ, কে, এম শাহজাহান কামালের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করেন। বিমান ও পর্যটন সচিব এস এম গোলাম ফারুকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মন্ত্রণালয় ও দপ্তরসমূহের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 
#
তুহিন/ফারহানা/মোশারফ/জয়নুল/২০১৮/ ১৭৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                      নম্বর : ৩৬ 

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পখাতে গুণগতমান বৃদ্ধির তাগিদ দিলেন শিল্পসচিব 
ঢাকা, ২১ পৌষ (৪ জানুয়ারি) :
জাতীয় অর্থনীতিতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পখাতের অবদান বর্তমানে শতকরা ৮৫ ভাগ উল্লেখ করে শিল্পসচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ্ বলেছেন, এখাতে উৎপাদিত পণ্যের গুণগতমান আরো উন্নত করে ২০২১ সালের আগেই মধ্যমআয়ের বাংলাদেশ বিনির্মাণে লক্ষ্য অর্জন সম্ভব। এ লক্ষ্যে তিনি অ্যাক্রেডিটেশন কার্যক্রম জোরদার করে দেশব্যাপী এসএমইখাতে মানসম্মত পণ্য উৎপাদনের তাগিদ দেন। 
শিল্পসচিব আজ বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ড (বিএবি) আয়োজিত ‘মানবিষয়ক’ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধনকালে একথা বলেন। শিল্প মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে আজ এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়।  
বিএবি’র মহাপরিচালক মো. মনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সহিদুল ইসলাম ও একরামুল হক এবং বিএবি’র বোর্ড সদস্য প্রকৌশলী মো. লিয়াকত আলী বক্তব্য রাখেন।   
শিল্পসচিব বলেন, বিশ্বায়নের প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে বর্তমান সরকার দেশীয় শিল্পপণ্যের গুণগত মনোন্নয়নে ব্যাপক উদ্যোগ নিয়েছে। এ লক্ষ্যে বিএবি’র মাধ্যমে আন্তর্জাতিক পর্যায়ের মান অবকাঠামো গড়ে তোলা হচ্ছে। ইতোমধ্যে জাতীয় গুণগতমাননীতি প্রণয়ন করা হয়েছে। এর ফলে দেশে রপ্তানিমুখী বিভিন্ন শিল্পখাত বিকশিত হচ্ছে এবং অর্থনীতির বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। 
উল্লেখ্য, বাংলাদেশে পণ্য ও সেবার গুণগত মানসনদ প্রদানকারী টেস্টিং, ক্যালিব্রেশন ও মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি, সনদ প্রদানকারী এবং পরিদর্শন সংস্থার দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে দিনব্যাপী এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়। এতে  জাতীয় বিভিন্ন বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানে কর্মরত অর্ধশতাধিক পরীক্ষক, অ্যাসেসর ও ল্যাবরেটরি বিশেষজ্ঞরা অংশ নেন।  
#
জলিল/অনসূয়া/শহিদ/রফিকুল/শামীম/২০১৮/১২৪১ ঘণ্টা 

Todays handout (10).docx Todays handout (10).docx

Share with :
Facebook Facebook