তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৪ জুন ২০১৭

তথ্যবিবরণী : ৪ জুন ২০১৭

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৫৪৯

দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিতে চাই
                    --  শিক্ষামন্ত্রী

ঢাকা, ২১  জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, আমরা সারা দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। পশ্চাৎপদ অঞ্চলের জন্য আমরা বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। বর্তমান প্রজন্মকে জ্ঞান প্রযুক্তি ও দক্ষতায় সমৃদ্ধ হয়ে প্রতিযোগিতার জন্য ভালভাবে নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে।
শিক্ষামন্ত্রী আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ অডিটোরিয়ামে জালালাবাদ ছাত্র কল্যাণ সমিতি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে ক্ষমতা গ্রহণের সময় সিলেট বিভাগে শিক্ষার্থীর সংখ্যা জাতীয় অনুপাতের চেয়ে অনেক কম ছিল। বর্তমানে তা জাতীয় এভারেজের সমান। সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগে তা সম্ভব হয়েছে। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের ছাত্রছাত্রীদের ভালভাবে পড়াশোনা করে ভবিষ্যতে দেশের নেতৃত্ব প্রদানের যোগ্য হিসেবে নিজেদের গড়ে তোলার জন্য আহ্বান জানান।
জালালাবাদ ছাত্র কল্যাণ সমিতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি মো. ইউসুফ উদ্দিন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় সংসদের হুইপ মো. শাহাবুদ্দিন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এনামুল কবীর ইমন, জালালাবাদ এসোসিয়েশন ঢাকার সভাপতি সি এম তোফায়েল সামী, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ জগলুল পাশা, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন এবং জালালাবাদ ছাত্র কল্যাণ সমিতি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদক এম এ হাসান।
#
আফরাজ/সেলিম/আলী/মোশারফ/জয়নুল/২০১৭/২০৪০ঘণ্টা  
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৫৪৮

এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকা প্রণয়ন করা হবে

ঢাকা, ২১  জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষায় পূর্ববর্তী বছরের এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের সর্বমোট নম্বর থেকে পাঁচ নম্বর কর্তন এবং পূর্ববর্তী বছরে সরকারি কলেজে ভর্তিকৃত ছাত্র-ছাত্রীদের ক্ষেত্রে ৭ দশমিক ৫ নম্বর কর্তন করে মেধা তালিকা প্রণয়ন করা হবে।
বেসরকারি মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য বিদেশি ছাত্র-ছাত্রীদের কোটা পূর্বের ন্যায় শতকরা ৫০ ভাগ বহাল থাকবে।
আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে বিডিএস-এর কোর্স পাঁচ বছর মেয়াদী হবে।
আজ সচিবালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আসন্ন ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্সে ভর্তি সংক্রান্ত সভায় এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় অন্যান্যের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব মোঃ সিরাজুল ইসলাম, বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, বিসিপিএস সভাপতি অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া, বিএমডিসি সভাপতি অধ্যাপক ডা. শহীদুল্লাহ, বিএমএ মহাসচিব ডা. ইহতেশামুল হক দুলাল, কলামিস্ট ও গবেষক সৈয়দ আবুল মাকসুদ, প্রথম আলো’র যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুমসহ মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  
সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার ইতিহাসে গত শিক্ষাবর্ষের মেডিকেল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে। তিনি বলেন, মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষাকে বিতর্কিত করার জন্য অতীতে গুজব ছড়ানো হতো। কিন্তু গত বছর জোরালো নজরদারি ও সর্বোচ্চ নিখুঁত প্রক্রিয়া অনুসরণ করায় কোনো বিতর্ক সৃষ্টির সুযোগ কেউ পায়নি। আগামীতেও এই মানকে অক্ষুণœ রাখতে এখন থেকেই প্রস্তুতির কাজ শুরু করা হয়েছে।
সভায় জানানো হয়, মানিকগঞ্জ সরকারি মেডিকেল কলেজকে কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজ, মানিকগঞ্জ হিসেবে নতুন নামকরণের প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদন দিয়েছেন। 
#
পরীক্ষিৎ/সেলিম/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৭/১৮৪০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৫৪৭

মঙ্গা, অনুন্নত ও কর্মহীন কুড়িগ্রাম আজ সমৃদ্ধ, কর্মচাঞ্চল্য ও উন্নয়নের জনপদ
                                                             --- প্রতিমন্ত্রী রাঙ্গাঁ

ঢাকা, ২১  জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মোঃ মসিউর রহমান রাঙ্গাঁ বলেছেন, বর্তমান সরকার দীর্ঘদিনের মঙ্গা, অনুন্নত ও কর্মহীন খ্যাত কুড়িগ্রামকে বিভিন্ন কর্ম-পরিকল্পনার মাধ্যমে সমৃদ্ধ, কর্মচাঞ্চল্য ও উন্নয়নের জনপদে রূপান্তর করেছে। এ অর্জনকে ধরে রাখতে সরকারের পাশাপাশি আঞ্চলিক পর্যায়ের সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোকে সহায়ক ভূমিকা রাখতে হবে। 
প্রতিমন্ত্রী আজ ঢাকায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ঢাকাস্থ উত্তর ধরলা ছাত্র পরিষদ, কুড়িগ্রাম কর্তৃক আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে এসব কথা বলেন।
সংগঠনের সভাপতি আবদুল ওহাব রেজার সভাপতিত্বে এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন এ্যাডভোকেট মোঃ আব্দুস সবুর খান, প্রকৌশলী মোঃ সলিমুল্লাহ, মোঃ আব্দুল আলীম ও আতিক হাসান রাজা। 
প্রতিমন্ত্রী বলেন নতুন প্রজন্মকে লেখাপড়ার পাশাপাশি ক্রীড়া, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও বিজ্ঞান চর্চায় মনোনিবেশ করতে হবে। স্ব স্ব এলাকায় সত্য, সুন্দর, শান্তি ও সমৃদ্ধি প্রতিষ্ঠায় ছাত্র সংগঠনগুলোকে লোভ-লালসার উর্ধ্বে ওঠে ত্যাগের মনোভাব নিয়ে কাজ করতে হবে। এতে করে দেশ ও জাতি বেশি বেশি আলোকিত সাদামনের মানুষ উপহার পেতে পারে। তিনি ঢাকাস্থ উত্তর ধরলা ছাত্র পরিষদ, কুড়িগ্রামকে শিক্ষাবান্ধব, জনকল্যাণমুখী, মননশীল ও সৃষ্টি ধর্মী ছাত্র সংগঠন হিসেবে উল্লেখ করে এর কর্মযজ্ঞকে কুড়িগ্রামের সাধারণ ছাত্রসমাজের মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান জানান। 
#
আহসান/সেলিম/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৭/১৮৩৫ঘণ্টা 
 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ১৫৪৬
বিটিভিতে মাগরিবের আযান প্রচার সম্পর্কিত ব্যাখ্যা
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) : 
    বিটিভিতে মাগরিবের আযান প্রচার সম্পর্কিত গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের বিষয়ে বিটিভি’র 
উপ-মহাপরিচালক (অনুষ্ঠান) স্বাক্ষরিত নি¤েœাক্ত ব্যাখা প্রদান করা হয়েছে:
    “গত ৩ জুন বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি)তে মাগরিবের আযান প্রচার সম্পর্কিত গণমাধ্যমে প্রকাশিত একটি সংবাদের প্রতি বিটিভি কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। প্রকাশিত সংবাদটি অসত্য ও বিভ্রান্তিকর।
    প্রকৃতপক্ষে বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্র থেকে যথাযথ ঘোষণা দিয়ে চট্টগ্রাম ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকার ইফতারের সময়সূচি অনুযায়ী ৩ জুন সন্ধ্যা ৬টা ৩৭ মিনিটে মাগরিবের আযান সম্প্রচার করা হয়। মাগরিবের আযান সম্প্রচারের সময় পরিস্কারভাবে উল্লেখ থাকে যে, আযানটি শুধুমাত্র চট্টগ্রাম অঞ্চলের জন্য প্রযোজ্য।
    উল্লেখ্য, বিটিভি ন্যাশনাল ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে যথারীতি ঢাকা ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকার সময় অনুযায়ী মাগরিবসহ সব নামাজের আযান প্রচারিত হয়।
    আরো উল্লেখ্য বিটিভি, চট্টগ্রাম কেন্দ্র গত ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ থেকে স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ৬ ঘণ্টা সম্প্রচার শুরু করেছে।”
#

সুরথ/সেলিম/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৭/১৮০৮ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৫৪৫

‘মোরা’য় প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হবে 
                     -- দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী 

টেকনাফ (কক্সবাজার), ২১  জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, ঘূর্ণিঝড় মোরায় প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্ত সকলের ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হবে। ইতোমধ্যে এ এলাকায় ৩শ’ বান ঢেউটিন ও ঘর নির্মাণের জন্য অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনকে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করে মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তালিকা অনুযায়ী সকলের ঘর তৈরি করে দেওয়া হবে।
মন্ত্রী আজ কক্সবাজারের রামু উপজেলার ঝাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদে এবং গর্জনিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণকালে এ কথা বলেন। স্থানীয় সংসদ সদস্য সায়মুম সরোয়ার কমল, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচিব মোঃ শাহ্ কামালসহ, স্থানীয় নেতৃবৃন্দ এবং মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
মন্ত্রী বলেন, সরকারের ত্রাণভান্ডারে ত্রাণের অভাব নেই। প্রত্যেককেই খাদ্য সহায়তা দেয়া হবে। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক খামারীদের ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য প্রয়োজনীয় সহায়তা করা হবে। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত সুষ্ঠুভাবে ত্রাণ বিতরণ হচ্ছে। এরপরও ত্রাণ নিয়ে কোন অনিয়ম হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। মন্ত্রী এসময় সাধারণ মানুষের কাছে তাদের ক্ষয়ক্ষতির খোঁজখবর নেন এবং তাদের সকলকে সহায়তার আশ্বাস দেন। মন্ত্রী পরে  টেকনাফের প্রত্যন্ত এলাকা শাহপরীর দ্বীপের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদিসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন। মন্ত্রী এসময় শাহপরীর দ্বীপকে ঘিরে বেরীবাঁধ নির্মাণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। পরে মন্ত্রী টেকনাফের বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ বিতরণ করেন। আগামীকাল তাঁর কুতুবদিয়া ও মহেশখালীসহ বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতণের কথা রয়েছে।
#
ওমর ফারুক/সেলিম/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৭/১৮১০ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৫৪৪

টঘঊঝঈঙ এর ‘৬ঃয টঢ়পড়সরহম ঙৎফরহধৎু ঝবংংরড়হ ড়ভ ঃযব 
ঈড়হভবৎবহপব ড়ভ ঃযব চধৎঃরবং’ এ বাংলাদেশ সভাপতি নির্বাচিত

ঢাকা, ২১  জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
টঘঊঝঈঙ সদর দপ্তর প্যারিসে আগামী ১২-১৫ জুন ২০১৭ সময়ে অনুষ্ঠেয় ‘৬ঃয টঢ়পড়সরহম ঝবংংরড়হ ড়ভ ঃযব ঈড়হভবৎবহপব ড়ভ চধৎঃরবং  ঃড় ঃযব ঈড়হাবহঃরড়হ ড়হ ঃযব চৎড়ঃবপঃরড়হ ধহফ চৎড়সড়ঃরড়হ ড়ভ ঃযব উরাবৎংরঃু ড়ভ ঈঁষঃঁৎধষ ঊীঢ়ৎবংংরড়হং’ এ সভাপতি হিসেবে সর্বসম্মতিক্রমে বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়েছে। টঘঊঝঈঙ সদর দপ্তর প্যারিস হতে গতকাল এক বার্তায় এ বিষয়টি সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়েছে। 
এই প্রথম ইউনেস্কোর কোন ঈড়হভবৎবহপব ড়ভ চধৎঃরবং এ বাংলাদেশ সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হলো। এশিয়া  প্যাসিফিক অঞ্চলের ৪৪টি দেশের প্রতিনিধিগণ সর্বসম্মতিক্রমে বাংলাদেশকে এ পদের জন্য নির্বাচিত করেছে। এটি আমাদের জন্য এক বড় অর্জন যা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের ভাবমূর্তিকে আরও উজ্জ্বল করবে।
অনুষ্ঠেয় সভায় সভাপতিত্ব করার জন্য টঘঊঝঈঙ এর পক্ষ থেকে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। মূল কনফারেন্সটি ১২-১৫ জুন প্যারিসে অনুষ্ঠিত হবে। তবে এ বিষয়ে প্রস্তুতিমূলক সভা ও আনুষঙ্গিক কার্যক্রম ৮ জুন থেকেই শুরু হবে। 
মূল কনফারেন্সে সভাপতিত্ব এবং প্রস্তুতিমূলক সভা ও আনুষঙ্গিক কার্যক্রমে অংশ নিতে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী ৮-১৬ জুন ২০১৭ সময়ে প্যারিস সফর করবেন।
উল্লেখ্য, বিভিন্ন দেশের সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্য রক্ষা ও এর উন্নয়নে  টঘঊঝঈঙ  পরিচালিত ১৪৫টি গ্রুপ ও কমিটি (চধৎঃরবং) পৃথিবীব্যাপী কাজ করে। তাঁরা প্রতি দু’বছর পরপর জুনে সাধারণ অধিবেশনে (ঙৎফরহধৎু ঝবংংরড়হ) মিলিত হন। 
#
কুতুবুদদ্বীন/সেলিম/মোশারফ/জয়নুল/২০১৭/১৭৫০ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ১৫৪৩
৫ টাকা মূল্যমানের নতুন কারেন্সি নোট ইস্যু
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন):
    ৫ টাকার কারেন্সি নোটে সিনিয়র অর্থ সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুুনের স্বাক্ষর সংযোজন করে নতুন নোট মুদ্রণ করা হয়েছে যা আগামী ৬ জুন বাংলাদেশ ব্যাংকের মতিঝিল অফিস থেকে ইস্যু করা হবে। পরবর্তীতে বাংলাদেশ ব্যাংকের অন্যান্য অফিসেও নোটটি পাওয়া যাবে।
    উল্লিখিত ৫ টাকার কারেন্সি নোটটির সামনের অংশে বাংলাদেশের জাতীয় স্মৃতিসৌধ ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি এবং পিছনের অংশে নওগাঁর কুসুম্বা মসজিদের ছবি রয়েছে। নুতনভাবে মুদ্রিত এ নোটের উভয় পিঠের উপরের অংশে ‘গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার’ লেখা এবং পিছনের অংশে ডান দিকে বাংলাদেশের জাতীয় প্রতীক (ঘধঃরড়হধষ ঊসনষবস ড়ভ ইধহমষধফবংয) রয়েছে। কারেন্সি নোট হওয়ায় এ নোটের সম্মুখ পৃষ্ঠের মাঝখানে ‘চাহিবামাত্র ইহার বাহককে পাঁচ টাকা দিতে বাধ্য থাকিবে’ লেখাটি থাকবে না।
    উল্লেখ্য, নতুন কারেন্সি নোটের রং, পরিমাপ, জলছাপ, ডিজাইন ও অন্যান্য নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য বর্তমানে প্রচলিত নোটের অনুরূপ। নুতন মুদ্রিত কারেন্সি নোটের পাশাপাশি বর্তমানে প্রচলিত থাকা ৫ টাকা মূল্যমানের কাগুজে নোট এবং ধাতব মুদ্রাও যুগপৎ চালু থাকবে।
#

মফিজ/সেলিম/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৭/১৭৩৫ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর : ১৫৪২
শিশুর সার্বিক বিকাশে বাবা মাকে সচেতন করতে প্রশিক্ষণ প্রদান করবে সরকার
                                                          -- মেহের আফরোজ চুমকি
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বলেছেন, শুন্য থেকে ৫ বছরের মধ্যে শিশুর ৮০ শতাংশ বিকাশ সাধিত হয়। তাই  সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে হলে গর্ভবর্তী হওয়ার পর পরই শিশুর যতœ নিতে হবে। তিনি বলেন মা বাবা যদি কিছু নিয়ম ও অভ্যাস সম্পর্কে জানে তা হলে অনেক ক্ষেত্রেই  শিশুকে অটিজমসহ অনেক জটিল সমস্যা থেকে  রক্ষা যায়। তিনি বলেন এ লক্ষ্যে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  অর্থায়নে সূচনা ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় প্রায় ৬১ হাজার ৮শ’ জন বাবা মাকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে।
তিনি আজ রাজধানীর কাওরান বাজারে বিকেএমইএ এর মিলয়নায়তনে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক বাস্তবায়িত  গর্ভ হতে ৫ বছর বয়স পর্যন্ত  শিশুর বিকাশে  জীবন দক্ষতা প্রশিক্ষণ কর্মসূচির অধীন বিকেএমইএ এর ৩০ জন কর্মকর্তার প্রশিক্ষণ কার্যক্রম উদ্বোধনের সময় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভ্রুণ থেকে মানব শিশুর বিকাশ শুরু হয়। গর্ভবর্তী মায়ের যথাযথ যতেœর উপর নির্ভর করে  সুস্থ শিশুর জন্ম।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিকেএমইএ এর সভাপতি একেএম সেলিম ওসমান,  মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাছিমা বেগম এনডিসি, সূচনা ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক প্রাণ গোপাল দত্ত এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহমুদা শারমীন বেনু।

#

খায়ের/সেলিম/মোশারফ/রেজাউল/২০১৭/১৬৫৮ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ১৫৪১
গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং রেগুলেশন প্রণয়নে আট সদস্যের কমিটি গঠন
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
    বাংলাদেশের বিভিন্ন বিমান বন্দরে গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং রেগুলেশন প্রণয়নের লক্ষ্যে বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অতিরক্তি সচিব (বিমান ও সিভিল এভিয়েশন) এএইচএম জিয়াউল হককে আহ্বায়ক করে  আট সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি করা হয়েছে। কমিটিতে  আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়, কাস্টমস, এনবিআর, সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স,  প্রাইভেট এয়ারলাইন্স ও প্রাইভেট (কার্গো) এয়ারলাইন্সের প্রতিনিধিবৃন্দ সদস্য  হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হবেন। ইতোমধ্যে পাস হওয়া সিভিল কর্তৃপক্ষ আইনের আওতায় এ রেগুলেশন প্রণীত হবে।
    আজ সচিবালয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেননের সভাপতিত্বে গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং রেগুলেশন প্রণয়ন সংক্রান্ত এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
    সভায় মন্ত্রণালয়ের সচিব এসএম গোলাম ফারুক, অতিরিক্ত সচিব এএইচএম আবুল হাসনাতসহ সিভিল এভিয়েশন, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, প্রাইভেট এয়ারলাইন্সসহ বিভিন্ন স্টেকহোল্ডার প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।
#

তুহিন/সেলিম/মোশারফ/রেজাউল/২০১৭/১৬৫২ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ১৫৪০
ন্যায়ভিত্তিক সমাজ গঠনে সবাইকে কাজ করতে হবে
                                                    -- শিক্ষামন্ত্রী
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
    শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, একটি দুর্নীতিমুক্ত, ন্যায়ভিত্তিক ও শুদ্ধাচারী সমাজ গঠনের লক্ষ্যে সবাইকে আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে। উন্নতির ভাগ যাতে সকল মানুষ সমানভাবে পায়, সেজন্য সবাইকে সততার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। সমান অধিকার, মর্যাদা ও সুযোগ নিশ্চিত করতে শুদ্ধাচারের বিকল্প নেই। আমাদের জাতীয় লক্ষ্য অর্জনে জ্ঞান-প্রযুক্তি-দক্ষতা অর্জন এবং তার বাস্তব প্রয়োগ অপরিহার্য। একই সাথে সততা, নৈতিক মূল্যবোধ, আইন ও বিধি-বিধান মেনে চলা এবং জনগণের প্রতি দায়বদ্ধতা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।
    শিক্ষামন্ত্রী আজ ঢাকায় ইনস্টিটিউট অভ্ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইডিইবি) অডিটোরিয়ামে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নে সরকারি কর্মকর্তাদের অঙ্গীকার বিষয়ক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
    মন্ত্রী বলেন, শুদ্ধাচারের প্রয়োগের মাধ্যমেই আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা সম্ভব। নতুন প্রজন্মকে সততা, নিষ্ঠা, দায়বদ্ধতা, নৈতিক মূল্যবোধ ও দেশপ্রেমে উজ্জীবিত করে আমাদের জাতীয় লক্ষ্য অর্জনের জন্য তাদেরকে প্রস্তুত করে তুলতে হবে। এজন্য শিক্ষক সমাজের ভূমিকা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। শিক্ষকদেরকে সবধরনের অনৈতিক কাজ থেকে দূরে থাকতে হবে। কারণ তারা দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে গড়ে তোলার দায়িত্ব পালন করছেন। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, কিছু অসৎ শিক্ষকের কারণে সার্বিকভাবে শিক্ষকদের ভাবমূর্তি ক্ষুণœ হচ্ছে। এ মহৎ পেশায় তাদের থাকার কোন অধিকার নাই। অনৈতিক কাজ করে কেউ রেহাই পাবে না।
    মন্ত্রী বলেন, ভিশন-২০২১ এবং মুক্তিযুদ্ধের লক্ষ্য, আদর্শ ও চেতনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আমাদের নতুন প্রজন্মকে উন্নত আধুনিক বাংলাদেশের নির্মাতা হিসেবে গড়ে তোলার জন্য বিশ্বমানের শিক্ষা-জ্ঞান-প্রযুক্তি-দক্ষতা দিয়ে প্রস্তুত করতে প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছি। একই সঙ্গে তাদেরকে ভাল মানুষ তথা সততা, নৈতিক মূল্যবোধসম্পন্ন, জনগণের প্রতি দায়বদ্ধ এবং দেশপ্রেমে উজ্জীবিত পরিপূর্ণ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।
    কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব মোঃ আলমগীরের সভাপতিত্বে কর্মশালায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ সোহরাব হোসাইন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এন এম জিয়াউল আলম,  কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এফ এম এনামুল হক বক্তব্য রাখেন। শুদ্ধাচার বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অশোক কুমার বিশ্বাস।
    অনুষ্ঠানে দেশের সকল সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ও টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষগণ এবং অধিদপ্তর ও বিভাগের কর্মকর্তাগণ অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত কর্মকর্তাদের শুদ্ধাচার বাস্তবায়ন শপথ পাঠ করান শিক্ষামন্ত্রী।
#
আফরাজুর/সেলিম/মোশারফ/রেজাউল/২০১৭/১৬৩০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৫৩৯

সরকার ১ লাখ ৬৯ হাজার ৬৩৫ জন প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছে
                                             - প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
    প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, সরকার গত আট বছরে স্বচ্ছতার সাথে ১ লাখ ৬৯ হাজার ৬৩৫ জন প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছে এবং তাদের দেশে-বিদেশে উচ্চতর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এই প্রশিক্ষণলব্ধ জ্ঞান শ্রেণিকক্ষে প্রয়োগ করে শিক্ষার মানোন্নয়নের জন্য তিনি শিক্ষক সমাজের প্রতি আহ্বান জানান।
    মন্ত্রী আজ মন্ত্রণালয়ে সম্মেলনকক্ষে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দের সাথে প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন।
    সমিতির নেতৃবৃন্দের বিভিন্ন দাবি প্রেক্ষিতে মন্ত্রী বলেন, শিক্ষক সমাজের অধিকাংশ দাবি ইতোমধ্যে পূরণ করা হয়েছে। সহকারি শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষক হিসেবে চলতি দায়িত্ব দেয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়েছে যা পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। পুল ও প্যানেলভুক্ত ৪৬ হাজার ৫৪৩ জন শিক্ষককে জাতীয়করণ করা হয়েছে। এছাড়া, ২৬ হাজার ১৯৩ রেজিস্টার্ড বিদ্যালয় শিক্ষকসহ জাতীয়করণ করা হয়েছে। প্রধান শিক্ষকের পদমর্যাদা দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত করা হয়েছে। শিক্ষক সমাজের অন্যান্য দাবিদাওয়া নিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সাথে আলোচনা চলছে।
    সরকারের পাশাপাশি সারাদেশে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীদের হাতে মিড-ডে মিল দিয়ে বিদ্যালয়ে পাঠানোর জন্য অভিভাবকদের উদ্বুদ্ধ করার জন্য মন্ত্রী শিক্ষক সমাজের প্রতি আহ্বান জানান।
     মতবিনিময় সভায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. গিয়াস উদ্দিন আহমেদ ও  মো. আকরাম আল হোসেন এবং যুগ্ম-সচিব পুলক রঞ্জন সাহা উপস্থিত ছিলেন।
    সমিতির সভাপতি মো. নুরুজ্জামান আনসারী ও সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল্যাহ সরকারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ এসভায় উপস্থিত ছিলেন।
#

রবীন্দ্রনাথ/অনসূয়া/রফিকুল/আসমা/২০১৭/১৫০০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৫৩৮ 

ভারতের রাষ্ট্রপতির হাতে লালনগীতির প্রথম হিন্দী অনুবাদ প্রদান অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী
নয়াদিল্লী, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :  
কিংবদন্তী মরমি সাধক লালন শাহ ফকিরের বাংলা গীতির প্রথম হিন্দী অনুবাদ গ্রন্থ ‘লালন শাহ ফকির কি গীত’ এবং হিন্দীতে গাওয়া গানের ডিভিডি ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জীর হাতে তুলে দেয়া হয়। 
৩ জুন সন্ধ্যায় নয়াদিল্লীতে রাষ্ট্রপতি ভবনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভারতীয় কূটনীতিবিদ ও  অধ্যাপক মুচকুন্দ দুবে অনুদিত এ গ্রন্থ এবং লালন গীতির নিবেদিতপ্রাণ শিল্পী ফরিদা পারভীনের গাওয়া সংগীতের ডিভিডি রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জীর হাতে তুলে দেন গ্রন্থটির প্রকাশক সাহিত্য আকাদেমির প্রেসিডেন্ট ড. বিশ্বনাথ প্রসাদ তিওয়ারি ও ডিভিডি প্রকাশক ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশন্স এর প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক লোকেশ চন্দ্র। গ্রন্থ এবং ডিভিডি গ্রহণকালে রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জী লালনকে একজন মহান সাধক, গীতি কবি এবং সমাজ সংস্কারক বলে অভিহিত করেন। 
প্রণব মুখার্জী তার বক্তৃতায় বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, অধ্যাপক এমেরিটাস 
ড. আনিসুজ্জামান, গ্রন্থকার ও শিল্পীসহ গ্রন্থটির প্রকাশক সাহিত্য আকাদেমির প্রেসিডেন্ট ড. বিশ্বনাথ প্রসাদ তিওয়ারি ও ডিভিডি প্রকাশক ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশন্স (আইসিসিআর)-এর প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক লোকেশ চন্দ্রকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান। দিল্লীতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী ও লালন গীতি শিল্পী ফরিদা পারভীন এসময় উপস্থিত ছিলেন।
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু  তার বক্তৃতায় লালনচর্চায় পৃষ্ঠপোষকতার জন্য ভারতের রাষ্ট্রপতিকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, লালন গীতির হিন্দী অনুবাদ একটি অসাম্প্রদায়িক, সন্ত্রাসমুক্ত ও বৈষম্যহীন দক্ষিণ এশিয়া গড়ার পথের দিশারি হিসেবে কাজ করবে। এ অনুবাদের ফলে ১৫০ কোটি হিন্দী ভাষাভাষি লালনকে জানবার সুযোগ পেল এবং বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে রচিত হলো এক চিরন্তন মৈত্রীবন্ধন। 
তথ্যমন্ত্রী এসময় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, তাঁর নেতৃত্বে বাঙালি জাতীয়তাবাদের সাথে সাথে যে অসাম্প্রদায়িক বোধের স্ফুরণ ঘটে তা ছিল ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সবচেয়ে বড় প্রেরণা। মন্ত্রী মহান মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশকে অকুণ্ঠ সমর্থনের জন্য ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ও রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। 
অনুষ্ঠানে লালনচর্চাকে সাংস্কৃতিক ঘাটতি, সাম্প্রদায়িক সহিংসতা ও বৈষম্য দূর করার সবচেয়ে বড় হাতিয়ার বলে বর্ণনা করেন হাসানুল হক ইনু। লালনশিল্পী ফরিদা পারভীনের কণ্ঠে বাংলা ও হিন্দী লালনগীতি পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। 
#

আকরাম/অনসূয়া/জসীম/রফিকুল/আসমা/২০১৭/১৪৩০ ঘণ্টা  

আজ বিকাল পাঁচটার আগে প্রচার বা প্রকাশ করা যাবে না

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৫৩৬ 
বিশ্ব পরিবেশ দিবসে রাষ্ট্রপতির বাণী    

ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :  

রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন : 
“বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশেও যথাযথ গুরুত্বের সাথে ৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালিত হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচি এ বছরে বিশ্ব পরিবেশ দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছে ‘ঈড়হহবপঃরহম চবড়ঢ়ষব ঃড় ঘধঃঁৎব’ যার ভাবার্থ করা হয়েছে ‘প্রাণের স্পন্দনে, প্রকৃতির বন্ধনে’। আর স্লোগান নির্ধারণ করা হয়েছে ‘ও’স রিঃয ঘধঃঁৎব’ যার ভাবার্থ- আমি প্রকৃতির, প্রকৃতি আমার’। বিশ্বব্যাপী পরিবেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে পরিবেশ দিবসের প্রতিপাদ্য ও স্লোগান যথার্থ হয়েছে বলে আমি মনে করি।      
মানুষ ও প্রকৃতির বন্ধন অবিচ্ছেদ্য। সকল প্রাণী ও উদ্ভিদ জগতের অস্তিত্ব প্রকৃতির ওপর নির্ভরশীল। প্রকৃতির মাঝে গড়ে ওঠা প্রতিবেশ ব্যবস্থা (ঊপড়-ংুংঃবস) তার সেবা দিয়ে সকলকে বাঁচিয়ে রাখে। কিন্তু দ্রুত জনসংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে ওঠা শিল্পায়ন, নগরায়ন ও বিলাসী জীবন-আচরণ প্রকৃতি ও প্রতিবেশের অপূরণীয় ক্ষতি সাধন করছে।
প্রকৃতি ও প্রতিবেশ বিশেষত ঃ নদী, পাহাড়, বন বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সুরক্ষায় সরকার খুবই সচেতন। সব ধরনের দূষণ নিয়ন্ত্রণ এবং জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় সরকার পরিবেশ সংক্রান্ত নীতি ও আইন যুগোপযোগী করেছে ও প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে সক্ষমতা বৃদ্ধির কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। গরষষবহহরঁস উবাবষড়ঢ়সবহঃ এড়ধষং এর বিভিন্ন লক্ষ্যমাত্রা ও সূচকের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ যেভাবে সাফল্য লাভ করেছে, তারই ধারাবাহিকতায় ঝঁংঃধরহধনষব উবাবষড়ঢ়সবহঃ এড়ধষং অর্জনের ক্ষেত্রেও বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট ঝউএং এর লক্ষ্যমাত্রা ও সূচকসমূহ চিহ্নিত করে তা নির্ধারিত সময়ে অর্জনের জন্য একটি সমন্বিত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে। ঝউএং লক্ষ্যমাত্রাগুলো অর্জিত হলে দেশের পরিবেশ সংরক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি হবে বলে আমার বিশ্বাস।
বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য পরিবেশ নিশ্চিত করতে প্রকৃতি ও পরিবেশ রক্ষায় আমাদের সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। প্রকৃতির জন্য ক্ষতিকর এমন কাজ থেকে বিরত থাকি; প্রকৃতিকে বাঁচাই, নিজেও বাঁচি- এটাই হোক এবারের বিশ্ব পরিবেশ দিবসে সকলের অঙ্গীকার।
বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০১৭ উদ্যাপন সফল হোক - এ কামনা করি।
খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”    
#
জয়নাল/অনসূয়া/জসীম/রফিকুল/আসমা/২০১৭/১১০০ ঘণ্টা 

আজ বিকাল পাঁচটার আগে প্রচার বা প্রকাশ করা যাবে না

আজ বিকাল পাঁচটার আগে প্রচার বা প্রকাশ করা যাবে না

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৫৩৭ 
বিশ্ব পরিবেশ দিবসে প্রধানমন্ত্রীর বাণী
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :   
“জাতিসংঘের অন্যান্য সদস্য দেশের মতো বাংলাদেশেও ৫ জুন ২০১৭ বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালন করা হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। 
বিশ্ব পরিবেশ দিবসের এবারের স্লোগান ‘ও’স রিঃয ঘধঃঁৎব’ অর্থাৎ ‘আমি প্রকৃতির, প্রকৃতি আ

Todays handout (8).docx Todays handout (8).docx

Share with :
Facebook Facebook