তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৮ অক্টোবর ২০১৫

তথ্যবিবরণী ২৮/১০/২০১৫

তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ৩১৪৩

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত

ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :
জাতীয় সংসদের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠক আজ সংসদভবনে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর সভাপতিত্বে কমিটির সদস্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম, তালুকদার আব্দুল খালেক, মমতাজ বেগম, আবদুর রহমান বদি, এস এম জগলুল হায়দার ও বেগম হেপী বড়াল বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
কমিটি উপকূলীয় অঞ্চলে বহুমুখী সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ (সংশোধিত প্রকল্প) সম্পর্কে আলোচনা করে। এছাড়া প্রকিউরমেন্ট অভ্ ইকুইপমেন্ট ফর সার্চ এন্ড রেসকিউ অপারেশন ফর আর্থকোয়েক এন্ড আদার ডিজাস্টার (২য় পর্যায়) প্রকল্প সম্পর্কে আলোচনা করা হয়।
    কমিটি উপকূলীয় অঞ্চলে বহুমুখী সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণে উন্নত ও মানসম্মত নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের সুপারিশ করে। এছাড়া, নির্মিত সাইক্লোন সেন্টার পরিদর্শন ও বাস্তবায়িত কার্যক্রমের সচিত্র প্রতিবেদন দাখিল করার পরামর্শ প্রদান করে।
    দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশি¬ষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। 
#
শিবলী/আফরাজ/মিজান/রফিকুল/জয়নুল/২০১৫/১৯৪০ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর : ৩১৪২

পাট চাষিদের সোনালী স্বপ্নপূরণে জোরদার পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার
                                              -- বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী
ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :

    বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম বলেছেন, সোনালী আঁশ পাটের উৎপাদন ও বহুমুখী ব্যবহার উৎসাহিত এবং জনপ্রিয় করতে পাট চাষিদের সোনালী স্বপ্নপূরণে জোরদার পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার। এজন্যে পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন-২০১০ এর বাস্তবায়ন করা হবে। পণ্যে পাটজাত মোড়কের ব্যবহার নিশ্চিতকরণের পাশাপাশি  জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশবিরোধী প্লাস্টিক পলিথিনের ব্যবহার বন্ধে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। 

    পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন-২০১০ এর সুষ্ঠু বাস্তবায়নের লক্ষ্যে, পাটের বস্তার যথাযথ সরবরাহ নিশ্চিতকরণের জন্য বাংলাদেশ জুট মিলস এসোসিয়েশন (বিজেএমসি) এর সভাকক্ষে আয়োজিত সভায় আজ তিনি এসব কথা বলেন । 

    অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন গণতান্ত্রিক সরকার তার অভীষ্ট লক্ষ্যে দীপ্তপদে অগ্রসরমান। পাটশিল্পে সরকারের সুদক্ষ নেতৃত্বে ও পরিচালনায় নতুন প্রানের সঞ্চার করেছে । পাট শিল্পের এ অগ্রযাত্রাকে ধরে রাখতে শেখ হাসিনার সরকার দেশের অভ্যন্তরে ৬টি পণ্য যথা ধান, গম, চাল, ভুট্টা, চিনি এবং সার মোড়কীকরণের ক্ষেত্রে পাটজাত পণ্যের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছে। কাঁচাপাট ও পাটজাত পণ্যের উৎপাদন, রপ্তানি বৃদ্ধি, দেশের অভ্যন্তরে পাটপণ্যের ব্যবহার বৃদ্ধি, পাটের ন্যায্যমূল্য নির্ধারণ ও পরিবেশ রক্ষায় পণ্যের মোড়কীকরণে পাটের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন প্রণয়ন করা হয়েছে।

    “পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন-২০১০” এর সুষ্ঠু বাস্তায়নের জন্য তিনি সকল পক্ষের সার্বিক সহযোগিতা চান ।

    বাংলাদেশ জুট মিলস এসোসিয়েশন (বিজেএমএ) এর সদস্যরা তাদের বক্তব্যে বলেন, পাটের  সকল ধরনের অবৈধ মজুত বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। শিগগিরই পাটকে কৃষিপণ্য হিসেবে স্বীকৃতি দিতে হবে। 

    সভায় বিজেএমসি চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) হুমায়ূন খালেদ, পাট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. মুয়াজ্জেম হোসাইন এবং বিজেএমএ চেয়ারম্যান সামস্ উজ জোহা উপস্থিত ছিলেন ।    

#

সৈকত/আফরাজ/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৫/১৯২৪ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                            নম্বর : ৩১৪১

জাতীয় সংসদে দুর্যোগ ঝুঁকি মোকাবিলা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত
 
ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির উদ্যোগে জাতীয় সংসদে আজ ইঁরষফ ইধপশ ইবঃঃবৎ রহ ঃযব পড়হঃবীঃ ড়ভ ঃযব ঝবহফবর ঋৎধসবড়িৎশ ভড়ৎ উরংধংঃবৎ জরংশ জবফঁপঃরড়হ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ) এর প্রেসিডেন্ট সাবের হোসেন চৌধুরী এমপি। 

আইপিইউ প্রেসিডেন্ট তাঁর প্রবন্ধে বলেন, বাংলাদেশ দুর্যোগ মোকাবিলায় বিশ্বের রোল মডেল। টেকসই দুর্যোগ মোকাবিলায় সংসদ সদস্যদেরকে সম্পৃক্ত করতে হবে এবং তাদের সহায়তায় জনসচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। 

সেমিনারে ‘বিল্ড ব্যাক বেটার’ পদ্ধতি অনুসরণ করে দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসে টেকসই কর্মসূচি গ্রহণ ও দুর্যোগ পরবর্তী উন্নয়নের ক্ষেত্রে সুযোগ সৃষ্টিতে করণীয় বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এছাড়া, বক্তারা জলবায়ু পরিবর্তন ও দুর্যোগ মোকাবিলা করে টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করার বিষয়ে মতামত ব্যক্ত করেন। সেমিনারে দুর্যোগ মোকাবিলায় জনগণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধিতে সংশ্লিষ্ট সকলকে কাজ করার পাশাপাশি বাজেট বৃদ্ধির সুপারিশ করা হয়। 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর সভাপতিত্বে সেমিনারে জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আশরাফুল মকবুল, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শাহ কামাল, জাতীয় প্রকল্প পরিচালক, দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞসহ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

#

আফরাজ/মিজান/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৫/১৮৫৮ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ৩১৪০

তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত
 
ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :

জাতীয় সংসদের তথ্য মন্ত্রণাালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির এক বৈঠক আজ সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ্ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। কমিটির সদস্য তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এবং সুকুমার রঞ্জন ঘোষ বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

১০ম ও ১১তম বৈঠকের গৃহীত সিদ্ধান্তসমূহের বাস্তবায়ন অগ্রগতি প্রতিবেদন সভায় উপস্থাপন করা হয় এবং এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়।
 
বৈঠকে বাংলাদেশ টেলিভিশনের ২৫৪ জন অস্থায়ী কর্মচারীর সম্মানী ভাতা বাস্তবতার নিরিখে যৌক্তিকভাবে বৃদ্ধি করার সুপারিশ করা হয়। 

বৈঠকে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল ও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন নিয়ে আলোচনা হয় এবং চলচ্চিত্রকে একটি শক্তিশালী ভিত্তির উপর দাঁড় করাতে মানসম্মত চলচ্চিত্র নির্মাণে সরকারি প্রণোদনা দানের পাশাপাশি মানসম্মত প্রেক্ষাগৃহ নির্মাণে সহযোগিতা দানের জন্য তথ্য মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। 

তথ্যসচিব মরতুজা আহমদ, তথ্য অধিদফতরের প্রধান তথ্য অফিসার তছির আহাম্মদ, জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক এ কে এম শামীম চৌধুরী, বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভের মহাপরিচালক ড. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ লিয়াকত আলী খানসহ মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তর এবং সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

#

হুদা/আফরাজ/মোশাররফ/রফিকুল/রেজাউল/২০১৫/১৮৪৬ ঘণ্টা

 
তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর : ৩১৩৮

বিদায়ি সচিবকে সংবর্ধনা দিল ভূমি মন্ত্রণালয়
 
ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :

ভূমি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম নতুন মন্ত্রিপরিষদ সচিব নিযুক্ত হওয়ায় ভূমি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীরা আজ ঢাকায় বাংলাদেশ সচিবালয়ে ভূমি মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে তাঁকে সংবর্ধনা প্রদান করে। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী। 

কক্সবাজার জেলার উখিয়ায় জন্মগ্রহণকারী ১৯৮২ নিয়মিত ব্যাচের বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা মোহাম্মদ শফিউল আলমের কর্মময় জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন অনুষ্ঠানে উপস্থিত তাঁর সহকর্মীরা। 

ভূমি সচিবের কর্মময় জীবনের প্রশংসা করে ভূমি প্রতিমন্ত্রী বলেন, সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম তাঁর দাপ্তরিক কাজে দক্ষতা, বিচক্ষণতা ও মেধার স্বাক্ষর রেখেছেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের রূপকল্প বাস্তবায়নে অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে পালিত তাঁর দাপ্তরিক কাজ ভূমি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের জন্য অনুকরণীয় হয়ে থাকবে।

ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আকরাম হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ভূমি আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. আবদুর রব হাওলাদার, ভূমি সংস্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান এবং ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবদুল জলিল স্মৃতিচারণ করেন।

#

রেজুয়ান/আফরাজ/মিজান/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৫/১৮১৮ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ৩১৩৯
ভূমি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত

ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :
জাতীয় সংসদের ভূমি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠক আজ সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সভাপতি মো. রেজাউল করিম হীরা বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।
কমিটির সদস্য ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, মো. মকবুল হোসেন, সামছুল আলম দুদু, এ কে এম মাঈদুল ইসলাম, জাহান আরা বেগম সুরমা এবং গাজী ম ম আমজাদ হোসেন মিলন বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। 
বৈঠকে যে সমস্ত জমি এখনও আর এস রেকর্ড শেষ হয়নি সেগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে  রেকর্ডের ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে আলোচনা হয়। এছাড়া ঢাকা মহানগরের ২৯০০ একর খাসজমি যা ঢাকা মহানগর জরিপে ব্যক্তি মালিকানায় রেকর্ড করা হয়েছে, সেগুলো সরকারের ১নং খাস খতিয়ানে আনার ইতিপূর্বে গৃহীত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের বর্তমান অবস্থা বিষয়ে আলোচনা হয়।    
বৈঠকে ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরকে ঢাকার বেদখল জমির মৌজাভিত্তিক মালিকানা উপস্থাপন করার সুপারিশ করা হয়। এছাড়া সিরাজগঞ্জের জয়সাগর পুকুরসহ ৭০৮টি বেদখল হওয়া পুকুর উদ্ধারের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। 
    ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, ভূমি আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান ও ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশি¬ষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। 
#
ইনামুল/আফরাজ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৫/১৮২০ঘণ্টা  
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ৩১৩৭
জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের মাস্টারপ্লান প্রণয়নে চুক্তিস্বাক্ষর

ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :
    আজ গাজীপুরে জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের কনফারেন্স রুমে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় ডেভেলপমেন্ট ডিজাইন কনসালটেন্টস্ (ডিডিসিএল) ও মার্ক আর্কিটেক্টস্ এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং লি.-এর সাথে জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের ৫০ বছর অগ্রবর্তী মাস্টারপ্লান প্রণয়নের চুক্তিস্বাক্ষর হয়।
    এ মাস্টারপ্লানে সিনেট হল, সুপরিসর আইটি ভবন, ডরমেটরি ভবন, শিক্ষক প্রশিক্ষণ ট্রেনিং রুম, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের থাকার ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা থাকবে। এর ফলে জাতীয় বিশ^বিদ্যালয় একটি মানসম্পন্ন বিশ^বিদ্যালয় হিসেবে গড়ে উঠবে। 
    জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের প্রোভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. আসলাম ভূইয়া ও প্রফেসর ড. মুনাজ আহমেদ নূর, ট্রেজারার মো. নামান রশীদ, রেজিস্ট্রার মোল্লা মাহফুজ আল-হোসেন, পরিচালক মো. আবু হানিফ, ডিডিসিএল’র পরিচালক এ কে এম নাসির উদ্দিন এবং মার্ক আর্কিটেক্টস্ এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর ইঞ্জি: আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ অন্যান্যরা চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।  
#

ফয়জুল/আফরাজ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৫/১৮২০ঘণ্টা  

তথ্যবিবরণী                                                                                            নম্বর : ৩১৩৬

ছিন্নমূল মানুষের বাসস্থানের ব্যবস্থা করেই 
ঢাকাকে বাসযোগ্য করতে হবে
                -- গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী

ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :

    ছিন্নমূল মানুষের বাসস্থানের ব্যবস্থা করেই ঢাকাকে বাসযোগ্য করতে হবে। এ জনগোষ্ঠী প্রকৃতপক্ষে নাগরিক জীবনের জন্য অপরিহার্য। সরকারের গৃহায়ন নীতিমালায় ছিন্নমূল মানুষের বাসস্থানের পরিকল্পনাও রাখা হয়েছে।
    আজ ঢাকায় ব্র্যাক সেন্টারে অনুষ্ঠিত আরবান ফোরাম আয়োজিত ‘নগর দরিদ্রদের জন্য আবাসন: সমস্যা, সম্ভাবনা এবং নীতি করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।
    গণপূর্ত মন্ত্রী বলেন, সরকার ছিন্নমূল মানুষের উন্নত বাসস্থান নিশ্চিত করতে শহর সংলগ্ন এলাকায় জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বহুতল ভবন নির্মাণ করছে। মিরপুরে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ বস্তিবাসীদের পুনর্বাসনের জন্য ২ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করছে। ৪৫০ বর্গফুটের এ ফ্ল্যাট বস্তিবাসীদের মধ্যে বরাদ্দ দেয়া হবে। প্রতিদিন ২৭৫ টাকা হারে ভাড়া দিয়ে বরাদ্দপ্রাপ্ত বস্তিবাসী ২০ বছরের মধ্যে এ ফ্ল্যাটের মালিক হবে। এ এলাকায় মধ্যবিত্ত ও নি¤œ মধ্যবিত্তের জন্য আরো প্রায় ৪০ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। বস্তিবাসীদের পুনর্বাসন কর্মসূচিকে আরো সম্প্রসারণ করার পরিকল্পনা রয়েছে।
    তিনি বলেন, বস্তিতে বসবাসকারীরা ধনীদের জীবনযাত্রার সাথে নিবিড়ভাবে সম্পর্কিত। পরিচ্ছন্ন আবাসিক এলাকায় বিত্তশালীরা বসবাস করলে তাদের সহযোগিতা প্রদানকারীরা কোথায় থাকবে, এ বিষয়ে চিন্তাভাবনার অবকাশ রয়েছে। দেশের বিপুলসংখ্যক ছিন্নমূল ও বস্তিবাসীর জন্য মানসম্মত জীবনের নিশ্চয়তা বিধান করা সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয়। ছিন্নমূল মানুষের সেবা গ্রহণকারী বিত্তশালীদেরও এ বিষয়ে উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।
    গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আব্দুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, ইউএনডিপি’র কান্ট্রি ডিরেক্টর পউলিন টামেসিস, আরবান ফোরামের উপদেষ্টা সাবেক সচিব আবু আলম মো. সহিদ খান বক্তৃতা করেন। 
    অনুষ্ঠানে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আবাসন বিষয়ে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বুয়েটের স্থাপত্য বিভাগের অধ্যাপক শহিদুল আমীন।

#

কিবরিয়া/আফরাজ/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৫/১৭৫০ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ৩১৩৫

প্রাথমিক ও মাধ্যমিক এর বই 
ছাপার অগ্রগতি পরিদর্শনে ছাপাখানায় শিক্ষামন্ত্রী

ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :
    শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের বিনামূল্যের বই ছাপার অগ্রগতি দেখার জন্য আজ রাজধানীর মাতুয়াইলে ২টি ছাপাখানা আকসি¥কভাবে পরিদর্শন করেন।

    মন্ত্রী আনন্দ প্রিন্টার্স ও ব্রাইট প্রিন্টার্স-এ আকসি¥ক পরিদর্শনকালে ছাপাকৃত বইয়ের মান সরেজমিনে প্রত্যক্ষ করেন।

    পরিদর্শনকালে জানানো হয়, সম্পূর্ণ স¦য়ংক্রিয় প্রিন্টারে বই ছাপার কাজ করা হচ্ছে এবং নির্দিষ্ট কাগজের মান প্রিন্টারে সেট করা আছে। নির্ধারিত মানের বাইরের কাগজ হলে বই প্রিন্টিংয়ের কাজ স¦য়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যাবে। এভাবে স¦য়ংক্রিয় মেশিনে বিনামূল্যের বইয়ের কাগজের মান সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

    জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) চেয়ারম্যান নারায়ণ চন্দ্র পাল এসময় উপস্থিত ছিলেন।

    বিনামূল্যের বই ছাপার কাজ সার্বক্ষণিকভাবে তদারকিতে ৩২টি টিম কাজ করে যাচ্ছে বলে এনসিটিবি জানিয়েছে।

#

সাইফুল্লাহ/আফরাজ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৫/১৭৪৫ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ৩১৩৪

বাজার তদারকি
১৮ প্রতিষ্ঠানকে ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা

ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :
    জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয় চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ফরিদপুর, সিলেট, নরসিংদী ও ফেনীতে আজ বাজার তদারকি করে। তদারকিকালে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন লঙ্ঘনের দায়ে ১৮টি প্রতিষ্ঠানকে ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
পণ্যের মোড়কে এমআরপি লেখা না থাকা, অস্বাস্থ্যকর উপায়ে খাদ্যপণ্য তৈরি, ওজনে কারচুপি ও মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য বিক্রয়ের অপরাধে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সদর উপজেলায় ৫টি প্রতিষ্ঠানকে ২১ হাজার ৫শ টাকা, ফরিদপুরের সদরে খন্দকার হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্টকে ১০ হাজার টাকা এবং অভিযোগকারীকে শতকরা ২৫ ভাগ হিসেবে ২ হাজার ৫শ’ টাকা প্রদান, সিলেটের কোতোয়ালী থানার বিভিন্ন এলাকায় ৬টি প্রতিষ্ঠানকে ১৭ হাজার টাকা, নরসিংদীর শিবপুর উপজেলায় ৩টি প্রতিষ্ঠানকে ৬ হাজার টাকা এবং ফেনী সদর উপজেলায় ৩টি প্রতিষ্ঠানকে ১১ হাজার ৫শ’ টাকা জরিমানা করা হয়।
সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসন, মহানগর ও জেলা পুলিশ, ক্যাব ও স্যানিটারি ইন্সপেক্টর এসব তদারকি কার্যে সহায়তা করে। তদারকিকালে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে লিফলেট ও প্যাম্পলেট বিতরণ করা হয়।

#

আফরাজ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৫/১৭২০ঘণ্টা

 
তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর : ৩১৩৩

রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত

ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :

    জাতীয় সংসদের রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির এক বৈঠক আজ কমিটির সভাপতি এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদভবনে অনুষ্ঠিত হয়।

    কমিটির সদস্য রেলপথমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক, মো. মোসলেম উদ্দীন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মো. আলী আজগর, মো. সিরাজুল ইসলাম মোল্লা, মোহাম্মদ নোমান এবং ফাতেমা জোহরা রানী বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
    
    বৈঠকে বিসিকসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান হতে ক্রয়কৃত যন্ত্রাংশের ঙঞগ ও খঞগ এর মূল্যের তুলনামূলক প্রতিবেদনের ওপর এবং চট্টগ্রাম থেকে চুয়েট পর্যন্ত রেলপ্রকল্প বাস্তবায়নের সর্বশেষ অগ্রগতি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা হয়। কমিটি নিজস্ব অর্থায়নে ঢাকায় একটি সুবিধাজনক জায়গায় এবং চট্টগ্রামে সিটি কলেজ সংলগ্ন রেলওয়ের জায়গায় বহুতল আইকন বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণের সুপারিশ করে।

    বৈঠকে কমিটি খুলনা, দর্শনা রেলস্টেশন এবং খুলনা থেকে মংলাবন্দর পর্যন্ত প্রস্তাবিত রেলওয়ে ট্র্যাক পরিদর্শনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

    বৈঠকে জানানো হয়, উন্নত দেশের ন্যায় বাংলাদেশ রেলওয়েতে ক্লিনিক ব্যবস্থা উন্নত করার বিষয়ে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। একইসাথে ট্রেনে টয়লেট ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট উন্নত করার বিষয়ে বাংলাদেশ রেলওয়েতে ইতোমধ্যে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি বিভিন্ন দেশের বিরাজমান আধুনিক পদ্ধতির আদলে বাংলাদেশের ট্রেনসমূহে উপযুক্ত পদ্ধতি সংযোজনের সুপারিশ করবে। 

    রেলপথ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব, বংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালকসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

#

আফরাজ/জসীম/রফিকুল/রেজাউল/২০১৫/১৭০৮ ঘণ্টা

 
তথ্যবিবরণী                                                                                               নম্বর : ৩১৩২  

এবছর ৫ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধার আবাসন নির্মাণ করা হবে 
                                    - মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

ঠাকুরগাঁও, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :

    মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ প্রকল্পের আওতায়  ১ কোটি ৭২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে  ঠাকুরগাঁও জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স এবং উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণপ্রকল্পের আওতায় ১ কোটি ৭২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, ১ কোটি ৭২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রাণীসংকৈল মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স এবং ১ কোটি ৮৯ লক্ষ টাকা ব্যয়ে পীরগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স  নির্মাণ করা হয়েছে। 
    মন্ত্রী আজ ঠাকুরগাঁও জেলার নবনির্মিত জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধনশেষে মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময় করেন। 
    তিনি বলেন এবছর ৫ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধার আবাসন নির্মাণ করা হবে।     এজন্য প্রতিটি জেলা-উপজেলায় সরকারি কোয়ার্টারের আদলে মুক্তিযোদ্ধা আবাসনপল্লি তৈরি করা হবে। এছাড়া মুক্তিযোদ্ধাদের কবরসমূহ একই ডিজাইনে পাকা করা হবে যাতে শতবছর পরেও বোঝা যায় এটা বীর মুক্তিযোদ্ধার কবর।
     তিনি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের গৌরবময় ভূমিকার পাশাপাশি যুদ্ধাপরাধীদের ঘৃণ্য তৎপরতা পাঠ্যপুস্তকে অর্šÍভুক্ত করা হবে। বর্তমান পাঠ্যপুস্তকে মুক্তিযোদ্ধাদের ভূমিকা লিপিবদ্ধ রয়েছে। কিন্তু এতে নতুন প্রজন্ম জানতে পারছে না কী ঘৃণ্য তৎপরতা যুদ্ধাপরাধীদের ছিল, কত বর্বরতা তারা চালিয়েছিল। তাই নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানাতে এ উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।
    মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিসংগ্রামের ইতিহাসের ওপর বিসিএস পরীক্ষায় একশত নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। তিনি আরও বলেন, যখনই তালিকাভুক্ত হোক, তালিকাভুক্ত বীরাঙ্গনা মুক্তিযোদ্ধাগণ এ বছরের জুলাই থেকেই মুক্তিযোদ্ধা সম্মানীভাতা পাবেন। 
    পরে মন্ত্রী ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী, রাণীসংকৈল এবং পীরগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন করেন। 
    ঠাকুরগাঁও জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জীতেন্দ্র নাথ রায়ের সভাপতিত্বে¡ সভায় ঠাকুরগাঁও -১ আসনের সংসদ সদস্য ও পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ীকমিটির সভাপতি খন্দকার রমেশ চন্দ্র সেন, ঠাকুরগাঁও -২ আসনের সংসদ সদস্য ও গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ীকমিটির সভাপতি মো. দবিরুল ইসলাম, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক মূকেশ চন্দ্র বিশ্বাস,  সকল জেলায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মাহমুদ হাসান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মমিন মুজিবুল হক সমাজিসহ স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন।

#

মারুফ/শাহআলম/শুকলা/লাভলী/২০১৫/১৬২০ ঘণ্টা                    
 
তথ্যবিবরণী                                                                                               নম্বর : ৩১৩১

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রীর সাথে অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ

ঢাকা, ১৩ কার্তিক (২৮ অক্টোবর) :
    প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি’র সাথে আজ তার কার্যালয়ে অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনার এৎবম ডরষপড়পশ সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে জনশক্তি রপ্তানি এবং মন্ত্রীর নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ায় আসন্ন সফরের বিষয় নিয়ে হাইকমিশনারের সাথে সার্বিক আলোচনা হয়।   
    মন্ত্রী দুইদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা স্মরণ করে বলেন, উন্নত দেশগুলোর মধ্যে অস্ট্রেলিয়াই সর্বপ্রথম বাংলাদেশকে স্বাধীনদেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। তিনি মুক্তিযুদ্ধে একমাত্র খেতাবপ্রাপ্ত অস্ট্রেলিয়ান মুক্তিযোদ্ধা ড অ ঝ ঙঁফবৎষধহফ বীরপ্রতীক এর অবদানের কথাও স্মরণ করেন। 
    মন্ত্রী বাংলাদেশ থেকে দক্ষ জনশক্তি তৈরিতে অস্ট্রেলিয়ার কারিগরি সহযোগিতার জন্য প্রশংসা করেন। এ সময় বাংলাদেশের ওয়েল্ডিং ও ইলেকট্রিক ট্রেডে দক্ষশ্রমিক নেয়ার জন্য তিনি অনুরোধ করেন। এছাড়াও কৃষি, পশুপালন ও আবাসনে শ্রমিক নেওয়ার জন্য হাইকমিশনারের মাধ্যমে সে দেশের সরকারকে অনুরোধ জানান। 
    অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনার বলেন, দক্ষ জনশক্তি নেয়ার বিষয়ে তিনি সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করবেন এবং এ বিষয়ে তার সরকারের সাথে আলোচনা করবেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন দক্ষ জনশক্তি প্রেরণে অন্যান্য দেশের তুলনায় এগিয়ে আছে যা প্রশংসার দাবিদার। নভেম্বর মাসের শেষসপ্তাহে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি’র অস্ট্রেলিয়া সফরপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, সে সময় অস্ট্রেলিয়ার মন্ত্রী ও পার্লামেন্ট অধিবেশন চলাকালীন পার্লামেন্টের সদস্যদের সাথে মতবিনিময় করার সুযোগ হবে। 
মন্ত্রীর সফরকালে বাংলাদেশে দক্ষ জনশক্তি তৈরিতে প্রশিক্ষণসমূহের ব্যাপারে ঞঅঋঊ ও অন্যান্য কারিগরি সংস্থার সাথে  আলোচনার আয়োজন করবেন বলে অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনার জানান। 
    এ সময় প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান সচিব ড. খন্দকার ইফতেখার হায়দার, যুগ্মসচিব মোহাম্মদ আজাহারুল হক, মন্ত্রীর একান্ত সচিব মু. মোহসিন চৌধুরী এবং অস্ট্রেলিয়ান ট্রেড কমিশনের বিজনেস ডেভলপমেন্ট ম্যানেজার মোস্তাফিজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। 

#

জাহাঙ্গীর/শাহআলম/শুকলা/লাভলী/২০১৫/১৫১০ ঘণ্টা

Handout                                                                                                                         Number : 3130

International community certainly help the people of Bangladesh

                                                                                           - H T Imam

London, 28 October :

            Bangladesh is poised to pace up its process of growth and social development despite hindrances, A high-powered Bangladesh delegation told a seminar in London on Tuesday.

            "The international community can certainly help the people of Bangladesh by supporting continuation of the situation of stability and certainty," H T Imam, the Prime Minister's Political Adviser told seminar "Bangladesh: elections, democracy and Rule of law."

            It was chaired by Lord Eric Avebury, Vice Chair of the Parliamentary Human Rights Group, and moderated by Anne Main MP, Chair of the All Party Parliamentary Group on Bangladesh.

            It was participated by Mashiur Rahman, Prime Minister's Economic Adviser, Tarana Halim, State Minister for Post and Telecommunications, Biren Sikder, State Minister for Youth and Sports, Abdul Matin Khasru, MP and former Law Minister and Abdul Hannan, Bangladesh High Commissioner in London.

            Lord Avery regretted BNP's decision to stay away at the last moment, saying the seminar was neutral platform for all sides to make their point

            Representatives from the parliamentary opposition Jatiya Party, Amnesty international and other groups also participated.

            Imam pointed out that BNP have made five blunders since it lost to the Awami league in the December 2008 general elections, and one of them  is its bondage with the Jamaat-e-Islami, which has little acceptance among the people for its anti-liberation stance and atrocities in 1971.

            Amnesty International's Abbas Faiz questioned the fair process of the International Crimes Tribunal (ICT), to which Imam, Khasru, Tarana halim and the High Commissioner retorted with tough words.

            Imam said no other such court in the world has the provision for review in the Supreme Court. "This is a seminar of other issues than ICT," he said.

            Khasru said there was no procedural defect in the ICT and is manned by senior High Court judges with experience and there is no scope to raise any question about it.   All convicted were given all opportunities for defence just like in any other court.

            Tarana Halim said the ruling Awami league has also arrested its own members for war crimes and there is no politics in the trial of war criminals. "Should we measure a common criminal with war criminals," she asked.

            High Commissioner Abdul Hannan told the seminar that he was posted in Geneva and no international body had ever raised any issues about the ICT. The Amnesty claims were baseless.

#

Nadeem/ShaAlam/ Shukla/Rezzakul/Lovely/2015/1325 hours.

Todays handout (10).doc Todays handout (10).doc

Share with :

Facebook Facebook