তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২২nd অক্টোবর ২০১৮

তথ্যবিবরণী 22/10/2018

তথ্যবিবরণী                                                                                               নম্বর : ২৯১৫
 
তুরস্কে ৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা উদ্যাপিত 
 
আঙ্কারা (তুরস্ক), ২২ অক্টোবর : 
 
নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে তুরস্কে বাংলাদেশ দূতাবাস, আঙ্কারায় ‘৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা’ উদ্যাপন করা হলো। দুপুরে আঙ্কারায় ওরানের মেনেক হোটেলের সম্মেলন কক্ষে ‘উন্নয়ন মেলা’ উদ্যাপন উপলক্ষে দূতাবাস বাংলাদেশের সাম্প্রতিক উন্নয়নের ওপর তথ্যভিত্তিক এক আলোচনা সভার আয়োজন করে। উন্নয়ন মেলার এ আলোচনা সভায় বাঙালি প্রবাসী ও তুরস্কে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীগণ এবং দূতাবাসে কর্মরত কর্মকর্তা কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া, উক্ত সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক উন্নয়ন বিষয়ক একটি চিত্র ও পোস্টার প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। 
 
উন্নয়ন মেলার শুরুতেই রাষ্ট্রদূত এম. আল্লামা সিদ্দীকী দূতাবাসের কর্মকর্তা কর্মচারীদের নিয়ে সম্মেলন কক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক প্রদান করেন এবং সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে ‘৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা’ শুরু হয়। অতঃপর বিভিন্ন উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশের সার্বিক অগ্রযাত্রার ওপর বিভিন্ন প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শিত হয়। সম্প্রতি মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে বাংলাদেশের উত্তরণ বিষয়ে দূতাবাস হোটেলের ছবি গ্যালারিতে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ওপর ‘উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা’ শীর্ষক একটি আলোক চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করে।
 
সমাপনী বক্তব্যের শুরুতে রাষ্ট্রদূত এম. আল্লামা সিদ্দীকী বাঙালি জাতি হিসেবে আজকে বাংলাদেশিদের বৈশি^ক অবস্থান এবং স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। অতঃপর তিনি বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ ও দূরদর্শী নেতৃত্ব বাংলাদেশের উন্নয়নের রৈখিক চিত্র উপস্থিত অতিথিদের মাঝে তুলে ধরেন। তিনি দেশের চলমান উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত হয়ে অবদান রাখার জন্য সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রবাসী ও শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান। এছাড়া, অতি সম্প্রতি অর্থনৈতিক ও সামাজিক সূচকের সব মানদ-ে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশের আত্মপ্রকাশের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি বিষয়ে বিশেষভাবে আলোকপাত করেন। তিনি এ প্রজন্মের বাংলাদেশিদের ভাগ্যবান উল্লেখ করে বলেন, নতুন এবং অগ্রসরমান বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে তাদের বিরাট ভূমিকা পালনের অবকাশ রয়েছে যা জাতির প্রত্যাশা পূরণে সহায়ক হবে। 
 
#
নাইচ/সঞ্জীব/আব্বাস/২০১৮/২১১৫ ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ২৯১৪
 
 
দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও বাস্তবায়নে ইআরপি কার্যকরী অবদান রাখবে
                                                       --- বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী
 
ঢাকা, ৭ কার্তিক (২২ অক্টোবর) :
বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও বাস্তবায়নে ইআরপি (ঊহঃবঢ়ৎরংব জবংড়ঁৎপবং চষধহহরহম) কার্যকরী অবদান রাখবে। দেশ এগিয়ে চলছে, উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আধুনিক প্রযুক্তি সংযোজন সময়ের দাবি। 
প্রতিমন্ত্রী আজ ঢাকায় বিদ্যুৎ ভবনে  ইআরপি সংযোজনের প্রাথমিক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আধুনিক-উন্নত বাংলাদেশ গড়তে প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতেই হবে। এ প্রযুক্তি আমাদের সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিত করবে।
ইআরপি বাস্তবায়িত হলে নিজেদের ড্যাশ বোর্ড থেকেই প্রয়োজনীয় তথ্য পাওয়া যাবে। ফলে অন্যের ওপর নির্ভরশীল না হয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ সম্ভব হবে। মানব সম্পদ ও এর সুষ্ঠু ব্যবহার, সরবরাহ, গ্রাহক সেবা, প্রকল্প, ক্রয়-বিক্রয়, সম্পদ ইত্যাদির সঠিক ব্যবস্থাপনায় ইআরপি তাৎপর্যময় অবদান রাখে। প্রাথমিকভাবে বিদ্যুৎ বিভাগ ও এর আওতাধীন ১৪টি সংস্থা  ইআরপি ব্যবস্থাপনার আওতাভুক্ত হবে। 
মাইক্রোসফট, কম্পিউটার সার্ভিসেস, টেকনো হেভেন ও টেক ভিশন এই চারটি সংস্থার সাথে বিদ্যুৎ বিভাগ  ইআরপি বাস্তবায়ন সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বিদ্যুৎ সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন ও মাইক্রোসফ্টের প্রতিনিধি গিয়াস উদ্দিন বক্তব্য রাখেন।
#
আসলাম/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/১৯৪০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ২৯১৩
 
 বাণিজ্যমন্ত্রীর সাথে বিদায়ি মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ
 
ঢাকা, ৭ কার্তিক (২২ অক্টোবর) :
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, দেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে রাজনৈতিক স্থিতিশিলতা প্রয়োজন। দেশের সংবিধান মোতাবেক আগামী জাতীয় নির্বাচন সঠিক সময়ে অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশন স্বাধীনভাবে নির্বাচনি কার্যক্রম পরিচালনা করবে। বর্তমান সরকার রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকবে। এ সময় সরকার শুধু রুটিন ওয়ার্ক করবে। এ নির্বাচনে দেশের সকল দল অংশগ্রহণ করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
মন্ত্রী আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ে তার অফিস কক্ষে ঢাকায় নিযুক্ত বিদায়ি মার্কিন রাষ্ট্রদূত গধৎপরধ ইবৎহরপধঃ এর সাথে মতবিনিময় করে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের বড় ব্যবসায়িক অংশিদার। বাংলাদেশের তৈরিপোশাকের সবচেয়ে বড় রপ্তানি বাজার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশে এখন তিনশত এর বেশি গ্রিন ফ্যাক্টরি রয়েছে। বিশে^র এক নম্বর ডেমিন ফ্যাক্টরি এখন বাংলাদেশে। নিরাপদ ও কর্মবান্ধব পরিবেশে এখন শ্রমিকরা কারখানায় কাজ করছে। শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। অ্যাকর্ড এবং অ্যালায়েন্সের মেয়াদ শেষ, বাংলাদেশ এখন নিজেই কারখানা নিরাপদ রাখতে সক্ষম। 
মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশের স্থিতিশিলতা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রত্যাশা করে। তিনি বলেন, সকল দলের অংশ গ্রহণে, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন সকলের প্রত্যাশা। দেশের গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে সকল রাজনৈতিক দল আন্তরিক হবেন বলে তিনি আশা করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে যাচ্ছে। তৈরিপোশাক শিল্পে অভূতপূর্ব উন্নতি সাধান করেছে। বাংলাদেশের তৈরিপোশাক আমদানিকারক হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এক নম্বরে। বাংলাদেশে মার্কিন বিনিয়োগ আছে, আগামীতে বিনিয়োগ আরো বাড়বে বলে তিনি আশ্বাস দেন। 
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শুভাশীষ বসু ও অতিরিক্ত সচিব মুন্সী সফিউল হকসহ সিনিয়র কর্মকর্তাবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
#
বকসী/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/১৮৩০ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                        নম্বর : ২৯১২

তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক

ঢাকা, ৭ কার্তিক (২২ অক্টোবর) :

            জাতীয় সংসদের তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ২৬তম বৈঠক কমিটির সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহর সভাপতিত্বে আজ জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সদস্য ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, সিমিন হোসেন রিমি ও সাইমুম সরওয়ার কমল বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

            কমিটি ‘বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা বিল ২০১৮’ বিস্তারিত আলোচনা ও পরীক্ষানিরীক্ষা শেষে চূড়ান্ত করে এবং জাতীয় সংসদের চলমান বৈঠকে উপস্থাপনের সুপারিশ করে।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ঘোষিত বাংলাদেশ বেতারে কর্মরত নিজস্ব শিল্পীদের আত্নীকরণ করে তাদের চাকুরি স্থায়ীকরণ ও পেনশন সংক্রান্ত কার্যক্রম দ্রুত নিষ্পন্ন করার সুপারিশ করা হয়।

            তথ্যসচিব আবদুল মালেকসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। 

#

 

কামাল/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০১৮/১৮১০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৯১১
 
জাতীয় সংসদের সরকারি হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক
 
ঢাকা, ৭ কার্তিক (২২ অক্টোবর) : 
জাতীয় সংসদের সরকারি হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ১০৮তম বৈঠক আজ জাতীয় সংসদের কেবিনেট কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সভাপতি ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর  বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।
 
কমিটির সদস্য মোঃ আব্দুস শহীদ, মোহাম্মদ আমানউল্লাহ, পঞ্চানন বিশ্বাস, মোঃ রুস্তম আলী ফরাজী, মোঃ শামসুল হক টুকু, ওয়াসিকা আয়েশা খান এবং ডা. আক্কাস আলী সরকার বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
 
বৈঠকে কমিটির ১৬ থেকে ২৩তম রিপোর্ট নিয়ে আলোচনা করা হয় এবং রিপোর্টগুলো চূড়ান্ত করা হয়।
 
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সংশ্লিষ্ট কর্মচারীবৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
 
#
হুদা/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০১৮/১৭৫২ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                        নম্বর : ২৯১০
 
পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত
 
ঢাকা, ৭ কার্তিক (২২ অক্টোবর) :
আজ পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মন্ত্রণালয়ের অক্টোবর মাসের মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
সভায় ঢাকার ৩৩, বেইলী রোডে ‘শেখ হাসিনা পার্বত্য চট্টগ্রাম কমপ্লেক্স’ এর নির্মাণকাজের অগ্রগতিতে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়। প্রতিমন্ত্রী এসময় পার্বত্য জেলায় চলমান বিভিন্ন প্রকল্প যথাসময়ে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার নির্দেশনা প্রদান করেন। তিনি বলেন, পার্বত্য এলাকায় বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা তৈরি করার ক্ষেত্রে এ এলাকায় ভৌগোলিক অবস্থা বিবেচনা করে নকশা পরিবর্তন, পরিমার্জনপূর্বক টেকসই উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে হবে। এখানে সব স্থাপনা শৈল্পিক ও নান্দনিক ঐতিহ্যম-িত হতে হবে যাতে পার্বত্য এলাকায় পর্যটন শিল্পের বিকাশে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।
সভায় যথাসময়ে জনবান্ধব প্রকল্প কর্মসূচি গ্রহণ ও স্বচ্ছতার ভিত্তিতে বাস্তবায়ন করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেয়া হয়। কাজের গুণগত মান নিশ্চিত করার জন্যও সবাইকে সর্তক থাকার আহ্বান জানানো হয়।
মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ নূরুল আমিনের সভাপতিত্বে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান তরুণ কান্তি ঘোষসহ পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স, পার্বত্য তিন জেলা পরিষদের নির্বাহীগণ ও বিভিন্ন সহযোগী সংস্থার প্রতিনিধিগণ সভায় উপস্থিত ছিলেন।
#
জুলফিকার/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৮/১৭৪৫ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৯০৯  
খাদ্য অধিদপ্তরের সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি 
জনবল নিয়োগের বিষয়ে অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান 
ঢাকা, ৭ কার্তিক (২২ অক্টোবর) : 
খাদ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ খাদ্য অধিদপ্তরের অধীন নন-গেজেটেড ২৪ ক্যাটাগরিতে ১১৬৬ টি শূন্যপদ পূরণের লক্ষ্যে জনবল নিয়োগের নিমিত্ত ১১.০৭.২০১৮ তারিখে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। পরীক্ষার তারিখ এখনও নির্ধারিত না হলেও কতিপয় দুষ্টচক্র ফেইসবুকে পরীক্ষার তারিখ প্রচার করছে, যা দুরভিসন্ধি ও প্রতারণা কৌশল হতে পারে বলে খাদ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে এক সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।  
কোন প্রতারকচক্রের অনৈতিক প্রলোভনে বিশ্বাস না করার জন্য খাদ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, খাদ্য অধিদপ্তরের নিয়োগের দাপ্তরিক কার্যক্রম অব্যাহত আছে। পরীক্ষার তারিখ নির্ধারিত হলে আবেদনকারীকে সরাসরি মোবাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে জানানো হবে এবং খাদ্য অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটেও (িি.িফমভড়ড়ফ.মড়া.নফ) তা প্রকাশ করা হবে।    
#
সুমন/অনসূয়া/জসীম/আসমা/২০১৮/১৬২০ ঘণ্টা 
 
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৯০৭    
জাপানে ফ্যাশন ওয়ার্ল্ড টোকিও-২০১৮ এ অংশ নিয়েছে বাংলাদেশ 
টোকিও, ২২ অক্টোবর : 
জাপানের রাজধানী টোকিওতে ২২ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া ফ্যাশন ওয়ার্ল্ড টোকিও-২০১৮ এ অংশ নিয়েছে বাংলাদেশ। মেলা চলবে আগামী ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত। সকালে মেলায় বাংলাদেশি প্যাভিলিয়নের উদ্বোধন করেন জাপানে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা। পরে তিনি মেলায় বাংলাদেশের স্টলগুলো পরিদর্শন করেন এবং ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলেন।
বাংলাদেশের ৮টি তৈরি পোশাক ও চামড়াশিল্প প্রতিষ্ঠান টোকিও বিগসাইটে অনুষ্ঠিত এই মেলায় অংশগ্রহণ করছে। পোশাক প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলো তাদের আধুনিক ও নতুন ডিজাইনের পোশাকসামগ্রী এবং চামড়াশিল্প প্রতিষ্ঠানসমূহ বিভিন্ন রুচিসম্মত ও উন্নতমানের দ্রব্যাদির প্রদর্শন করছে। 
টোকিওস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানী উন্নয়ন ব্যুরো মেলায় বাংলাদেশি উদ্যোক্তাদের সহযোগিতা করছে।
উদ্বোধনের পর জাপানের বাজারে বাংলাদেশের পোশাকখাতের সম্ভাবনা নিয়ে একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা বলেন বাংলাদেশের তৈরি পোশাক বিশেষ করে নিটওয়্যার প্রতিষ্ঠানগুলো অত্যন্ত যতœসহকারে জাপানের জন্য পণ্য তৈরি করছে এবং নিটওয়্যার জাপানের এক নাম্বার রপ্তানিপণ্য হওয়ায় বাংলাদেশ গর্ববোধ করে। তিনি আরো জানান, জাপানের মোট তৈরি পোশাক আমদানির শতকরা ৫.৯ ভাগ সরবরাহ করে বাংলাদেশ। এ বছর জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত জাপানের পোশাকখাতে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি ১২৮.২%, যা রপ্তানিকারক দেশসমূহের মধ্যে সর্বোচ্চ বলে তিনি উল্লেখ করেন।  
রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশের পোশাক শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলো বিশ্বের স্বনামধন্য ব্রান্ডের জন্য পণ্য তৈরি করছে। এই মেলা জাপানে বাংলাদেশি পণ্যসামগ্রীর বাজার সম্প্রসারণে এবং জাপান-বাংলাদেশ বাণিজ্য সম্পর্ক আরো গভীর করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে রাষ্ট্রদূত আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে জেট্রোর গবেষণা বিষয়ক ব্যবস্থাপক তমোফুমি নিশিজাওয়া, ইউনিডো’র শিল্প উন্নয়ন কর্মকর্তা ইকুয়ে তোশিনাগা, জাপান টেক্সটাইল ইম্পোরটারস অ্যাসোসিয়েশন এর সিনিয়র গবেষক ইয়োশিয়াকি কামিয়ামা এবং ক্যাট অ্যাপারেল বাংলাদেশ’র সিনিয়র ব্যবস্থাপনা পরিচালক আতসুইউকি সানো উপস্থিত ছিলেন। আলোচকগণ বাংলাদেশে বিনিয়োগের উপযুক্ত পরিবেশ, বাংলাদেশ সরকার প্রদত্ত সুযোগ সুবিধাসমূহ এবং  জাপানে বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের সম্ভাবনা বিশ্লেষণ করেন। 
#
শিপলু/অনসূয়া/জসীম/আসমা/২০১৮/১৫২০ ঘণ্টা  
 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৯০৬   

জনগণের জীবনমানের গুণগত পরিবর্তন এনেছে সরকার 
                                      - মাসুদ বিন মোমেন
নিউইয়র্ক, ২২ অক্টোবর :

গত ১০ বছরে সরকার ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বিনির্মাণ ও অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জনের মাধ্যমে জনগণের জীবনমানে গুণগত পরিবর্তন এনেছে। বাংলাদেশের উন্নয়নে এখন আইসিটি একটি কার্যকর বাহন। ১৯ অক্টোবর জাতিসংঘের চলতি ৭৩ তম অধিবেশনের দ্বিতীয় কমিটিতে ‘টেকসই উন্নয়নের জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি’ বিষয়ে প্রদত্ত বক্তব্যে একথা বলেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। 
দেশব্যাপী তথ্যপ্রযুক্তির ব্যাপক অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘এর ফলে ইন্টারনেট ব্যবহারের হার বৃদ্ধি পেয়েছে বহুগুণে। অনলাইনে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি ও সামাজিক সুরক্ষাসেবা প্রদান করা হচ্ছে। ইন্টারনেট ভিত্তিক জনসেবার ব্যাপক প্রসারের ফলে তৃণমূল পর্যায়ে সৃষ্টি হচ্ছে নতুন নতুন কর্মসংস্থান। দুর্নীতি ও অনিয়ম ব্যাপকভাবে হ্রাস পেয়েছে আর সুশাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে’।
স্থায়ী প্রতিনিধি আরো বলেন, “আমরা ৭ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় আইসিটিকে সর্বাধিক অগ্রাধিকার দিয়েছি বিশেষ করে গ্রামীণ অর্থনৈতিক উন্নয়নেরক্ষেত্রে। আমরা ইন্টারনেট ভিত্তিক আর্থিক ব্যবস্থাপনার ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছি যাতে নারী ও প্রান্তিক এলাকার জনগণ তাদের অর্থনৈতিক উন্নয়নে সহজভাবে এর ব্যবহার করতে পারে এবং অসমতা হ্রাস পায়। বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মোবাইল ভিত্তিক আর্থিকসেবা এক্ষেত্রে তাৎপর্যপূর্ণ অবদান রাখছে। ব্লুইকোনমি’র প্রসারে কিভাবে তথ্যপ্রযুক্তিকে কাজে লাগানো যায় সে বিষয়েও আমরা পদক্ষেপ নিচ্ছি’।
আইসিটিপার্ক স্থাপনের মাধ্যমে সফট্ওয়্যার নির্মাণ সামর্থ্য বৃদ্ধির জন্য সরকার প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে মর্মে জানান রাষ্ট্রদূত মাসুদ। তিনি বলেন, ‘শুধু জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলার সামর্থ্য অর্জন বা দুর্যোগ ঝুঁকিহ্রাসেরক্ষেত্রেই নয়, সবুজ প্রবৃদ্ধি ও কার্বনমুক্ত শিল্পায়নের প্রসারেও আমরা আইসিটি ব্যবহারে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ’।
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের মাধ্যমে মহাশূন্যের জগতে বাংলাদেশের বিচরণের কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘আমাদের প্রত্যাশা, এই স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ঝুঁকি ও প্রতিকূলতা মোকাবিলার সামর্থ্য অর্জনে জনগণকে আমরা আরো সক্ষম করে গড়ে তুলতে পারবো’।
বাংলাদেশ চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের সাক্ষী হতে যাচ্ছে। বিশ্বের দেশসমূহের মাঝে বিদ্যমান তথ্যপ্রযুক্তিগত ব্যাপক ব্যবধান এই শিল্পবিপ্লবে অসমতা সৃষ্টি করতে পারে। এ সঙ্কটের সমাধানে আন্তর্জাতিক সহযোগিতার মাধ্যমে নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার, প্রযুক্তিগত ব্যবধানহ্রাস, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধে আইসিটির ব্যবহার ইত্যাদি ক্ষেত্রে উন্নয়নশীল দেশসমূহের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানান রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন।
#
অনসূয়া/জসীম/আসমা/২০১৮/১০৩০ ঘণ্টা 

Todays handout (6).docx Todays handout (6).docx

Share with :

Facebook Facebook