তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৪ জুন ২০১৮

তথ্যবিবরণী ৪ জুন ২০১৮

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৬৬১
সুস্থ জাতির জন্য প্রয়োজন সুস্থ মা ও শিশু
---তথ্যমন্ত্রী
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন):
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছতে জাতিকে সুস্থ সবল থাকতে হবে। আর সুস্থ জাতির জন্য প্রয়োজন সুস্থ মা ও সুস্থ শিশু।
আজ রাজধানীর কাকরাইলে বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে দেশের ৬৪ জেলা ও ৪ টি পার্বত্য উপজেলা তথ্য অফিসের প্রধানদের অংশগ্রহণে ইউনিসেফের অর্থায়নে গণযোগাযোগ অধিদপ্তর পরিচালিত ‘মা ও শিশু উন্নয়নে যোগাযোগ কার্যক্রম’ প্রকল্পের আওতায় ৩-৪ জুন দু’দিনের কর্মশালার সমাপনীতে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, টেকসই উন্নয়নের মাধ্যমে দেশকে উন্নতির আরেকধাপ এগিয়ে নিতে ২০২১ ও ২০৪১ এর রূপকল্প বাস্তবায়নে প্রয়োজন জঙ্গি ও মাদকমুক্ত সুস্থ সমাজ। আর সুস্থ জাতি গঠনে মা ও শিশুর সুস্থতার বিকল্প নেই।
গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন তথ্যসচিব আবদুল মালেক। ইউনিসেফ বাংলাদেশের যোগাযোগ বিভাগপ্রধান নেহা কাপিল আমন্ত্রিত অতিথির বক্তৃতা করেন।
হাসানুল হক ইনু বলেন, গর্ভাবস্থা ও সন্তান জন্মের পর স্তন্যদানের দুবছর মাকে অধিক পুষ্টিকর খাবার এবং শিশুর যতেœর পাশাপাশি সময়মত টিকা দিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে, কোনো শিশুই যেন তার প্রাপ্য যতœ থেকে বঞ্চিত না হয়। বস্তি বা চরের শিশু, যৌনকর্মীর শিশু, হিজড়া শিশুসহ সবার সেবা নিশ্চিত করতে জনগণ ও সংস্থাগুলোর সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করতে হবে তথ্য অফিসারদের।
শিশুকে তার সঠিক পরিচয় জানাতে হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর চেতনায় আমরা প্রথমে মানুষ, তারপর জাতিতে বাঙালি এবং এরপর যার যার ধর্মের পরিচয়ে পরিচিত। শিশুকাল থেকেই মানুষকে থাকতে হবে পরিচয় সংকটমুক্ত। 
তথ্যসচিব আবদুল মালেক  প্রতিটি মানুষকে এ কার্যক্রমের আওতায় আনার জন্য কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন ও একাজে ধারাবাহিক সহযোগিতার জন্য ইউনিসেফকে ধন্যবাদ জানান।
#/
আকরাম/ফারহানা/মোশারফ/আব্বাস/২০১৮/২১৫৬ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৬৬০

জামালপুর একটি মডেল জেলায় পরিণত হবে
  ---প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম

ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন):
বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম বলেছেন, জামালপুর একটি মডেল জেলায় পরিণত হওয়ার পথে আরো একধাপ এগিয়ে গেল। এখানে প্রতিষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দেশের আধুনিক অর্থনৈতিক অঞ্চল যেখানে লক্ষাধিক মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে। ফলে এ অঞ্চলের মানুষের জীবনযাত্রার ব্যাপক উন্নয়ন হবে। এতে করে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের আধুনিক সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার কাজ আরো বেগবান হবে।

আজ ঢাকার প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা)’র নির্বাহী পরিচালক পবন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ‘ইনভেস্টম্যান্ট অপরচুনিটি ইন জামালপুর ইকোনোমিক জোন’ শীর্ষক সেমিনারে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি) আবুল কালাম আজাদ, এফবিসিসিআই এর সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনসহ বিভিন্ন ব্যবসায়িক নেতৃবৃন্দসহ বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)-এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিমন্ত্রী এ অর্থনৈতিক অঞ্চলে দেশের সকল ব্যবসায়ীকে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। তিনি বলেন, এখানে ব্যবসায়িক কর্মকা- পরিচালনার জন্য সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

সভায় জনানো হয়, ৪৩৬ একর জমির উপর জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে। পাট ও পাটজাত পণ্য, প্রক্রিয়াজাত কৃষি ও কৃষিজাত পণ্য, ফার্মাসিউটিক্যাল পণ্য, আইটি, এসএমই, মসলা প্রক্রিয়াকরণ, কোমল পানীয়, গার্মেন্টস্, এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজসহ বহুপণ্য উৎপাদনের জন্য এ অর্থনৈতিক অঞ্চলটি ব্যবহƒত হবে। এ ইকোনমিক জোনে নিরবছিন্ন বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানিসহ সকল ধরনের ইউটিলিটির সেবা প্রদানের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়াও জমি ক্রয় ও অবকাঠামো নির্মাণে এ জোনে বিশেষ সুযোগ থাকবে।  

#
সৈকত/মাহমুদ/মোশারফ/আব্বাস/২০১৮/১৯৪৪ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৬৫৯

আগামীকাল বিআরটিসি’র স্পেশাল সার্ভিসের টিকিট বিক্রি শুরু 

ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন):
আসন্ন ঈদ উপলক্ষে বিআরটিসি’র স্পেশাল সার্ভিসের আগাম টিকিট আগামীকাল ৫ জুন থেকে বিক্রি শুরু হবে। আগামী ১৩ জুন থেকে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত এ সার্ভিসের আওতায় যাত্রী পরিবহনে বিআরটিসি’র বহরে নয়শত চারটি বাস চলাচল করবে।

আজ দিলকুশাস্থ বিআরটিসি’র প্রধান কার্যালয়ে আসন্ন ঈদ প্রস্তুতি বিষয়ক এক সভায় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ তথ্য জানান। 

মন্ত্রী বলেন, এবারের ঈদযাত্রায় বিআরটিসি’র স্পেশাল সার্ভিসের নয়শত চারটি বাসের মধ্যে ঢাকা মহানগর, গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ ডিপো থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে চারশত ৭৫টি বাস এবং দেশের অন্যান্য ডিপো থেকে তিনশত ৭৫টি বাস চলাচল করবে।

এসময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, যে কোনো জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলায় ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী ডিপোসমূহে অতিরিক্ত ৫৪টি বাস সার্বক্ষণিক প্রস্তুত থাকবে।

মন্ত্রী বিআরটিসি’র কর্মকর্তা ও ডিপো ম্যানেজারদের সতর্ক করে বলেন, ঈদের সময় কোনোভাবেই রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বদনাম যেন বিআরটিসি’র বিরুদ্ধে না আসে।

তিনি সভায় জানান, ভারতীয় ঋণ কর্মসূচির আওতায় চারশত বাস এবং পাঁচশত ট্রাক সংগ্রহের বিষয়টি সম্প্রতি গতি পেয়েছে। এ বছরের শেষ নাগাদ নতুন বাস এবং ট্রাক বিআরটিসি’র বহরে যুক্ত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। এছাড়া আরও দুইশত বাস সংগ্রহ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সভায় বিআরটিসি’র চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ ভূঁইঞাসহ বিআরটিসি প্রধান কার্যালয়ের কর্মকর্তাগণ এবং ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার ডিপো ম্যানেজারগণ উপস্থিত ছিলেন।
#
আবু নাছের/মাহমুদ/মোশারফ/আব্বাস/২০১৮/১৯০৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                    নম্বর : ১৬৫৮ 
 
সীতাকু-ে ওজন স্কেল আগামীকাল চালু
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকু-স্থ বড়দারোগাহাটে যানবাহনের অতিরিক্ত ওজন নিয়ন্ত্রণে স্থাপিত ওজন স্কেলটি পুনরায় চালু হবে। 
গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় এ মহাসড়কের সুরক্ষায় সকলের সহযোগিতা কামনা করছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।
#
নাছের/মাহমুদ/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৮/১৮৩০ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ১৬৫৭
 
বাণিজ্যমন্ত্রী-ইইউ রাষ্ট্রদূত বৈঠক
উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হবার পর বাংলাদেশকে জিএসপি প্লাস সুবিধা দেবে ইইউ
 
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বাংলাদেশকে জিএসপি প্লাস সুবিধা প্রদান করবে। এ জন্য যে সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করতে হয়, তা যথাসময়ে সম্পন্ন করবে বাংলাদেশ। 
বাণিজ্যমন্ত্রী আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত জবহংলব ঞববৎরহশ এর সাথে মতনিমিয় করে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, চলতি মাসের ২৪ তারিখ ব্রাসেলসে সাসটেইনেবিলিটি কমপ্যাক্ট মিটিং অনুষ্ঠিত হবে। মিটিংয়ে অফিসিয়াল এবং ব্যবসায়ীদের নিয়ে বাংলাদেশের ২১ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল অংশগ্রহণ করবে। এ মিটিং বাংলাদেশের তৈরিপোশাক রপ্তানির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ক্রেতাদের শর্ত মোতাবেক বাংলাদেশ ইতোমধ্যে শ্রম আইন এবং ইপিজেড শ্রমিক আইন একইভাবে সংশোধন করেছে। একটি কারখানার ৩০ ভাগ শ্রমিকের পরিবর্তে ২০ ভাগ শ্রমিক চাইলেই এখন শ্রমিক সংগঠন তৈরি করতে পারবে। শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। 
তোফায়েল আহমেদ বলেন, অপ্রত্যাশিত রানা প্লাজা দুর্ঘটনার পর বিগত ৫ বছরে বড় ধরনের কোন দুর্ঘটনা ঘটেনি। বাংলাদেশের তৈরিপোশাক কারখানাগুলো এখন বিগত যে কোন সময়ের চেয়ে নিরাপদ ও কর্মবান্ধব। দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থার জরিপে দেখা গেছে, বাংলাদেশের তৈরিপোশাক কারখানাগুলোর ত্রুটির পরিমাণ দুই শতাংশের কম, যেখানে ২ শতাংশের বেশি আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য। এটা বাংলাদেশের জন্য বড় অর্জন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন বিল্ডিং কাউন্সিলের হিসাব  মোতাবেক গত বছর বিশে^র যে ১০টি গ্রিন ফ্যাক্টরিকে সনদ প্রদান করা হয়েছিল, তার মধ্যে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানসহ সাতটি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশের। বাংলাদেশে প্রায় ২৮৯টি গ্রিন ফ্যাক্টরি তৈরি হচ্ছে। এখন জেনেভায় ইন্টারন্যাশনাল লেবার কাউন্সিলের মিটিং চলছে। সেখানে বাংলাদেশের শ্রম আইন, শ্রমিকদের অধিকার ও নিরাপত্তা, কর্মপরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়েছে। 
ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত এসময় বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন প্রশংসা করার মতো। শ্রমিকরা কর্মবান্ধব পরিবেশে কাজ করছে। ক্রেতাগোষ্ঠী বাংলাদেশের কর্মপরিবেশের উন্নয়নে খুশি। বাংলাদেশ সফলভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শুভাশীষ বসু, অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি) তপনকান্তি ঘোষ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
#
বকসী/মাহমুদ/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৮/১৮০০ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৬৫৬
 
জেলা পর্যায়ের শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা সম্পন্ন
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন):
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকারে শিশুদের তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষায় আগ্রহী করতে সারাদেশে ৬৪ জেলায় ১৮০টি শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবে জেলা পর্যায়ের প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা সম্পন্ন হয়েছে।
দু’দিনব্যাপী এই প্রতিযোগিতায় ৬৪ জেলা হতে প্রাথমিকভাবে ৫ হাজার ৪০০ জন এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। স্ক্র্যাচ ও পাইথন দুই বিভাগে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায়                    ২ হাজার ৭০০ জন এবং পাইথনে ২ হাজার ৭০০ জন অংশগ্রহণ করে। স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় প্রতি তিনজন শিক্ষার্থী একটি টিম হিসেবে এবং পাইথনে প্রত্যেক শিক্ষার্থী এককভাবে অংশগ্রহণ করে।
সারাদেশে ১৮০টি শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবে পাইথন ও স্ক্র্যাচের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় গত ১২ মে থেকে ৩০ মে পর্যন্ত। এর পূর্বে গত ১৬ ও ১৭ই এপ্রিল বাংলাদেশ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে প্রশিক্ষকদের জন্য দু’দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। সেখানে ৩৬০ জন আইসিটি শিক্ষক এবং শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের কো-অর্ডিনেটররা প্রশিক্ষণে অংশ নেন।
শিক্ষার্থীদের ল্যাব প্রশিক্ষণ শেষে ২ জুন এবং ৩ জুন জেলা পর্যায়ে স্ক্র্যাচ ও পাইথন প্রতিযোগিতা সম্পন্ন হয়। জেলাভিত্তিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের নিয়ে পরে ঢাকায় দু’দিনব্যাপী ‘পাইথনভিত্তিক জাতীয় ক্যাম্প’ এবং দু’দিনের ‘স্ক্র্যাচভিত্তিক জাতীয় ক্যাম্প’ আয়োজন করা হবে।
এই জাতীয় প্রতিযোগিতায় প্রাপ্ত প্রকল্পগুলোর মধ্যে থেকে সেরা প্রকল্পগুলোকে সমাপনী এবং পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থাপন করা হবে।
সম্প্রতি ঢাকায় অনুষ্ঠিত বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং (বিপিও) সামিটে প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় প্রাথমিক স্তর থেকেই দেশের শিক্ষার্থীদের আইসিটি প্রশিক্ষণের ঘোষণা দেন। এরপর দেশব্যাপী এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।
‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষ আগামীর জাতি গড়ার লক্ষ্যে, শিশুকিশোরদের প্রোগ্রামিংয়ে অনুপ্রেরিত করার জন্যই এই প্রতিযোগিতা। বেসিস (বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অভ্ সফটওয়্যার আন্ড ইনফরমেশন সার্ভিস) এর ইনস্টিটিউট অভ্ টেকনোলোজি এন্ড ম্যানেজমেন্ট (বিআইটিএম) এর সহায়তায় প্রথম শুরু করেছিলাম ২০১৭ সালে, তখনই ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় ৯৮টি স্কুলে তিন মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ দিয়েছিলাম স্ক্র্যাচসহ বিভিন্ন বিষয়ে’, বলেছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।
সিআরআই’র সহকারী সমন্বয়ক তন্ময় আহমেদ জানান, প্রথমবারের মতো এবারই এই প্রতিযোগিতায় তৃতীয়-পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য ‘স্ক্র্যাচ’ এবং ষষ্ঠ-দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য ‘পাইথন’ রাখা হয়েছে। সাধারণত প্রতি বছর হাই স্কুল প্রোগ্রামিং কন্টেস্টে ‘সি’ ও ‘সি++’ ভিত্তিক কিছু কুইজ এবং কিছু প্রবলেম সমাধান করার জন্য দেওয়া হয়ে থাকে। 
#
শহীদুল/মাহমুদ/রফিকুল/রেজাউল/২০১৮/১৭৫২ ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৬৫৫
 
জাতীয় বাজেট ঘোষণা ৭ জুন
 
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন):
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আগামী ৭ জুন বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে বারোটায় ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করবেন।
প্রতিবারের মতো এবারও ডিজিটাল পদ্ধতিতে অর্থাৎ পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে বাজেট উপস্থাপন করা হবে। ঐ দিন বাজেট বক্তৃতা, বাজেটের সংক্ষিপ্তসার, বার্ষিক আর্থিক বিবৃতি, সম্পূরক আর্থিক বিবৃতি, মধ্যমেয়াদি সামষ্টিক অর্থনৈতিক নীতি বিবৃতি, বিকশিত শিশু: সমৃদ্ধ বাংলাদেশ, শিশু বাজেট ২০১৮-১৯, ডিজিটাল বাংলাদেশের পথে অগ্রযাত্রা : হালচিত্র ২০১৮, জলবায়ু সুরক্ষা ও উন্নয়নের লক্ষ্যে বাজেট প্রতিবেদন ২০১৮-১৯, জেন্ডার বাজেট প্রতিবেদন, সংযুক্ত তহবিল-প্রাপ্তি, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সমীক্ষা ২০১৮, মঞ্জুরি ও বরাদ্দের দাবিসমূহ (পরিচালন ও উন্নয়ন), বিস্তারিত বাজেট (উন্নয়ন), মধ্যমেয়াদি বাজেট কাঠামো এবং রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানসমূহের ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট সংক্ষিপ্তসার ওয়েবসাইটে প্রকাশসহ জাতীয় সংসদ হতে সরবরাহ করা হবে। একই সঙ্গে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ প্রণীত ব্যাংক, বীমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের কার্যাবলি ২০১৭-১৮ জাতীয় সংসদে পেশ করা হবে।
বাজেটকে আরো অংশগ্রহণমূলক করার লক্ষ্যে অর্থ বিভাগের ওয়েবসাইট িি.িসড়ভ.মড়া.নফ-এ বাজেটের সকল তথ্য ও গুরুত্বপূর্ণ দলিল যে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান পাঠ ও ডাউনলোড করতে পারবে এবং দেশ বা বিদেশ থেকে উক্ত ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফিডব্যাক ফরম পূরণ করে বাজেট সম্পর্কে মতামত ও সুপারিশ প্রেরণ করতে পারবে। 
ব্যাপকভিত্তিক অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকারি ওয়েবসাইট লিংক িি.িনধহমষধফবংয.মড়া.নফ, িি.িহনৎ-নফ.ড়ৎম, িি.িঢ়ষধহপড়সস.মড়া.নফ, িি.িরসবফ.মড়া.নফ, িি.িনফঢ়ৎবংংরহভড়ৎস.ঢ়ড়ৎঃধষ.মড়া.নফ, িি.িঢ়সড়.মড়া.নফ এবং বেসরকারি ওয়েবসাইট লিংক িি.িনফহবংি২৪.পড়স ঠিকানায় বাজেট সংক্রান্ত তথ্য পাওয়া যাবে।
বাজেট উপস্থাপনের পরদিন অর্থাৎ আগামী ৮ জুন শুক্রবার বেলা আড়াইটায় ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বাজেটোত্তর সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।
#
 
শাহেদুর/মাহমুদ/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৮/১৭৩০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর : ১৬৫৪

মতিঝিল এলাকায় টেলিফোন ইন্টারনেট সার্ভিস সাময়িক বন্ধ

ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :  

মেট্টোরেল প্রকল্পের আওতাধীন রাজধানীর মতিঝিল রোড এলাকার বিটিসিএলের বিদ্যমান ভূ-গর্ভস্থ প্রাইমারি কেবল নিরাপদ দূরত্বে স্থানান্তর কাজের কারণে সংশ্লিষ্ট এলাকায় বিটিসিএলের টেলিফোন ও ইন্টারনেট সার্ভিস সাময়িক বন্ধ থাকবে। কাজ চলাকালীন সময়ে সংশ্লিষ্ট এলাকার টেলিফোনসমূহ ১-৪ জুন এবং আগামী ৮-১১ জুন পর্যন্ত সাময়িকভাবে বন্ধ থাকবে। তবে টেলিফোনসমূহ যথাসম্ভব শীঘ্র চালু করার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। 

বিটিসিএলের সম্মানিত গ্রাহকবৃন্দের সাময়িক অসুবিধার জন্য বিটিসিএল কর্তৃপক্ষ আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছে।

#

মোরশেদ/অনসূয়া/সুবর্ণা/আসমা/২০১৮/১৪৫০ ঘণ্টা  
 
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১৬৫৩ 
এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদুলফিতরের উৎসবভাতার চেক হস্তান্তর
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদুলফিতরের উৎসবভাতার সরকারি অংশের ৮টি চেক অনুদান বণ্টনকারী অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে এবং জনতা ও সোনালী ব্যাংকের স্থানীয় কার্যালয়ে হস্তান্তর করা হয়েছে। 
আগামী ১১ জুন পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট শাখা ব্যাংক হতে ঈদুলফিতরের উৎসবভাতার সরকারি অংশ উত্তোলন করা যাবে। 
#
শফিকুল/অনসূয়া/রেজ্জাকুল/আসমা/২০১৮/১৩২০ ঘণ্টা 
আজ বিকাল পাঁচটার আগে প্রচার বা প্রকাশ করা যাবে না
তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ১৬৫৭
 
বাণিজ্যমন্ত্রী-ইইউ রাষ্ট্রদূত বৈঠক
উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হবার পর বাংলাদেশকে জিএসপি প্লাস সুবিধা দেবে ইইউ
 
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বাংলাদেশকে জিএসপি প্লাস সুবিধা প্রদান করবে। এ জন্য যে সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করতে হয়, তা যথাসময়ে সম্পন্ন করবে বাংলাদেশ। 
বাণিজ্যমন্ত্রী আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত জবহংলব ঞববৎরহশ এর সাথে মতনিমিয় করে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, চলতি মাসের ২৪ তারিখ ব্রাসেলসে সাসটেইনেবিলিটি কমপ্যাক্ট মিটিং অনুষ্ঠিত হবে। মিটিংয়ে অফিসিয়াল এবং ব্যবসায়ীদের নিয়ে বাংলাদেশের ২১ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল অংশগ্রহণ করবে। এ মিটিং বাংলাদেশের তৈরিপোশাক রপ্তানির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ক্রেতাদের শর্ত মোতাবেক বাংলাদেশ ইতোমধ্যে শ্রম আইন এবং ইপিজেড শ্রমিক আইন একইভাবে সংশোধন করেছে। একটি কারখানার ৩০ ভাগ শ্রমিকের পরিবর্তে ২০ ভাগ শ্রমিক চাইলেই এখন শ্রমিক সংগঠন তৈরি করতে পারবে। শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। 
তোফায়েল আহমেদ বলেন, অপ্রত্যাশিত রানা প্লাজা দুর্ঘটনার পর বিগত ৫ বছরে বড় ধরনের কোন দুর্ঘটনা ঘটেনি। বাংলাদেশের তৈরিপোশাক কারখানাগুলো এখন বিগত যে কোন সময়ের চেয়ে নিরাপদ ও কর্মবান্ধব। দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থার জরিপে দেখা গেছে, বাংলাদেশের তৈরিপোশাক কারখানাগুলোর ত্রুটির পরিমাণ দুই শতাংশের কম, যেখানে ২ শতাংশের বেশি আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য। এটা বাংলাদেশের জন্য বড় অর্জন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন বিল্ডিং কাউন্সিলের হিসাব  মোতাবেক গত বছর বিশে^র যে ১০টি গ্রিন ফ্যাক্টরিকে সনদ প্রদান করা হয়েছিল, তার মধ্যে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানসহ সাতটি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশের। বাংলাদেশে প্রায় ২৮৯টি গ্রিন ফ্যাক্টরি তৈরি হচ্ছে। এখন জেনেভায় ইন্টারন্যাশনাল লেবার কাউন্সিলের মিটিং চলছে। সেখানে বাংলাদেশের শ্রম আইন, শ্রমিকদের অধিকার ও নিরাপত্তা, কর্মপরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়েছে। 
ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত এসময় বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন প্রশংসা করার মতো। শ্রমিকরা কর্মবান্ধব পরিবেশে কাজ করছে। ক্রেতাগোষ্ঠী বাংলাদেশের কর্মপরিবেশের উন্নয়নে খুশি। বাংলাদেশ সফলভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শুভাশীষ বসু, অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি) তপনকান্তি ঘোষ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
#
বকসী/মাহমুদ/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৮/১৮০০ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর ঃ ১৬৫১
বিশ্ব পরিবেশ দিবসে রাষ্ট্রপতির বাণী 
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ (৪ জুন) :
রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস-২০১৮’ উপলক্ষে নি¤েœাক্ত বাণী প্রদান করেছেন :
“বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশেও বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালনের উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য পৃথিবী গড়তে এ উদ্যোগ কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে আমি মনে করি।
বিশ্বব্যাপী শিল্পায়ন ও নগরায়নের প্রভাবে দিন দিন পরিবেশ দূষণ বেড়ে চলেছে। পরিবেশ দূষণের প্রভাবে জলবায়ুসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এর বিরূপ প্রভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে। পরিবেশ দূষণের অন্যতম প্রধান নিয়ামক হচ্ছে পলিথিন ও প্লাস্টিক দ্রব্য। সাশ্রয়ী মূল্য ও দেখতে আকর্ষণীয় হওয়ায় দৈনন্দিন ব্যবহার্য সামগ্রী থেকে শুরু করে সকল ক্ষেত্রে প্লাস্টিক সামগ্রীর ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে। পলিথিন বা প্লাস্টিক বর্জ্য মাটি, জলাশয়, নদ-নদী ও সমুদ্রকে দূষিত করছে, বাড়ছে মানব স্বাস্থ্যের ঝুঁকি। টঘ ঊহারৎড়হসবহঃ এ বছরের বিশ্ব পরিবেশ দিবসের স্লোগান নির্ধারণ করেছে 'ওভ ুড়ঁ পধহ'ঃ ৎবঁংব রঃ, ৎবভঁংব রঃ' অর্থাৎ ‘প্লাস্টিক পুনঃব্যবহার করি, না পারলে বর্জন করি’ এবং প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছে ' ইবধঃ চষধংঃরপ চড়ষষঁঃরড়হ অর্থাৎ ‘আসুন প্লাস্টিক দূষণ বন্ধ করি’- বর্তমান প্রেক্ষাপটে যা অত্যন্ত সময়োপযোগী বলে আমি মনে করি।
প্রাকৃতিক পণ্য ব্যবহারকারী দেশ হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশে ক্রমেই প্লাস্টিকের ব্যবহার বেড়ে চলেছে। তাই এখন প্লাস্টিক বর্জ্যরে সঠিক ব্যবস্থাপনা অত্যন্ত জরুরি। ইতিমধ্যে সরকার জাতীয় বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ৩জ (জবফঁপব, জবঁংব ধহফ জবপুপষব) কৌশল গ্রহণ করেছে। পাটের উৎপাদন এর বহুমুখী ব্যবহার বৃদ্ধির জন্য ধান, চালসহ আরও কয়েকটি পণ্য প্যাকেজিংয়ে পাটজাত সামগ্রী ব্যবহারকে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। জৈব পচনশীল পাটজাত পণ্যের বহুমুখী ব্যবহার পরিবেশ দূষণ প্রতিরোধে বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে আমার বিশ্বাস। একটি সুন্দর আগামীর জন্য পরিবেশ দূষণ প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে আমি সকলের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি। 
‘বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০১৮’ উদযাপন সফল হোক এ কামনা করি। 
খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”
#
আজাদ/অনসূয়া/রেজ্জাকুল/শামীম/২০১৮/৯৩১ ঘণ্টা 
 
তথ্যবিবরণী                                                                                        নম্বর : ১৬৫২
বিশ্ব পরিবেশ দিবসে প্রধানমন্ত্রীর বাণী
ঢাকা, ২১ জ্যৈষ্ঠ ( ৪ জুন ) :
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে নি¤েœাক্ত বাণী প্রদান করেছেন :
“জাতিসংঘের অন্যান্য সদস্য দেশের মতো বাংলাদেশেও ৫ ই জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালন হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘ইবধঃ চষধংঃরপ চড়ষষঁঃরড়হ’ অর্থাৎ ‘আসুন প্লাস্টিক দূষণ বন্ধ করি’ এবং স্লোগান ‘ওভ ুড়ঁ পধহ'ঃ ৎবঁংব রঃ, ৎবভঁংব রঃ’ অর্থাৎ ‘প্লাস্টিক পুনঃব্যবহার করি, না পারলে বর্জন করি’ অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক হয়েছে বলে আমি মনে করি।
মানুষের জীবন-জীবিকা নির্বাহে প্রকৃতি ও পরিবেশের গুরুত্ব অপরিসীম। জনসংখ্যা বৃদ্ধি ও মানুষের অপরিণামদর্শী কর্মকা-ের কারণে প্রকৃতি ও পরিবেশে প্রতিনিয়ত যুক্ত হচ্ছে দূষিত বর্জ্য। বিঘিœত হচ্ছে প্রাকৃতিক ভারসাম্য। আমরা প্রতিদিন যে বর্জ্য তৈরি করি, তার শতকরা প্রায় ১০ ভাগ প্লাস্টিক। প্লাস্টিকের ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতি বছর বিশ্বব্যাপী ৫০০ বিলিয়ন প্লাস্টিক ব্যাগ ব্যবহৃত হচ্ছে। যার মধ্যে প্রায় ৮ মিলিয়ন টন প্লাস্টিক সমুদ্রে পতিত হয়। এর ফলে এক মিলিয়ন সমুদ্রচারী পাখি এবং এক লক্ষ সামুদ্রিক স্তন্যপায়ীর মৃত্যু হয়। প্লাস্টিকের অত্যধিক উৎপাদন ও ব্যবহারের ফলে উর্বর কৃষি জমি থেকে শুরু করে খাল-বিল, নদ-নদী এবং সাগর-মহাসাগরের প্রতিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। তাই প্লাস্টিকের পুনঃব্যবহার এবং পুনঃচক্রায়ন একান্ত প্রয়োজন।
আওয়ামী লীগ সরকার প্রকৃতি ও পরিবেশ সংরক্ষণকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে এগিয়ে চলেছে। পলিথিন শপিং ব্যাগ উৎপাদন, পরিবহণ, মজুত ও ব্যবহার নিষিদ্ধ করে ২০১০ সালে আমরা বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন, ১৯৯৫ অধিকতর সংশোধন করেছি। পলিথিনের বিকল্প পাটের শপিং ব্যাগ উৎপাদন ও বাজারজাতকরণে বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। পণ্যে পাটজাত মোড়ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক আইন, ২০১০ ও পণ্যে পাটজাত মোড়ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক বিধিমালা, ২০১৩ অনুসারে ১৭টি পণ্যের সংরক্ষণ ও পরিবহণে পলিথিনের পরিবর্তে পাটজাত মোড়ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। নতুন নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপনে যাতে প্রতিবেশ ও পরিবেশসম্মত বিধিব্যবস্থা পালন করা হয় সেদিকে বিশেষ নজর দেওয়া হচ্ছে। শিল্পাঞ্চল, আবাসিক অঞ্চলসহ যে কোন স্থাপনায় বৃষ্টির পানি ও জলাধার  সংরক্ষণ এবং বৃক্ষ রোপন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। আমাদের সরকার নদী খনন, খাল খননসহ পাড়ে বৃক্ষরোপন বাধ্যতামূলক করেছে। সাগর ও উপকূল অঞ্চলে সবুজ বেষ্টনী, বৃক্ষরোপন ও ম্যানগ্রোভ সৃষ্টি করা হচ্ছে।
আমি আশা করি, বিশ্ব পরিবেশ দিবস উদ্যাপনের মাধ্যমে পরিবেশ সংরক্ষণ ও প্রতিবেশের টেকসই ব্যবস্থাপনায় জনসচেতনতা ও জনসম্পৃক্ততা বৃদ্ধি পাবে।
আমি ‘বিশ্ব পরিবেশ দিবস-২০১৮’ উপলক্ষে গৃহীত সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্য কামনা করছি। 
জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু
বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”
#
শাহানা/অনসূয়া/সুবর্ণা/রেজ্জাকুল/শামীম/২০১৮/৯৩৩ ঘণ্টা 
 
Todays handout (9).docx Todays handout (9).docx

Share with :

Facebook Facebook