তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৫ নভেম্বর ২০১৮

তথ্যবিবরণী ০৫/১১/২০১৮

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ৩০৫৫
 
টকেসই র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা বষিয়ক প্রশক্ষিক প্রশক্ষিণ র্কোস অনুষ্ঠতি
চলতি বছর মাঠ র্পযায়ে ১৫ হাজার ব্যক্তকিে প্রশক্ষিণের লক্ষ্যমাত্রা
ঢাকা, ২১ কার্তিক (৫ নভেম্বর) :  
র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসনে চৌধুরী মায়া, বীরবক্রিম বলছেনে, প্রশক্ষিণ, সচতেনতা ও যথাযথ প্রস্তুতরি মাধ্যমে একটি র্দুযোগ সহনশীল জাতি গঠন সরকাররে লক্ষ্য। প্রশক্ষিক প্রশক্ষিণরে মাধ্যমে যে র্কমর্কতাকে দক্ষ করে তোলা হবে তারা যনে র্সবোচ্চ আন্তরকিতা নয়িে এই লক্ষ্য র্অজনে কাজ করনে। 
মন্ত্রী আজ র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা অধদিপ্তরে র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা বষিয়ক প্রশক্ষিক প্রশক্ষিণ র্কোসরে সমাপন ও র্সাটফিকিটে বতিরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতথিরি বক্তৃতা করনে। র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচবি মোঃ শাহ্‌ কামালরে সভাপতত্বিে অনুষ্ঠানে জাতসিংঘরে আবাসকি সমন্বয়ক ময়িা সপ্পেো (গরধ ঝবঢ়ঢ়ড়), র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা অধদিপ্তররে মহাপরচিালক আবু সয়ৈদ মোহাম্মদ হাশমি প্রমুখ বক্তব্য রাখনে। ৩-৫ নভম্বের ২০১৮ ময়োদে র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এবং র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা অধদিপ্তররে র্ঊধ্বতন র্কমর্কতাগণরে প্রশক্ষিক প্রশক্ষিণ র্কোস অধিদপ্তরের সম্মলেন কক্ষে অনুষ্ঠতি হয়। 
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, গত বছর ৪৭ জন প্রশক্ষিকরে মাধ্যমে ২০ হাজার ৫০৫ জন ব্যক্তকিে র্দুযোগ ব্যবস্থাপনার ওপর প্রশক্ষিণ প্রদান করা হয়। এ বছর ৩০ জনকে প্রশক্ষিক প্রশক্ষিণ প্রদান করা হচ্ছ।ে এদরে মাধ্যমে ১৫ হাজার ব্যক্তকিে প্রশক্ষিণ প্রদানরে লক্ষ্যমাত্রা নর্ধিারণ করা হয়ছে।ে প্রশক্ষিণপ্রাপ্ত র্কমর্কতাগণ জলো, উপজলো ও ইউনয়িন র্পযায়ে র্দুযোগ ব্যবস্থপনা কমটিরি সদস্যগণকে প্রশক্ষিণ প্রদান করবনে।
প্রশক্ষিণের মূল আলোচ্য বষিয়গুলো ছলি র্দুযোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা বষিয়ক সন্দোই ফ্রমেওর্য়াক, র্দুযোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা, বাংলাদশেে নগর ঝুঁক,ি টকেসই উন্নয়নে জনগণকে উদ্বুদ্ধকরণ, র্দুযোগ ব্যবস্থাপনায় সরকারি কর্মচারী ও গণমাধ্যমরে ভূমকিা, র্দুযোগ ও প্রতবিন্ধতিায় সাইকো-সোসাল সার্পোট, র্দুযোগ ব্যবস্থাপনায় পকিএেসএফ ও এনজওি এর ভূমকিা, র্দুযোগ সাঁড়াদান ও পুর্নবাসন ইত্যাদ।ি 
প্রশক্ষিণ প্রদান করনে র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচবি মোঃ শাহ্ কামাল, ব্রাক বশ্বিবদ্যিালয়রে প্রফসের এমরিটোস ড. আইনুন নশিাত,  বুয়টেরে প্রফসের ড. মহেদেী আহমদে আনসারী, র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়রে অতরিক্তি সচবি ফয়জেুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর এসডজিি বষিয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ, প্রধানমন্ত্রীর র্কাযালয়রে সচবি সাজ্জাদুল হাসান, র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়রে অতরিক্তি সচবি মোঃ মোহসীন, তাসনূভা হক, সাবকে মন্ত্রপিরষিদ সচবি মোঃ আব্দুল করমি, ইউএনডপিরি সহকারী কান্ট্রি ডরিক্টের খোরশদে আলম, বপিএিটসি’ির রক্টের ড. আসলাম আলম, মন্ত্রপিরষিদ বভিাগরে সচবি (সমন্বয়) এনএম জয়িাউল হক, সডিএিমপ’ির জাতীয় প্রকল্প পরিচালক মোঃ আব্দুল কাইয়ুম প্রমুখ ।
এর র্পূবে ৩ নভম্বের র্কোসরে উদ্বোধন করা হয়। র্দুযোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচবি মোঃ শাহ্‌ কামালরে সভাপতত্বিে অনুষ্ঠতি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতথিি ছলিনে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচবি মোঃ নজবিুর রহমান। বশিষে অতথিি ছলিনে ইউএনডপি’ির কান্ট্রি ডরিক্টের সুদীপ্ত মুর্খাজী।   
#
ওমর ফারুক/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/২০৪০ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ৩০৫৬
 
বাংলাদেশ স্কাউটস-এর সর্বোচ্চ পদক ‘রৌপ্য ব্যাঘ্র অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন শিক্ষামন্ত্রী
ঢাকা, ২১ কার্তিক (৫ নভেম্বর) :
বাংলাদেশ স্কাউটস-এর জাতীয় কাউন্সিলের ৪৭তম বার্ষিক সাধারণ সভা আজ রাজধানীর ফার্মগেটে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। সভা উদ্বোধন করেন রাষ্ট্রপতি ও চিফ স্কাউট মোঃ আবদুল হামিদ। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। 
রাষ্ট্রপতি অনুষ্ঠানে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে শিক্ষামন্ত্রীকে স্কাউটস-এর সর্বোচ্চ পদক ‘রৌপ্য ব্যাঘ্র অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করেন। 
#
 
 
আফরাজুর/মাহমুদ/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৮/২০৩০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ৩০৫৪
 
টোকিও দূতাবাসে হেলেন কেলার নাটকের এককাভিনয় মঞ্চায়িত
 
টোকিও, ২১ কার্তিক (৫ নভেম্বর) :
টোকিওস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে আজ মঞ্চস্থ হয়েছে বিখ্যাত ‘হেলেন কেলার’ নাটকের এককাভিনয়। নাটকটি পরিবেশন করে বাংলাদেশের নাট্যদল ‘স্বপ্নদল’। 
স্বপ্নদলের সদস্যদের দূতাবাসে স্বাগত জানান জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা। অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত বলেন, উন্নতমানের মঞ্চ নাটক পরিবেশনে স্বপ্নদল ইতোমধ্যে সুনাম অর্জন করেছে, ফলশ্রুতিতে তাঁরা অংশগ্রহণ করেছে ‘ফেস্টিভেল টোকিও’র মতো বড় আয়োজনে। এটি নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের নাট্যশিল্পের আন্তর্জাতিক গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি করবে। 
রাবাব ফাতিমা আরো বলেন, ‘যুদ্ধ নয় শান্তি’ এই বার্তা নিয়ে স্বপ্নদলের অন্যতম নাটক ‘ত্রিংশ শতাব্দী’ বাংলাদেশসহ জাপানে প্রশংসা পেয়েছে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, দিন দিন জাপান-বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে।
অনুষ্ঠানে স্বপ্নদলের প্রতিষ্ঠাতা জাহিদ রিপনসহ দলে সদস্যগণ, উল্লেখযোগ্য সংখ্যক জাপানি, প্রবাসী বাংলাদেশি এবং দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন। নাটক শেষে জাহিদ রিপন ‘হেলেন কেলার’ নাটক সম্পর্কে উপস্থিত সকলের কাছে বর্ণনা দেন এবং জাপানিদের জন্যও তা অনুবাদ করা হয় । 
#
 
শিপলু/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/১৮৫০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ৩০৫৩
 
এখন অপরাধ করে কেউ শাস্তি এড়াতে পারে না
                                     --- আইনমন্ত্রী
ঢাকা, ২১ কার্তিক (৫ নভেম্বর) :
আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিচারপতি সিকান্দার আলী স্মৃতি বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে আইনের শাসন এবং বাংলাদেশ প্রসঙ্গ শিরোনামে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী  আনিসুল হক। উপস্থাপনায় তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের  বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়ার ফলে এখন এই নীতি ও আদর্শ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে যে, কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয় এবং অপরাধ করে ক্ষমতা বা রাজনৈতিক পরিচয়ে কোনো অপরাধী আর বিচার এড়াতে পারে না। 
উপস্থাপনায় আইনমন্ত্রী আইনের শাসনের ইতিহাস, বাংলাদেশে আইনের শাসনের মূলনীতি লঙ্ঘন এবং আইনের শাসন পুনঃপ্রতিষ্ঠার প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন। তিনি বলেন, আইনের শাসন সংবিধানের অন্যতম মূল ভিত্তি হলেও বাংলাদেশের ইতিহাসে এর ভিন্ন চিত্র দেখা যায়। বাংলাদেশে আইনের শাসনের নীতির সবচেয়ে বড় লঙ্ঘন ঘটেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যাকা-ের পর। কারণ এই হত্যাকা-ের পর খন্দকার মোস্তাক একটি ইনডেমনিটি অর্ডিনেন্স জারি করে বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের বিচারে পথ বন্ধ করে দিয়েছিলেন। এই অর্ডিনেন্স ছিল বাংলাদেশের একটি কালো আইন। প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ক্ষমতা গ্রহণের পর এই অর্ডিনেন্সকে শুধু আইনেই পরিণত করেন নি, তিনি বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের আশ্রয় দিয়েছিলেন। খুনিদের রক্ষা করেছিলেন, জামায়াতে ইসলামী এবং রাজাকারদের আইনগত বৈধতা দিয়েছিলেন। এর মাধ্যমে তিনি বঙ্গবন্ধু হত্যাকা-ের বিচার প্রার্থীদের আইনের সমান আশ্রয় লাভের অধিকার  থেকে বঞ্চিত করেছিলেন।
মন্ত্রী আরো বলেন, ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে তারা ইনডেমনিটি আইন বাতিল করে এবং বঙ্গবন্ধু হত্যাকা-ের বিচারকার্য শুরু করে। পরবর্তীতে ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত সরকার গঠন করলে সুপ্রিম কোর্টে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার বিচারের আপিল শুনানি বন্ধ হয়ে যায়। এ বিষয়ে কয়েকজন বিচারপতি আপিল শুনতে বিব্রত বোধ করেন। ২০০১ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত আইনের শাসনের নীতি প্রতিষ্ঠার বদলে জোর যার মুল্লুক তার নীতি পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হয়। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার গঠন করলে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার আপিল শুনানি গতি পায় এবং এ মামলার রায় কার্যকর করা হয়। পাশাপাশি জেল হত্যা মামলা, একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলা ও ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার বিচার করা হয়। দেশে আইনের শাসন পুনঃপ্রতিষ্ঠিত করা হয়। 
অনুষ্ঠানে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
বিচারপতি সিকান্দার আলী মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ডের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোঃ কামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান, অধ্যাপক ড. নাইমা আক্তার এবং বিচারপতি সিকান্দার আলী মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ডের দাতা সারওয়ার সুলতানা বক্তৃতা করেন।
#
 
রেজাউল/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/১৮৪০ঘণ্টা
Todays handout (4).docx Todays handout (4).docx

Share with :

Facebook Facebook