তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৭ জানুয়ারি ২০১৮

তথ্যবিবরণী ৭ জানুয়ারি ২০১৮

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ৬৯
 
আমার সব সাফল্য প্রধানমন্ত্রীর, দুর্নীতির সাথে আপোশ নয়
                            --- তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম

ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) :
তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, ‘আমার এযাবৎকালের সব সাফল্য বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের। এখনকার নতুন প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বও আমি সততা, নিষ্ঠা, মেধা ও দক্ষতার সাথে পালন করব। দুর্নীতির সাথে কখনো আপোশ করিনি, করব না।’
আজ তথ্য মন্ত্রণালয়ে যোগদান করে তথ্যমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ ও মন্ত্রণালয়ে পরিচিতি সভার পরপরই তথ্য অধিদফতরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এসময় প্রতিমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, ‘তারানা হালিম আমার রাজনীতি, সংগ্রাম ও সংসদের পুরনো সাথী ও সহকর্মী। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় ও সংসদে তাঁর ভূমিকা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। একসাথে রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব সুচারুরূপে পালন করব আমরা।’
তথ্যসচিব মোঃ নাসির উদ্দিন আহমেদ, প্রধান তথ্য অফিসার কামরুন নাহারসহ মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের কর্মকর্তারাও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।
উপস্থিত সাংবাদিকদের কাছে নিজেকে একজন কর্মী হিসেবে বর্ণনা করে তারানা হালিম বলেন, ‘মনে রাখবেন, আমার পূর্বের দপ্তরের পূর্ণ মন্ত্রী ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। আমার যা কিছু সাফল্য তা শেখ হাসিনার সাফল্য। আমি যেটুকু অতীতে করতে পেরেছি তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অর্জন। আমি একজন কর্মী, কাজ করে যাব। দেশ, দেশের মানুষ ও প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যাশা পূরণ করার চেষ্টা করব। আপনারা সাথে থাকবেন।’
তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমি কম কথা ও বেশি কাজে বিশাসী। কাজ শেষে শেখ হাসিনা সরকারের পক্ষে সকল কাজ বুঝিয়ে দেব, তারপর কথা বলব। প্রধানমন্ত্রী আমাকে যখন যে দায়িত্বই দেবেন সততা, দক্ষতা ও মেধা দিয়ে সে কাজই সঠিকভাবে করব।’
এসময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পূর্বতন মন্ত্রণালয়ের বিষয়ে নতুন করে কোনো মন্তব্য করা শোভন হবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে আমি আমার আগের কাজের একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণ তুলে ধরছি, কিন্তু পূর্বতন মন্ত্রণালয়ের বিষয়ে নতুন করে কোনো মন্তব্য করে শোভনতার মাত্রা আমি অতিক্রম করব না।’
পূর্বতন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের কার্যাদি তুলে ধরে তারানা হালিম বলেন, গত আড়াই বছরে মোবাইল গ্রাহক সংখ্যা ১৪ কোটি ৭১ লাখে, ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা ৭ কোটি ৭২ লাখে, টেলিঘনত্ব ৮৬৬ ও ইন্টারনেট ঘনত্ব ৪৭৬২ এ উন্নীত হয়েছে।
এবছরের ২৭ থেকে ৩১ মার্চের মধ্যে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ হবে বলে আশা করা যায়। প্রতিমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের চুক্তি স্বাক্ষর থেকে শুরু করে স্যাটেলাইটের ১০০ নির্মাণ কাজ, স্যাটেলাইট পরিচালনার জন্য কোম্পানি গঠন, গাজীপুর ও বেতবুনিয়ায় স্যাটেলাইটের গ্রাউন্ড স্টেশন নির্মাণ কাজ প্রায় সম্পন্ন হয়েছে।

চলমান পাতা -২

 

= ২ =
এছাড়া ২য় সাবমেরিন ক্যাবলে দেশের যুক্ত হওয়া, কুয়াকাটায় ২য় সাবমেরিন ক্যাবল এর ল্যান্ডিং স্টেশন নির্মাণ কাজ শতভাগ সম্পন্ন ও উদ্বোধন, রবি ও এয়ারটেলকে একীভূত করার মাধ্যমে বাজারে ভারসাম্য সৃষ্টি, আইক্যান (ওঈঅঅঘ) কর্তৃক ডট বাংলা ডোমেইন নেইম ২ বছর বিরতির পর পুনরায় যোগাযোগ স্থাপন করে বাংলাদেশের অনুকূলে বরাদ্দ, কলড্রপে (একের অধিক) অপারেটর কর্তৃক কল ফেরত নিশ্চিত করা হয়েছে, জানান তিনি।
অর্থ মন্ত্রণালয়ের সাথে নিবিড় যোগাযোগের মাধ্যমে দেশে তৈরি মোবাইল ফোন উৎপাদনের অনুকূলে কর কাঠামো তৈরি, দেশের প্রথম স্মার্ট ফোন তৈরির কারখানা স্থাপন ও উৎপাদন শুরু, মাত্র ৫ মাসে ১১ কোটি সিম এর বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন, সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক মনিটরিং প্লাটফর্ম স্থাপন, ডাক বিভাগের ২৩টি পয়েন্টে ই কমার্স চালু, ই-কমার্স জোরদার করার জন্য ১১৮টি যানবাহন যুক্ত করা, এজেন্ট ব্যাংকিং-এর পাইলট প্রজেক্ট চালু ও গণহত্যার ঐতিহাসিক দলিল হিসেবে ডাকটিকিট এলবাম প্রকাশের কথাও তুলে ধরেন তারানা হালিম।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, এক বছরের মধ্যে ব্যাংকিং সেবার আওতার বাইরে থাকা ৩ কোটি মানুষকে ব্যাংকিং সেবায় আনার লক্ষ্যে প্রণীত ডাক টাকার সফটওয়ার ৩ মাসের মধ্যে বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করবে। ডাক বিভাগ এসোসিও (অঝঙঈওঙ), উইটসা (ডওঞঝঅ), ই-এশিয়া (ঊ-অঝওঅ) পুরস্কার পেয়েছে ও ইউনিভার্সাল পোাস্টাল ইউনিয়নের (টচট) সদস্য হয়েছে। টেলিকম নীতিমালা মন্ত্রিসভায় অনুমোদন হয়েছে, টেলিটকের রি-ব্র্যান্ডিং এর মাধ্যমে রিটেইলার শাখা ৩৬,০০০ থেকে ৫৬,০০০টিতে বৃদ্ধি ও টেলিটকের কাস্টমার কেয়ার সেন্টারের সংখ্যা ৭৪ থেকে ৯৭ তে উন্নীত হয়েছে। টেলিটকের এমইপি (গঊচ) প্রকল্পের মাধ্যমে জুনের মধ্যে যুক্ত হবে ১,৭০০ টি বিটিএস (ইঞঝ) ও ১,৫০০টি নোড-বি (ঘঙউঊ-ই), ফলে টেলিটকের নেটওয়ার্ক আরো উন্নত হবে। ফোর-জি গাইডলাইন অনুমোদন হয়েছে।
লোকসানি প্রতিষ্ঠানকে ছাড় করানো বিষয়ে অগ্রগতি তুলে ধরে তিনি বলেন, টেশিসের ২৭ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ প্রবৃদ্ধি, খুলনা কেবলের নেট সর্বোচ্চ মুনাফা, ডাক বিভাগ লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অধিক আয় (যা শেষ ৪ মাসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫০ কোটি টাকা বেশি), মোবাইল নেটওয়ার্কের মানোন্নয়নে স্পেকট্রাম অকশন টেক নিউট্র্যালিটি প্রদান ও ৬৪০০০ কিঃমিঃ অপটিক্যাল ফাইবার কেবল স্থাপিত হয়েছে।
বার্ষিক প্রকল্প বাস্তবায়নে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ পরপর দু’বার ১ম স্থানে ছিল উল্লেখ করে তারানা হালিম বলেন, টেলিটকের বহু কাক্সিক্ষত ৬০০ কোটি টাকার প্রকল্প অর্থ মন্ত্রণালয়ের ছাড় পেয়েছে, এর ফলে সকল উপজেলা নেটওয়ার্কের আওতায় আসবে। শুরু হবে পরিবর্তনের পালা।
#
আকরাম/সেলিম/ফারহানা/মোশারফ/জয়নুল/২০১৭/২০৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর : ৬৮
 
পরিবেশ ও বন মন্ত্রী হিসেবে আনিসুল ইসলাম মাহমুদের দায়িত্ব গ্রহণ

ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) :
পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের নবনিযুক্ত মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ আজ মন্ত্রণালয়ে যোগদান করেন। এর আগে তিনি পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন। উল্লেখ্য, গত ৩ জানুয়ারি মন্ত্রিসভায় রদবদলের পর তাঁর ওপর পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব অর্পিত হয়।  
সংক্ষিপ্ত জীবনী
আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ১৯৪৭ সালে চট্টগ্রামের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মরহুম সিরাজুল ইসলাম মাহমুদ, মাতা সাজেদা বেগম চৌধুরী। তাঁর দাদা খান সাহেব আব্দুল হালিম চৌধুরী এবং নানা ড. মোঃ সানাউল্লাহ, বার-এট্-ল, পিএইচডি।
আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ১৯৬৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে সম্মানসহ বিএ ডিগ্রি অর্জন করেন এবং ইসলামাবাদ কায়েদে আজম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে এমএসসি করেন। তিনি যুক্তরাজ্যের এসেক্স বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনার জন্য কমনওয়েলথ বৃত্তি অর্জন করেন এবং ১৯৭২ সালে সেখান থেকে অর্থনীতিতে এমএ ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৭৫ সালে তিনি যুক্তরাজ্যের (লন্ডন) লিংকনস্ ইন, থেকে র্বা-এ ডাক পান।
তিনি ১৯৭৩ থেকে ১৯৭৭ পর্যন্ত হাটফোর্ডশায়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতিতে একজন লেকচারার ছিলেন। ১৯৭২ থেকে ১৯৭৩ পর্যন্ত তিনি যুক্তরাজ্যে পূর্ব এংলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিভাগে সিনিয়র রিসার্চ এসোসিয়েট ছিলেন। ১৯৬৯ থেকে ১৯৭০ তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগে লেকচারার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
জনাব মাহমুদ ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদীয় আসন-২৮২ (চট্টগ্রাম-৫) থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ২০১৪ সালের ১২ই জানুয়ারি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত হন।
এছাড়াও তিনি ১৯৭৯, ১৯৮৬, ১৯৮৮ ও ২০০৮ সালে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। নবম জাতীয় সংসদের সংসদ সদস্য হিসেবে তিনি প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। 
জনাব মাহমুদ ১৯৮৪ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত কেবিনেট মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৮ থেকে ১৯৯০ এর মধ্যে জনাব মাহমুদ পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তার পূর্বে, তিনি ১৯৮৮ সালে শিক্ষামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন এবং সেচ, পানি উন্নয়ন ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৮৫ থেকে ১৯৮৮ পর্যন্ত সেচ, পানি উন্নয়ন ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ছিলেন। এই সময়কালে তিনি স্বল্পকালের জন্য তথ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বেও ছিলেন। ১৯৮৫ সালে তিনি শ্রম ও জনশক্তি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। 
তিনি ১৯৮৯ থেকে ১৯৯০ পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের সভাপতি ছিলেন। ১৯৮৭ থেকে ১৯৯০ পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ ফ্লাইং ক্লাব লিমিটেডের সভাপতি ছিলেন। 
জনাব আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক। ফটোগ্রাফি, ক্রিকেট এবং ফ্লায়িং তাঁর শখ।
#
পাশা/সেলিম/ফারহানা/শেফায়েত/মোশারফ/জয়নুল/২০১৭/১৯৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ৬৭
 
বাংলাদেশি-ব্রিটিশদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর


ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) :
বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যুক্তরাজ্যের নাগরিকদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য উৎসাহ দিতে টাওয়ার হ্যামলেটসের স্পিকার সাবিনা আখতারকে (ঝধনরহধ অশযঃধৎ) আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।
দশ দিনের শুভেচ্ছাসফরে বাংলাদেশে আসা টাওয়ার হ্যামলেটসের লন্ডন বারোর স্পিকার আজ ঢাকায় সচিবালয়ে তথ্যমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতে মিলিত হলে মন্ত্রী তাকে এ আহ্বান জানান। সেন্টার ফর 
নন-রেসিডেন্ট বাংলাদেশিস (এনআরবি) এর চেয়ারম্যান এম এস শেকিল চৌধুরী, সংস্থার সদস্য ফকর আলী ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা এসময় উপস্থিত ছিলেন।
মন্ত্রী বলেন, এদেশীয় ব্রিটিশ নাগরিকরা যুক্তরাজ্যের অর্থনীতিতে যে বিশাল অবদান রাখছেন তা সেদেশের সরকারের স্বীকৃতি অর্জন করেছে। এখন সময় এসেছে বাংলাদেশে বিনিয়োগের বিষয়ে তাদের নজর দেয়া। শেখ হাসিনার সরকার দেশে বিনিয়োগের পরিবেশ তৈরি করেছে, তার সুফল গ্রহণ করতে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূতদের উৎসাহিত করা আবশ্যক।
স্পিকার সাবিনা আখতার তথ্যমন্ত্রীর সাথে একমত পোষণ করেন ও হাসানুল হক ইনুকে লন্ডন সফরের আমন্ত্রণ জানান। 
#
আকরাম/সেলিম/ফারহানা/মোশারফ/জয়নুল/২০১৭/১৯৩৫ঘণ্টা
 

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ৬৬ 
জাতীয় সংসদের কার্য উপদেষ্টা কমিটির বৈঠক 
ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) : 
দশম জাতীয় সংসদের কার্য উপদেষ্টা কমিটির ১৯তম বৈঠক আজ জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সভাপতি ও জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। কমিটির সদস্য, সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
বৈঠকে কার্যপত্র উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব ড. আবদুর রব হাওলাদার। বৈঠকে সদস্যবৃন্দ ১৯তম (২০১৮ সালের ১ম) অধিবেশনের স্থায়িত্বকাল ও আলোচনার বিষয়বন্তু নিয়ে আলোচনা করেন। বৈঠকে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়, অধিবেশন ৭ জানুয়ারি রোববার শুরু হয়ে প্রতি শুক্রবার, শনিবার, সরকারি ছুটি এবং ৮ জানুয়ারি, ২০ ও ২২ ফেব্রুয়ারি ব্যতীত আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ পর্যন্ত চলবে এবং প্রতি কার্যদিবসে অধিবেশন শুরু হবে বিকেল সাড়ে চারটায়। ১০ জানুয়ারি সংসদ অধিবেশন শুরু হবে বাদ মাগরিব। এ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির বক্তব্যের ওপর ৪৫ ঘণ্টা ধন্যবাদ প্রস্তাব আলোচনার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। প্রয়োজনে স্পিকার এ সময়সীমা বাড়াতে বা কমাতে পারবেন।
এ অধিবেশনে ৫টি সরকারি বিলের নোটিশ পাওয়া গেছে এবং গত অধিবেশনে অনিষ্পন্ন ১৫টিসহ মোট ২০টি সরকারি বিল রয়েছে- যার মধ্যে ৫টি পাসের অপেক্ষায়, ১০টি কমিটিতে পরীক্ষাধীন এবং উত্থাপনের অপেক্ষায় রয়েছে ৫টি বিল। এ অধিবেশনে উত্থাপনের জন্য কোনো বেসরকারি বিলের নোটিশ পাওয়া যায়নি। পূর্বে প্রাপ্ত ও অনিষ্পন্ন ৯টি বেসরকারি বিল রয়েছে।
কমিটির সদস্য সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ডেপুটি স্পিকার মোঃ ফজলে রাব্বী মিয়া, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ, সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ এবং আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বৈঠকে অশগ্রহণ করেন।
বৈঠকে সংসদ সচিবালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। 
#
তারিক/সেলিম/ফারহানা/মোশারফ/রেজাউল/২০১৮/১৯০০ ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ৬৫
 
আলাদা সচিবালয় এই মূহুর্তে ভাবা হচ্ছে না
                               --- আইনমন্ত্রী
ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) :
আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে যে অবস্থা বিদ্যমান আছে সেটাই বিচার বিভাগের জন্য শ্রেয়। বিচার বিভাগের জন্য আলাদা সচিবালয় করার বিষয়ে তিনি বলেন, পৃথিবীর কোথাও কোনো গণতান্ত্রিক, অগণতান্ত্রিক দেশে বা ১৯৩টি দেশের মধ্যে কোথাও বিচার বিভাগের জন্য আলাদা সচিবালয় নেই। তাই এ মুহূর্তে এটা ভাবা অবাস্তব। তবে ভবিষ্যতে হবে কি হবে না সেটা বলা যাবে না। 
আজ ঢাকায় বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে জেলা ও দায়রা জজ এবং সমপর্যায়ের বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাদের জন্য ২১তম জুডিসিয়াল এডমিনিস্ট্রেশন ট্রেনিং কোর্সের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন মন্ত্রী। 
মন্ত্রী বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করার পরে এবং ৩ নভেম্বর ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করার পরে বাংলাদেশে একটা ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করা হয়েছিল। সেটা ২১ বছর বিদ্যমান ছিল। বাংলাদেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর এই হত্যার ব্যাপারে ২১ বছরে কোনো মামলা হয় নাই। তখন কেউ সুয়োমটো রুল বা পাবলিক ইন্টারেস্ট লিটিগেশ করে নাই। 
ষোড়শ সংশোধনী রিভিউয়ের বিষয়ে তিনি বলেন, রিভিউ করার অধিকার সংবিধান প্রত্যেককেই দিয়েছে। সেখানে সরকারকে বাদ দেয়নি। সেই অধিকার নিয়ে রিভিউ করা হয়েছে। এখন আপিল বিভাগ যখন মনে করবেন এটার শুনানি করবেন। তারা তারিখ দিলেই শুনানি হবে। তিনি বলেন, সরকারও চায় এই বিতর্কের অবসান হোক, এই মামলা নিরসন হোক। শৃঙ্খলাবিধি করার বিষয়ে তিনি বলেন, শৃঙ্খলাবিধি করার ব্যাপারে সংবিধানে রাষ্ট্রপতিকে যে ক্ষমতা দেওয়া আছে ঠিক সেভাবেই তা করা হয়েছে এবং সুপ্রিম কোর্টের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেই এই শৃঙ্খলাবিধি করা হয়েছে। 
অনুষ্ঠানে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, বর্তমানে দেশের আদালতগুলোতে প্রায় ৩০ লাখ মামলা বিচারাধীন আছে। এ মামলার জট কমিয়ে আনা বিচার বিভাগ ও সরকারের জন্য অন্যতম চ্যালেন্স। তাই এ চ্যালেন্স মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার উল্লেখযোগ্য কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। দেওয়ানি কার্যবিধি এবং অর্থঋণ আদালত আইন সংশোধনের মাধ্যমে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি পদ্ধতির বিধান অন্তর্ভুক্ত করে দ্রুত বিচার নিষ্পত্তির সহায়ক আইন করা হয়েছে। 
বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিচারপতি খোন্দকার মূসা খালেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আইন ও বিচার বিভাগের সচিব আবু সালেহ শেখ মোঃ জহিরুল হকও বক্তৃতা করেন।
#
রেজাউল/সেলিম/ফারহানা/শেফায়েত/মোশারফ/জয়নুল/২০১৭/১৯২০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                            নম্বর : ৬৪

বিশ্ব ইজতেমা ২০১৮ উপলক্ষে 
ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বিকল্প রাস্তা ও পার্কিং নির্ধারণ

ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) :   
          গাজীপুরের টঙ্গীতে অনুষ্ঠিত বিশ্ব ইজতেমা ২০১৮ আগামী  ১২ থেকে ১৪ জানুয়ারি ও ১৯ থেকে ২১ জানুয়ারি দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হবে। ভিভিআইপি, ভিআইপিসহ উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাগণসহ দেশি-বিদেশি প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লির আখেরি মোনাজাতে অংশগ্রহণের মাধ্যমে ইজতেমা সমাপ্ত হবে। ইজতেমায় আখেরি মোনাজাতে অংশগ্রহণের জন্য ধর্মপ্রাণ হাজার হাজার মুসুল্লি পায়ে হেঁটে ইজতেমা ময়দানে যাতায়াত করবে বিধায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চান্দনা চৌরাস্তা থেকে টঙ্গী ব্রিজ পর্যন্ত, কালীগঞ্জ-টঙ্গী মহাসড়কের মাজুখান ব্রিজ থেকে স্টেশনরোড ওভার ব্রিজ পর্যন্ত এবং কামারপাড়া ব্রিজ থেকে মুন্নু টেক্সটাইল মিলগেট পর্যন্ত সড়কপথ বন্ধ করার প্রয়োজন হবে। এ লক্ষ্যে ১৩ জানুয়ারি ও ২০ জানুয়ারি দিবাগত রাত ১০টা থেকে নি¤œবর্নিত প্রবেশপথসমূহে সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে।
নিলতলী রেলক্রসিং, টঙ্গী, গাজীপুর; কামারপাড়া ব্রিজ, টঙ্গী, গাজীপুর; ভোগড়া বাইপাস, জয়দেবপুর, গাজীপুর; এছাড়া পন্টুন সেতু নির্মাণ ও মুসুল্লিদের চলাচলের সুবিধার্থে কামারপাড়া সেতু থেকে টঙ্গী সেতু পর্যন্ত তুরাগ নদীতে সকল প্রকার নৌযান চলাচল ও নোঙর করা ৯ জানুয়ারি থেকে ২১ জানুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট নৌযানসমূহ টঙ্গী সেতুর পূর্ব পার্শ্বে এবং কামারপাড়া সেতুর উত্তর পার্শ্বে নোঙর করতে পারবে। 
ইজতেমা চলাকালীন জয়দেবপুর চান্দনা চৌরাস্তা হয়ে আগত মুসুল্লিদের বহনকারী যানবাহন পার্কিং এর জন্য টঙ্গীস্থ কাদেরীয়া টেক্সটাইল মিল কম্পাউন্ড, মেঘনা টেক্সটাইল মিলের পার্শ্বের রাস্তার উভয় পাশে, শফিউদ্দিন সরকার একাডেমী মাঠ প্রাঙ্গণ, শফিউদ্দিন সরকার একাডেমী মাঠের উত্তর পার্শ্বে টিআইসি মাঠ, জয়দেবপুর থানাধীন ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজ মাঠ, চান্দনা চৌরাস্তা হাইস্কুল মাঠ, জয়দেবপুর  চৌরাস্তা ট্রাকস্ট্যান্ড এবং নরসিংদী কালীগঞ্জ হয়ে আগত মুসুল্লিগণের বহনকারী যানবাহন টঙ্গীস্থ  কে-টু(নেভী) সিগারেট ফ্যাক্টরি সংলগ্ন খোলা জায়গায় গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। 
ইজতেমায় আগত মুসুল্লিগণের যানবাহন পার্কিংয়ের জন্য ১১ জানুয়ারি  বিকেল ৬ টা থেকে  উল্লিখিত মহাসড়ক, সড়কগুলো পরিহার করে বৃহত্তর জেলাসমূহ থেকে ঢাকাগামী যানবাহন জয়দেবপুর থানাধীন চান্দনা চৌরাস্তা হয়ে টঙ্গী হয়ে ডিএমপি এলাকায় প্রবেশের পরিবর্তে জয়দেবপুর চৌরাস্তা, কোনাবাড়ী, চন্দ্রা ত্রিমোড়, বাইপাইল, নবীনগর, আমিনবাজার হয়ে চলাচল করার জন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া আগামী ১১ থেকে ১৩ জানুয়ারি এবং ১৮ থেকে ২০ জানুয়ারি ২০১৮ পর্যন্ত বাস্তুহারা থেকে টঙ্গী ব্রিজ পর্যন্ত মহাসড়ক, স্টেশনরোড ওভারব্রিজ থেকে টঙ্গী রেলগেট ও মুন্নু টেক্সটাইল মিল থেকে কামারপাড়া ব্রিজ পর্যন্ত সড়কে যানজট এড়ানোর জন্য মটরযান ব্যতীত রিকশা, ভ্যান ইত্যাদি চলাচল বন্ধ থাকবে।
#
রাহাত/সেলিম/ফারহানা/মোশারফ/রেজাউল/২০১৮/১৮৩৮ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                নম্বর : ৬৩ 
শামিম আল-রাজির মৃত্যুতে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীর শোক
ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) : 
নাটোরের সিংড়া পৌরসভার সাবেক মেয়র ও মিউনিসিপাল এসোসিয়েশন অভ্ বাংলাদেশের সাবেক মহাসচিব শামিম আল-রাজির মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।
আজ এক শোকবার্তায় তিনি মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।
শোকবার্তায় মন্ত্রী মিউনিসিপাল এসোসিয়েশন অভ্ বাংলাদেশে শামিম আল-রাজির অবদান স্মরণীয় হয়ে থাকবে বলে উল্লেখ করেন। 
উল্লেখ্য, ৫০ বছরবয়স্ক শামিম আল-রাজি শনিবার রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তাকে হাসপাতালে  ভর্তি করা হয়। চিকিৎসারত অবস্থায় আজ তিনি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। 
#
 
মারুফ/সেলিম/ফারহানা/মোশারফ/রেজাউল/২০১৮/১৮৩৬ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ৬২  
নবনিযুক্ত প্রতিমন্ত্রীর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী
প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে
ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) : 
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এজন্য শিক্ষক-অভিভাবকদের সচেতনতা ও দায়িত্ববোধ আরো বাড়াতে হবে। প্রশ্ন ফাঁসরোধের ব্যাপারে দৃঢ়প্রত্যয় ব্যক্ত করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এ ব্যাপারে কোনো আপোশ করা হবে না।
শিক্ষামন্ত্রী আজ ঢাকায় সরকারি পরিবহন পুল ভবনে মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগে নবনিযুক্ত প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলীকে দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন। কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ এ সংবর্ধনার অয়োজন করে। 
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, কারিগরি ও নারী শিক্ষার উন্নয়নে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে রোলমডেল। ইতোমধ্যে শতকরা ১৪ ভাগ শিক্ষার্থী কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষায় পড়াশোনা করছে। ২০২০ সালের মধ্যে তা শতকরা ২০ ভাগে উন্নীত হবে। মাদ্রাসা শিক্ষায়ও অনেক পরিবর্তন এসেছে, আধুনিকায়ন করা হয়েছে। তিনি বলেন, উন্নত দেশসহ দরিদ্র দেশগুলোর সমস্যা হচ্ছে মানসম্মত শিক্ষার অভাব। এসডিজি-৪ এর লক্ষ্য হচ্ছে মানসম্মত শিক্ষা অর্জন। শিক্ষার্থীদের যোগ্য কর্মী হিসেবে গড়ে তোলা।
দুর্নীতির ব্যাপারে জিরো টলারেন্স নীতির উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরকে আধুনিকায়ন করা হয়েছে। দুর্নীতির মূলোৎপাটন করার যে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, তা অব্যাহত থাকবে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান দৃঢ়।
শিক্ষামন্ত্রী কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগে নবনিযুক্ত প্রতিমন্ত্রীকে শিক্ষা পরিবারের একজন সদস্য হিসেবে স্বাগত জানান। এসময় প্রতিমন্ত্রী শিক্ষার উন্নয়নে একসাথে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। 
কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ আলমগীর অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। 
এর আগে নবনিযুক্ত প্রতিমন্ত্রীকে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন দপ্তর-সংস্থার প্রধানগণ।
#
আফরাজুর/সেলিম/ফারহানা/মোশারফ/রেজাউল/২০১৮/১৮৩৩ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ৬১

 
প্রেস ব্রিফিংয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী
মার্চে এলডিসি থেকে ডেভেলপিং কান্ট্রিতে উন্নীত হবে বাংলাদেশ

ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) :
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, চলতি ২০১৮ সালের মার্চ মাসে নি¤œ মধ্যমআয়ের দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল (ডেভেলপিং) দেশে পরিণত হবে বাংলাদেশ। ডেভেলপিং কান্ট্রিতে পরিণত হতে যে তিনটি শর্ত পূরণ করতে হয়, তা বাংলাদেশ প্রায় অর্জন করেছে। প্রথমত মাথাপিছু আয় ১২৪২ মার্কিন ডলার হতে হয়, বর্তমানে বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ১৬১০ মার্কিন ডলার। দ্বিতীয়ত মানবসম্পদের উন্নয়ন অর্থাৎ দেশের ৬৬ ভাগ  মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নত হতে হয়, বর্তমানে বাংলাদেশের ৭০ ভাগ মানুষের জীবনযাত্রার মানের উন্নতি হয়েছে। তৃতীয়ত অর্থনৈতিকভাবে ভঙ্গুর না হওয়ার মাত্রা ৩০ ভাগ হতে হবে, বাংলাদেশে এ মুহূর্তে তা ২৬ ভাগ অর্জন করেছে। 
মন্ত্রী আজ ঢাকায় বাংলাদেশ সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে বাংলাদেশে সফররত ডব্লিউটিও-এর সাবেক মহাপরিচালক প্যাসকেল ল্যামির সাথে মতবিনিময় করে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন।
বিশে^র ইকোনমিক ও সোস্যাল কাউন্সিল উল্লিখিত তিনটি বিষয় বিবেচনা করে কোন দেশকে নি¤œ মধ্যমআয়ের দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল (ডেভেলপিং) দেশে পরিণত হওয়ার ঘোষণা দেয়। আগামী মার্চ মাসে এ কাউন্সিলের মূল্যায়ন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল (ডেভেলপিং) দেশ হিসেবে ঘোষণার বিষয়টি আলোচিত হবে। এরই মধ্যে বাংলাদেশ তৃতীয় বিবেচ্য বিষয়টি সফলভাবে অর্জন করবে এবং কাউন্সিল বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে ঘোষণা করবে বলে ধারনা করা হচ্ছে। এ ঘোষণা কার্যকর হতে প্রস্তুতির সময় থাকবে। আশা করা যায়, বাংলাদেশ স্বাধীনতার ৫০ বছরপূর্তিতে ২০২১ সালে বিশে^ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবে। 
তোফায়েল আহমেদ বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এলডিসিভুক্ত দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে এভ্রিথিংস বাটআর্মস এর আওতায় জিএসপি সুবিধা প্রদান করছে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ হওয়ার পর বাংলাদেশকে জিএসপি প্লাস সুবিধা প্রদান করা হবে। এজন্য মন্ত্রী ডব্লিউটিও-এর সাবেক মহাপরিচালক প্যাসকেল ল্যামির সহযোগিতা কামনা করেন। বাংলাদেশ এ মুহূর্তে ইউরোপীয় ইউনিয়নে প্রায় ১৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের বেশি পণ্য রপ্তানি করছে।
এ সময় বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসু, ডব্লিউটিও সেলের ডিজি মুনীর চৌধুরী এবং অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি-২) তপন কান্তি ঘোষ উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে বাণিজ্যমন্ত্রী বুয়েটের অডিটোরিয়ামে ইমদাদ-সিতারা খান ফাউন্ডেশন আয়োজিত বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বৃত্তি প্রদান করেন। গত ১৩ বছর ধরে প্রতি বছর এ ফাউন্ডেশন ৮৫ লাখ টাকা করে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে আসছে। বুয়েটের ভিসি প্রফেসর ড. সাইফুল ইসলাম বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তৃতা করেন।
#
বকসী/সেলিম/ফারহানা/শেফায়ত/মোশারফ/জয়নুল/২০১৭/১৮৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                               নম্বর : ৬০ 
 
উত্তরা এপার্টমেন্ট প্রকল্পের ফ্ল্যাট নম্বর বুঝে পেলেন গ্রহীতারা
ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) :    
রাজধানী উন্নয়ন কর্তপক্ষ (রাজউক) -এর উত্তরা ১৮ নম্বর সেক্টরে এপার্টমেন্ট প্রকল্পের বরাদ্দ গ্রহীতাদের মধ্যে আজ ফ্ল্যাটের নম্বর প্রদান করা হয়। বরাদ্দগ্রহীতাদের উপস্থিতিতে উন্মুক্ত লটারির মাধ্যমে এ নম্বর প্রদান করা হয়। ডিসেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত চারকিস্তি পরিশোধকারী দুই হাজার ৬২১ জন বরাদ্দগ্রহীতা ফ্ল্যাটের নম্বর বুঝে পান।
বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে লটারি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, কৃষিজমির ক্ষতি করে বাড়িঘর বা অন্যকোনো স্থাপনা নির্মাণ করা যাবে না। এজন্য নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা আইন প্রণয়ন করা হচ্ছে। আইন প্রণয়নের পর এ ব্যবস্থা কার্যকর করা হবে।
মন্ত্রী বলেন, আবাসন সমস্যার সমাধানে ঊর্ধ্বমুখী ভবন নির্মাণের দিকে যেতে হবে। আমাদের দেশের আয়তন কম কিন্তু জনসংখ্যা বেশি। জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে আবাসন সমস্যা বাড়ছে। গ্রামেও বাড়িঘর নির্মাণের জন্য ব্যাপকভাবে কৃষিজমি নষ্ট হচ্ছে। সেখানেও তিন-চার তলা বাড়ি নির্মাণের দিকে যেতে হবে। 
মোশাররফ হোসেন বলেন, জমি কম বলেই সরকার প্লটের পরিবর্তে এপার্টমেন্ট প্রকল্প গ্রহণ করেছে। রাজউক উত্তরায় ছয় হাজার ৬৩৬টি ফ্ল্যাট নির্মাণে করেছে। আরো প্রায় ১৫ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। মালয়েশিয়া সরকার এসব ফ্ল্যাট নির্মাণ করবে। এছাড়াও ঝিলমিল আবাসিক প্রকল্পে ১৪ হাজার ৪০০ এবং পূর্বাচলে প্রায় ৮০ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। 
গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এ কে এম ফজলুল হক, 
নূর ই হাসান লিলি চৌধুরী এবং গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকার অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাজউকের চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রহমান।
উল্লেখ্য, নভেম্বর মাসে একই প্রক্রিয়ায় লটারির মাধ্যমে ৮৩৬ জনের মধ্যে ফ্ল্যাটের নম্বর প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ভবনগুলোতে বিদ্যুৎ, পানি ও গ্যাসের সংযোগ স্থাপন করা হয়েছে। পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা ও রাস্তার কাজ এ মাসের মধ্যেই শেষ হবে। জরুরি প্রয়োজন মেটাতে এক হাজার জনের উপযোগী একটি অস্থায়ী মসজিদ নির্মাণ করা হচ্ছে। পরবর্তীতে বড় একটি মসজিদ নির্মাণ করা হবে, যার দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। এছাড়া এখানে একটি ১০ তলা বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করা হবে যেখানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা থাকবে।
#
কিবরিয়া/অনসূয়া/রফিকুল/আসমা/২০১৮/১৬২০ ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                                                               নম্বর : ৫৯
 পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর বাণী
ঢাকা, ২৪ পৌষ (৭ জানুয়ারি) :    
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন : 
“পুলিশ সপ্তাহ ২০১৮ উদ্যাপিত হতে যাচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। এ উপলক্ষে আমি বাংলাদেশ পুলিশবাহিনীর সকল সদস্যকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই।
সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উদাত্ত আহ্বানে সাড়া দিয়ে পুলিশবাহনীর সদস্যগণ ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চের ভয়াল রাতে পাকিস্
Todays handout (6).docx Todays handout (6).docx

Share with :
Facebook Facebook