তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭

তথ্যবিবরণী 10/9/2017

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩২৯
 
দশম জাতীয় সংসদের কার্য উপদেষ্টা কমিটির সপ্তদশ বৈঠক অনুষ্ঠিত

ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) : 
দশম জাতীয় সংসদের ‘কার্য উপদেষ্টা কমিটির সপ্তদশ বৈঠক আজ জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সভাপতি ও জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।
কমিটির সদস্য এবং সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
        কমিটির সদস্য সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মোঃ ফজলে রাব্বী মিয়া, আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ, রাশেদ খান মেনন, আ স ম ফিরোজ, মইন উদ্দীন খান বাদল এবং আনিসুল হক বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
        বৈঠকে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় যে, দশম জাতীয় সংসদের সপ্তদশ অধিবেশন আজ ১০ সেপ্টেম্বর শুরু হয়ে আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ তারিখ পর্যন্ত চলবে এবং প্রতি কার্যদিবসে অধিবেশন বিকেল ৫টায় শুরু হবে। তবে প্রয়োজনে এ সময়সীমা স্পিকার বাড়াতে বা কমাতে পারবেন।
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব ড. আবদুর রব হাওলাদার ও সংসদ সচিবালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

মোতাহার/সেলিম/মোশারফ/জয়নুল/২০১৭/১৯২০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩২৮

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে
                       ---এলজিআরডি মন্ত্রী

ময়মনসিংহ,, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :
স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, এক সময় আমাদেরকে বলা হতো, তলাবিহীন ঝুড়ি। যারা একথা বলেছে, আজ তারাই বলছে উন্নয়নের রোলমডেল বাংলাদেশ। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে।
মন্ত্রী আজ দুপুরে ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলা আওয়ামী লীগ কর্তৃক আয়োজিত এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
ময়মনসিংহ-৯ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন তুহিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ড. হাবিবে মিল্লাত। অন্যান্যের মধ্যে ময়মনসিংহ-২ আসনের সংসদ সদস্য শরীফ আহমেদ, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী শ্যামা প্রসাদ অধিকারীসহ জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
মন্ত্রী বলেন, আমরা এখন অর্থনৈতিক মুক্তির সংগ্রামে রয়েছি। কোন গোলটেবিল বা গোপন বৈঠক আমাদের অগ্রগতি থামাতে পারবে না। তিনি বলেন, আজকে দেশ নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র হচ্ছে। আমরা এ সকল ষড়যন্ত্রের দাঁত ভাঙ্গা জবাব দেব।
এর আগে মন্ত্রী সাম্প্রতিক রোহিঙ্গা প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, আমাদের সরকার সাধ্যমতো সহায়তার চেষ্টা করছে, যাতে বাংলাদেশে প্রবেশকারী রোহিঙ্গারা মানবিক জীবন-যাপন করতে পারে। আমাদের পক্ষে এতো বিশাল সংখ্যক রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়া কষ্টকর। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিকভাবেও বিষয়টি সমাধানে আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে।
এছাড়া সাম্প্রতিক বন্যায় দেশব্যাপী ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা-ঘাটের মেরামত প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, বন্যায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) রাস্তার যে ক্ষতি হয়েছে তা মেরামত করা হবে। আর বেশি ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা সংস্কারে মন্ত্রণালয় হতে বিশেষ প্রকল্প গ্রহণ করা হবে।
জনসভার পূর্বে মন্ত্রী স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) কর্তৃক বাস্তবায়িত ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৫ টি উন্নয়নমূলক প্রকল্পের শুভ উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।
#

জাকির/সেলিম/মোশারফ/আব্বাস/২০১৭/১৯০৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩২৭

শতভাগ সাক্ষরতা অর্জনে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলুন
            ---প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী
ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :
    প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, এদেশ আপনার, আমার ও আমাদের। তাই দেশের নিরক্ষরতা দূর করার দায়িত্ব আমাদের সকলের। আমাদের চারপাশে আত্মীয়স্বজন প্রতিবেশী যারা নিরক্ষর রয়েছে তাদের সাক্ষরতার দায়িত্ব নিলে ২০২১ সালের আগেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে দেশ স্বাধীন হয়েছে। দেশের উন্নয়নের গতিকে আরো বেগবান করতে নিরক্ষতা দূর করে শতভাগ সাক্ষরতা অর্জনের জন্য সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।
    আজ ঢাকার উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর অডিটোরিয়ামে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস-২০১৭ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

    মন্ত্রী বলেন,  টেকসই উন্নয়নের জন্য সাক্ষরতা ও দক্ষতাসম্পন্ন মানবসম্পদের প্রয়োজন। বর্তমান সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ প্রত্যাশার চেয়েও দ্রুত গতিতে উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলেছে। এই এগিয়ে যাওয়ায় কোন আত্মতুষ্টির কারণ নেই বরং আমাদের আত্মবিশ্বাসী হতে হবে, যেমন করে ১৯৭১ সালে স¦াধীনতা অর্জন করতে পেরেছি, এবারও পারবো।
    মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেখিয়েছেন সোনার বাংলার স্বপ্ন আর তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিয়েছেন ডিজিটাল বাংলাদেশ। আগামীর উপযোগী হিসেবে জনশক্তিকে কাজে লাগাতে হলে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। শিক্ষার কোন বয়স নেই, সরকার সকল বয়স পেশার নিরক্ষরদের জন্য উপযোগী সাক্ষরতা কার্যক্রম গ্রহণ করেছে।  
    
#

গিয়াস/সেলিম/শেফায়েত/মোশারফ/আব্বাস/২০১৭/১৯০৪ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩২৬

¯œাতক মেডিকেল কোর্স বিএসএমএমইউ’র অধীনে আনতে পাঁচ সদস্যের কমিটি
 

ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :
ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সব ¯œাতক সমমানের মেডিকেল কোর্স বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের অধীনে আনতে করণীয় সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট সুপারিশসহ প্রস্তাবনা প্রণয়নের জন্য পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ সচিব সিরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে কমিটিতে বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য, বিএমএ, বিএমডিসি’র প্রতিনিধি থাকবেন। মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব (চিকিৎসা শিক্ষা) কমিটির সদস্য সচিব হিসাবে থাকবেন।

কিভাবে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের অধীনস্থ মেডিকেল কলেজসমূহের শিক্ষা কোর্স বিএসএমএমইউ’র আওতায় আনা যায় তা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য কমিটিকে নির্দেশ দিয়েছেন মন্ত্রী।

উল্লেখ্য, বর্তমানে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের অধীনে প্রায় অর্ধশত সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল কলেজ পরিচালিত হচ্ছে। বিশ^বিদ্যালয়ের একটি ডিন অফিসের মাধ্যমে সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. ইসমাইল খান, বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাচিপ সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলানসহ মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
#

পরীক্ষিৎ/সেলিম/মোশারফ/আব্বাস/২০১৭/১৮২০ ঘণ্টা

 
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩২৫

 লটারির মাধ্যমে ৮৩৭ জনের ফ্ল্যাট নম্বর চূড়ান্তকরণ


ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :

    উত্তরা ১৮ নম্বর সেক্টরে রাজউকের অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পে বরাদ্দ গ্রহীতাদের মধ্যে আজ ফ্ল্যাট নম্বর নির্ধারণ করা হয়। উন্মুক্ত লটারির মাধ্যমে চার কিস্তি পরিশোধকারী ১ হাজার ৮৩২ জন বরাদ্দ গ্রহীতার মধ্যে ৮৩৭ জনের ফ্ল্যাট নম্বর চূড়ান্ত করা হলো। এ বছরের ডিসেম্বরে সকল ফ্ল্যাট হস্তান্তরের লক্ষ্যে নভেম্বর মাসে আরো একটি লটারি অনুষ্ঠিত হবে বলে এ সময়ে জানানো হয়।
    রাজউক মিলনায়তনে আয়োজিত লটারি অনুষ্ঠানে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রাজউকের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুর রহমান।
    প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী বলেন, সবার জন্য আবাসন নিশ্চিত করতে রাজউক ফ্ল্যাট প্রকল্প গ্রহণ করেছে। আগে রাজউক শুধু প্লট উন্নয়ন করতো। ফ্ল্যাট প্রকল্পের আওতায় বর্তমানে উত্তরায় ৬ হাজার ৬৩৬টি ফ্ল্যাটের নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। আরো ৪ হাজার ৮০০ ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। এছাড়াও ঝিলমিল প্রকল্পে ১৪ হাজার এবং পূর্বাচলে ৭০ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। পূর্বাচলে ১০০ একর জমির ওপর ১৪২ তলার একটি আইকনিক টাওয়ার নির্মাণ করা হবে। এ জন্য আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে।
    তিনি বলেন, উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পে পার্ক, উন্মুক্ত স্থান, খেলার মাঠ, সুইমিংপুল, মসজিদ, স্কুল, ডিপার্টমেন্টাল স্টোর, কাঁচা বাজারসহ আধুনিক সকল সুযোগ সুবিধা থাকবে। উত্তরা তৃতীয় পর্বের এলাকায় সাড়ে আট কিলোমিটার দীর্ঘ লেক নির্মাণ করা হয়েছে। এ লেকের পাড় দিয়ে পায়ে হাঁটার পথ নির্মাণ করা হয়েছে। অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পটিও গড়ে তোলা হয়েছে লেকের পাড়ে।
    ফ্ল্যাটের বরাদ্দ গ্রহীতাদের উপস্থিতিতে চার কিস্তি পারিশোধকারী ১ হাজার ৮৩২ জনের মধ্যে থেকে বিশেষ প্রোগ্রামিং-এর মাধ্যমে প্রথমে ৮৩৭ জনকে বাছাই করা হয়। এরপর একই প্রযুক্তিতে বেছে নেওয়া ৮৩৭ জনের মধ্যে ফ্ল্যাটের নম্বর বিতরণ করা হয়। বরাদ্দ গ্রহীতাদের উপস্থিতিতেই ফলাফল তালিকায় রাজউকের চেয়ারম্যানসহ বোর্ডের সদস্যগণ স্বাক্ষর করেন। অত্যন্ত স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় এ লটারি সম্পাদন করায় উপস্থিত সবাই ধন্যবাদ জানান।
#

কিবরিয়া/সেলিম/মোশারফ/আব্বাস/২০১৭/১৮১৮ ঘণ্টা

 

সংশোধিত
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩২৩

আগামী ১১ অক্টোবর থেকে ১০ম এশিয়া কাপ হকি শুরু

ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :
আগামী ১১ থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ১০ম এশিয়া কাপ হকি টুর্নামেন্ট ২০১৭। এই টুর্নামেন্টে স্বাগতিক বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, চীন, জাপান, মালয়েশিয়া, কোরিয়া ও ওমানসহ মোট ৮টি দেশ অংশগ্রহণ করবে। এছাড়াও এশিয়া, ইউরোপ, কানাডা ও অস্ট্রেলিয়া থেকে ২৮ জন টুর্নামেন্ট পরিচালনাকারী কর্মকর্তা বাংলাদেশে আসবে।
দীর্ঘ ৩২ বছর পর বাংলাদেশে আয়োজিত এশিয়া কাপ হকি ২০১৭ টুর্নামেন্টটি সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা আজ যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. শ্রী বীরেন শিকদার-এর  সভাপতিত্বে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় দেশি-বিদেশি খেলোয়াড়, কর্মকর্তা ও আমন্ত্রিত অতিথিদের বাংলাদেশে অবস্থানকালীন সময়ে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়। সভায় জানানো হয় যে, আন্তর্জাতিক এ টুর্নামেন্টকে সুষ্ঠু ও সফলভাবে আয়োজনের লক্ষ্যে ১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে হকি স্টেডিয়ামের উন্নয়ন কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে। এর মধ্যে রয়েছে ফ্লাডলাইট ও স্কোরবোর্ড স্থাপন, ড্রেসিংরুম ও প্রেসবক্সসহ স্টেডিয়ামের অন্যান্য সংস্কার কাজ। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই এসব কাজ সম্পন্ন হবে বলে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কর্মকর্তাগণ জানিয়েছেন ।
সভায় যুব ও ক্রীড়া সচিব মো. আসাদুল ইসলাম এবং হকি ফেডারেশনের সভাপতি ও বিমানবাহিনী প্রধান চিফ এয়ার মার্শাল আবু এসরারসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও সংস্থা এবং হকি ফেডারেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

#

শফিকুল/সেলিম/শেফায়েত/আব্বাস/২০১৭/১৮০০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩২৪
 
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি অবৈধ অভিবাসীদের বৈধকরণ বিষয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা
ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) : 
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি অবৈধ অভিবাসীদের বৈধকরণ বিষয়ে এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা আজ ঢাকার ইস্কাটনস্থ প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি সভায় সভাপতিত্ব করেন। 
সভায় প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি অবৈধ অভিবাসীদের বৈধকরণ এবং আর কেউ  যেন অবৈধভাবে সেদেশে না যেতে পারে সে জন্য জোরালো প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশনা প্রদান করেন।
সভায় মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের বৈধকরণে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা এবং 
মানবপাচার রোধে পুলিশ, ইমিগ্রেশন, কোস্টগার্ড, বিজিবিসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্যদের নিদের্শনা প্রদানের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চলমান কার্যক্রম জোরদারকরণের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়। অবৈধ অভিবাসীদের রিহায়ারিং এর আওতায় আনার জন্য মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনের শ্রম উইংয়ের মাধ্যমে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা অব্যাহত রাখা ও মালয়েশিয়ায় দক্ষ ও আধাদক্ষকর্মী প্রেরণের বিষয়েও জোর দেয়া হয়।
বাংলাদেশের বিমানবন্দরসমূহে অবৈধভাবে কর্মী গমন রোধে মনিটরিং ও এনফোর্সমেন্ট টাস্কফোর্সের কার্যক্রম জোরদার করণের ওপর আলোচনা করা হয়। এছাড়া স্টুডেন্ট ভিসা, ভিজিট ভিসাসহ বিভিন্ন ব্যক্তিগত ভিসায় গমনকারীদের বিষয়ে কূটনৈতিক উদ্যোগ গ্রহণের জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতা কামনা করা হয়। 
পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিবৃন্দ এবং মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ দপ্তর সংস্থার প্রধানগণসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
#
জাহাঙ্গীর/অনসূয়া/শহিদ/জসীম/শামীম/২০১৭/১৬০৫ ঘণ্টা 
Todays handout (5).docx Todays handout (5).docx

Share with :
Facebook Facebook