তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭

তথ্যবিবরণী ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর : ২৩১৩

সাংবাদিক সমাজ জাতির দর্পণ
           ---মসিউর রহমান রাঙ্গাঁ

রংপুর, ২২ ভাদ্র (৬ সেপ্টেম্বর) :   

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মোঃ মসিউর রহমান রাঙ্গাঁ বলেছেন, সাংবাদিক সমাজ জাতির দর্পণ স্বরূপ। তাদের ক্ষুরধার লেখনির মাধ্যমে সমাজে বিরাজমান অন্যায়, অসত্য ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে গণজাগরণ সৃষ্টি হতে পারে। তিনি সাংবাদিকদেরকে সরকারের কর্মকা-ে কোন ভুলত্রুটি হলে তা গঠনমূলক সমালোচনার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, সাংবাদিকরা আজ সরকারের পাশাপাশি দেশের সন্ত্রাস, নাশকতা ও জঙ্গিবাদ বিরোধী জনমত গঠনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখছে।
তিনি আজ রংপুর প্রেসক্লাবে ক্লাবের নবনির্বাচিত কমিটির সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। সংগঠনের সভাপতি ছদরুল আলম দুলুর সভাপতিত্বে এতে অন্যান্যের মধ্যে রংপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রশিদ বাবুসহ অন্যান্য নেতা অংশ নেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার সাংবাদিকবান্ধব সরকার। সরকার সাংবাদিকদের কল্যাণে “সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট আইন-২০১৪” এবং “সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট বিধিমালা-২০১৬” প্রণয়ন করেছে।
#
আহসান/শেফায়েত/সঞ্জীব/আব্বাস/২০১৭/২১৪১ ঘণ্টা

 

Handout                                                                                                              Number : 2312

Bangladesh demanded immediate measures

from Myanmar to de-escalate the violence

 

Dhaka, 6 September :

 

Bangladesh lodged strong protest against unprecedented level of influx of Myanmar nationals to Bangladesh since 25 August 2017. Bangladesh expressed deep concern on the escalation of violencein the Rakhine State Streams resulting in huge influx of affected civilian population entering into Bangladesh to escape from violence and save their lives.

A paper was handed over to the Charge’ d Affaires a,i of the Myanmar Embassy in Dhaka today at the Ministry of Foreign Affairs during meeting with the Director General
( South East Asia Wing) of the Ministry.

As per estimate of the UN agencies, around 125,000 (one hundred twenty five thousand) affected Myanmar nationals have taken shelter into Bangladesh and tens of thousands are on their ways. This new influx is unbearable additional burden on Bangladesh who has been hosting around four hundred thousand of Myanmar nationals who had to leave Myanmar in several rounds in the past owing to communal violence and repeated military operations. Bangladesh stressed that she must not be the victim of repeated violence and instability in the Rakhine State.

Bangladesh demanded immediate measures from Myanmar to de-escalate the ongoing violence in the Northern Rakhine State and immediate effective measures from the Myanmar authorities to stop the ongoing influx of Myanmar nationals into Bangladesh and requests Myanmar to address the real cause of such unprecedented exodus.

Bangladesh also regretted that appropriate measures for protection of civilian population have not been ensured during the military operation that compelled huge number of desperate people to seek shelter in Bangladesh, and emphasized on taking immediate and appropriate measures of protection by Myanmar for unarmed civilians of all communities in the Rakhine State regardless of ethnicity and religion so that affected civilians do not need to make desperate attempts to seek shelter in Bangladesh.

Bangladesh also urged Myanmar to take immediate measures to take back all Myanmar nationals who crossed over to Bangladesh.

During the meeting with the Charge’ d Affaires a,i of the Myanmar Embassy in Dhaka, the Ministry also expressed concern at the reported laying down of anti-personnel land mine close to the zero line of the border by Myanmar security forces.

#

Khaleda/Vivekananda /Shefyaet/Sanjib/Abbas/2017/2001 Hours

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩১১

দশম জাতীয় সংসদের সপ্তদশ অধিবেশনের কার্যক্রম সরাসরি সম্প্রচার ১০ সেপ্টেম্বর
ঢাকা, ২২ ভাদ্র (৬ সেপ্টেম্বর) :  
    রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ দশম জাতীয় সংসদের সপ্তদশ অধিবেশন আগামী ১০ সেপ্টেম্বর রোববার বিকেল ৫টায় আহ্বান করেছেন। এ অধিবেশনের প্রতিদিনের কার্যক্রম বাংলাদেশ বেতার ঢাকা-ক, ৬৯৩ কিলোহার্জে এবং এফ এম ১০৬.০ মেগাহার্জে জাতীয় সংসদ ভবন থেকে বিটিসিএল লাইনের মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচার করবে।
#
হক/বিবেকানন্দ/সঞ্জীব/আব্বাস/২০১৭/১৯১৮ ঘণ্টা

 

Handout                                                                                                          Number : 2310

President leads Bangladesh Delegation

 to the First Summit of the OIC

 

Dhaka, 6 September:

 

President Md. Abdul Hamid would be leading Bangladesh delegation to ‘The First Summit of the OIC on Science & Technology’ to be held in Astana, Kazakhstan on 10-11 September 2017. The delegation includes the officials from the Office of the President, Ministry of Foreign Affairs and Ministry of Science and Technology. It would be the first ever Summit of OIC in the area of Science and Technology.

 

The summit is expected to discuss and adopt OIC Ten Year Action Plan on Science and Technology “OIC STI Agenda 2026”.

 

President will make a statement at the Summit where he will urge for creating a new story of development for the well being of the Muslim Ummah through active cooperation in science and technology. He will emphasize that the contribution of the member states individually, jointly or collectively in science and technology would enhance the image of the Muslims, embolden their position in the world and give them due respect in global debate and discourse while improving the conditions of the Ummah. He will also share the initiatives, programmes and success stories of the Bangladesh Government with OIC member states in many areas of science and technology and give invaluable guidance to the OIC with his recommendations.

 

During the visit, Hon’ble President is expected to have bilateral meeting with his Kazakh counterpart and some of the counterparts from participating member states, time permitting.

 

#

Vivekananda /Shefywet/Sanjib/Abbas/2017/1844 Hours

Handout                                                                                                          Number : 2309

Outgoing Secretary General of

BIMSTEC made farewell call on Foreign Minister

 

Dhaka, 6 September :

The outgoing Secretary General of Bay of Bengal Initiative for Mulit-Sectoral Technical and Economic Cooperation (BIMSTEC) based in Dhaka Mr. Sumith Nakandala made a farewell call on Bangladesh Foreign Minister Abul Hassan Mahmood Ali at the Foreign Ministry today. The outgoing BIMSTEC Secretary General thanked the Foreign Minister for hosting the BIMSTEC Secretariat in Dhaka and for all out support extended and role played by Bangladesh Government in smooth function and operation of the Secretariat established in Bangladesh in 2014. Mr. Nakandala also highly appreciated the assistance and cooperation given by the Foreign Ministry in discharging his duties as the first Secretary General of BIMSTEC and making his stay a comfortable one during his tenure.

            The Foreign Minister appreciated the outgoing Secretary General for his role in starting the function of the BIMSTEC Secretariat in Dhaka and making it operational and for his contribution in the BIMSTEC process. The Foreign Minister appreciated the contributions and support of other member states in establishing the Secretariat in Dhaka and for making it operational. The Foreign Minister expressed the hope that BIMSTEC would get boost up now that all members are showing keen interests in the BIMSTEC process. The Foreign Minister wished the outgoing Secretary General success in his career ahead.

            A member of Sri Lankan Foreign Service, Mr. Nakandala is leaving Dhaka on 14 September 2017 and going back to join the Ministry of Foreign Affairs of Sri Lanka. He will be replaced by Bangladeshi diplomat Ambassador M. Shahidul Islam.

#

Maruf/Vivekananda/Sanjib/Abbas/2017/Hours

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর : ২৩০৮ 
 
সুখীসমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনির্মাণে সাক্ষরতার বিকল্প নেই
         -- প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী
ঢাকা, ২২ ভাদ্র (৬ সেপ্টেম্বর) :   
সাক্ষরতা অর্জনের মাধ্যমে মানুষের জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধি পায়, মানুষ সচেতন হয়, স্বনির্ভর হয়, দেশে জন্মহার এবং শিশু ও মাতৃমৃত্যূর হার হ্রাস পায়, স্বাস্থ্যসূচকের উন্নয়ন ঘটে, গড় আয়ু বৃদ্ধি পায়, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঘটে। সর্বোপরি পরিবার, সমাজ, দেশ তথা পৃথিবীতে একটি সুখী সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনির্মাণে সাক্ষরতার কোনো বিকল্প নেই।
আজ আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস ২০১৭ উদযাপন উপলক্ষে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান একথা বলেন।
 মন্ত্রী বলেন, স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশের পবিত্র সংবিধানের ১৭ নং অনুচ্ছেদের মাধ্যমে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে দেশে নিরক্ষরতা দূর করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়েছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের   উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো ১৯৯১ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত ৬টি প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় ১ কোটি ৮০ লাখ নিরক্ষরকে সাক্ষরতা প্রদান করেছে। উপানুষ্ঠানিক শিক্ষার ক্ষেত্রে অভাবনীয় সাফল্য অর্জনের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিস্বরূপ বর্তমান সরকার ১৯৯৮ সালে ইউনেস্কো সাক্ষরতা পুরস্কার লাভ করেছে। 
মন্ত্রী মোস্তাফিজুর বলেন, শিক্ষার সুযোগবঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে সাক্ষরজ্ঞানদান, জীবনব্যাপী শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি, কারিগরি ও বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে জীবিকায়ন, দক্ষ মানবসম্পদে পরিণতকরণ, আত্মকর্মসংস্থানের যোগ্যতা সৃষ্টিকরণ এবং বিদ্যালয় বহির্ভূত ও ঝরেপড়া শিশুদের শিক্ষার বিকল্প সুযোগ সৃষ্টির উদ্দেশ্যে ‘উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা আইন’, ২০১৪ প্রণীত হয়েছে। 
মন্ত্রী আরো বলেন, দেশের বিদ্যমান নিরক্ষর জনগোষ্ঠীকে কার্যকর জীবনদক্ষতাভিত্তিক সাক্ষরতা প্রদান করার জন্য উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর আওতায় সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে ‘মৌলিক সাক্ষরতা প্রকল্প (৬৪ জেলা)’ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। যার মাধ্যমে  ৪৫ লাখ নিরক্ষর নারী-পুরুষকে জীবনদক্ষতাসহ মৌলিক সাক্ষরতা প্রদান করা হবে। ইতোমধ্যে নির্বাচিত ২৫০টি উপজেলার মধ্য থেকে ১ম পর্যায়ের জন্য ১৩৭টি উপজেলার জন্য নির্বাচিত বেসরকারি সংস্থার সাথে চুক্তি সম্পাদিত হয়েছে।
এবারের আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস এর থিম ‘খরঃবৎধপু রহ ধ উরমরঃধষ ডড়ৎষফ’  অর্থাৎ ‘সাক্ষরতা অর্জন করি, ডিজিটাল বিশ্ব গড়ি’ প্রতিপাদ্য নিয়ে বাংলাদেশে ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭ আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস পালিত হচ্ছে। অনুষ্ঠানে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবগণ, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর মহাপরিচালক, মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দসহ ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
#
গিয়াস/বিবেকানন্দ/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৭/১৮২৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩০৭

দুষ্কৃতকারীরা ভূমির রেকর্ডরুম আর জ¦ালানোর সুযোগ পাবে না
---ভূমিমন্ত্রী

ঈশ^রদী (পাবনা), ২২ ভাদ্র (৬ সেপ্টেম্বর) :   

ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ বলেছেন, ভূমির রেকর্ডরুম আর দুষ্কৃতকারীরা আগুন দিয়ে জ¦ালাতে পারবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার সারাদেশের ইউনিয়ন ভূমি অফিসগুলো মজবুত ভিতের উপর আধুনিকায়ন করে নির্মাণ করছে। তিনি আরো বলেন, ২০১৭ সালের মধ্যে ১ হাজার ভূমি অফিস নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবে। আরো ২ হাজার ভূমি অফিস সরকারের মেয়াদকালেই সম্পন্ন হবে।
মন্ত্রী আজ ঈশ^রদী উপজেলার লক্ষ্মীকুন্ডা ইউনিয়ন ভূমি অফিস উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।  
ঈশ^রদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাছরিন আক্তারের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ^াস, ঈশ^রদী উপজেলার সহকারী কমিশনার ভূমি শিমুল আক্তার, ঈশ^রদী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নায়েব আলী বিশ^াস, ঈশ^রদী উপজেলা চেয়ারম্যান মখলেছুর রহমান মিন্টু ও লক্ষ্মীকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান শরীফ বক্তব্য রাখেন।
ভূমিমন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের বলেন, ভূমিহীনের তালিকা ও খাসজমির তালিকা দ্রুত মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করুন। সরকার গৃহহীনদের পুনর্বাসন করার প্রত্যয় নিয়েছে। কাজেই জনস্বার্থে সরকারের কাজে আপনাদের দ্রুততার সাথে সহযোগিতা করা প্রয়োজন। সারাদেশে গৃহহীনদের পুনর্বাসনে গুচ্ছগ্রাম নির্মাণ, আদর্শ গ্রাম, একটি বাড়ি একটি খামার নির্মাণে খাসজমি খুঁজে বের করা প্রয়োজন। ভূমিহীন ও গৃহহীনদের কাজকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু এদেশে অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা ও চিকিৎসা সকলের জন্য নিশ্চিত করার ঘোষণা দিয়ে গিয়েছিলেন।
দেশব্যাপী ইউনিয়ন ভূমি অফিস ও উপজেলা ভূমি অফিস নির্মাণ কাজ চলছে। প্রতিটি ইউনিয়ন ভূমি অফিস নির্মাণ ব্যয় ৫০ লাখ টাকা ধরা হয়েছে। লক্ষ্মীকুন্ডা ইউনিয়ন ভূমি অফিস নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৪৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা। ১ হাজার ২৫০ বর্গফুটের দ্বিতল ভবন ফাউন্ডেশনে রয়েছে একটি অফিস কক্ষ, একটি রিপোর্ট ডেলিভারি কক্ষ, একটি রেকর্ড রুম ও ২টি টয়লেট।
#
রেজুয়ান/বিবেকানন্দ/শেফায়েত/সঞ্জীব/আব্বাস/২০১৭/১৮৩০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩০৫ 
 
বাংলাদেশকে ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সহায়তা দেবে ইউনিডো
ঢাকা, ২২ ভাদ্র (৬ সেপ্টেম্বর) :   
বাংলাদেশে ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় জাতিসংঘের শিল্প উন্নয়ন সংস্থা কারিগরি সহায়তা দেবে বলে জানিয়েছেন ইউনিডোর মহাপরিচালক লি ইয়ং। এছাড়া, কৃষিভিত্তিক শিল্পের প্রসার, জ্বালানি দক্ষতা বৃদ্ধি ও পরিবেশবান্ধব শিল্পায়নে ইউনিডো সহায়তা করতে আগ্রহী বলে তিনি জানান। 
বাংলাদেশ সফররত ইউনিডোর মহাপরিচালক আজ শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর সাথে বৈঠককালে এ কথা জানান। শিল্প মন্ত্রণালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। 
বৈঠকে লি ইয়ং বলেন, বাংলাদেশ এখন বিশ্বের উচ্চ প্রবৃদ্ধি দেশগুলোর অন্যতম। জনবহুল বাংলাদেশ বিশ্ব দারিদ্র্যমোচনের ক্ষেত্রে ইউনিডোর সদস্য রাষ্ট্রগুলোর জন্য একটি অনুকরণীয় মডেল। তিনি এ দেশের টেকসই শিল্প উৎপাদন ও অব্যাহত প্রবৃদ্ধির প্রশংসা করেন। বাংলাদেশে বর্জ্য ও দূষিত পানি ব্যবস্থাপনা ও স্বল্প কার্বন নির্গমনে কারিগরি সহায়তা দিয়ে স্থানীয় শিল্পখাতের প্রতিযোগিতামূলক সক্ষমতা বৃদ্ধি ও টেকসইশিল্প উন্নয়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ইউনিডো কাজ করে যাবে বলে তিনি জানান। 
শিল্পমন্ত্রী বাংলাদেশে গুণগত শিল্পায়ন ও অবকাঠামোর মান উন্নয়নে ইউনিডোর অব্যাহত সহায়তার কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, কান্ট্রি প্রোগ্রামের আওতায় ইউনিডো বাংলাদেশের শিল্পখাতের সার্বিক উন্নয়নে সহায়তা করতে পারে। তিনি সাভার চামড়া শিল্পনগরির কঠিন বর্জ্যব্যবস্থাপনা এবং ট্যানারি, মেডিক্যাল, গৃহস্থালী ও শিল্পবর্জ্য হতে বিদ্যুৎ উৎপাদনে একটি পরীক্ষামূলক প্রকল্প গ্রহণের জন্য ইউনিডোর মহাপরিচালকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তিনি পাটশিল্পের আধুনিকায়নেও ইউনিডোর সহায়তা কামনা করেন।  
আমির হোসেন আমু বলেন, শিল্প সমৃদ্ধ মধ্যম আয়ের বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্য অর্জনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার ব্যাপক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। দেশি-বিদেশি উদ্যোক্তাদের জন্য আধুনিক প্রযুক্তিসমৃদ্ধ শিল্পকারখানা স্থাপনের লক্ষ্যে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করা হচ্ছে। পরিবেশ সুরক্ষা করে এসব অর্থনৈতিক অঞ্চলে গুণগত শিল্পায়ন ও প্রযুক্তি স্থানান্তরে ইউনিডো কারিগরি সহায়তা দিতে পারে বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন। 
বৈঠকে ইউনিডোতে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মো. আবু জাফর, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুষেণ চন্দ্র দাস ও বেগম পরাগ, ইউনিডোর পরিচালক সিইয়ং জু, বাংলাদেশে ইউনিডোর স্থায়ী প্রতিনিধি ড. জাকি উজ্ জামানসহ শিল্প মন্ত্রণালয় ও ইউনিডোর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 
#
 
জলিল/অনসূয়া/শহিদ/জসীম/রেজ্জাকুল/কুতুব/২০১৭/১৫৩১ ঘণ্টা 
 
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৩০৬
 
জাপান সরকারের বৃত্তি নিয়ে ত্রিশজন সরকারি কর্মকর্তা এখন জাপানে
টোকিও, ৬ সেপ্টেম্বর: 
 
জাপান সরকারের বৃত্তি নিয়ে উচ্চশিক্ষার্থে ৩০ জন সরকারি কর্মকর্তা জাপানে এসেছেন। গতকাল ৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ দূতাবাস, টোকিওর বঙ্গবন্ধু অডিটোরিয়ামে তাদের স্বাগতম ও শুভেচ্ছা জানান জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা।  
জাপানিজ গ্রান্ট এইড ফর হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট (জেডিএস) স্কলারশিপ প্রোগ্রামের মাধ্যমে ২০০১ সাল থেকে প্রতি বছর বাংলাদেশের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাদের এই বৃত্তি প্রদান করে আসছে। চালু হওয়ার পর থেকে এযাবৎ ৩২৮ জন জেডিএস ফেলো এই বৃত্তি পেয়েছেন যাদের মধ্যে ২৪০ জন ইতোমধ্যে কোর্স শেষ করে দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে দক্ষতার সাথে কাজ করছেন। অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি), বাংলাদেশ ও জাপান ইন্টারন্যাশনাল কোপারেশন সেন্টার (জাইস) এই প্রোগ্রামের বাস্তবায়ন সংস্থা হিসাবে কাজ করছে। 
এবছর জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের ৯ জন, বাংলাদেশ ব্যাংকের ১২ জন,  সড়ক ও জনপথ বিভাগের ৪ জন এবং  অর্থ মন্ত্রণালয়,পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়, গণপূর্ত বিভাগ, স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন বিভাগ  ও পুলিশথেকে ১ জন করে কর্মকর্তা জাপানের ইয়ামাগুচি, মেইজি, সুকুবা, হিতুতসুবাশি, রিতসুমিকান, হিরোশিমা, কিউশু, ইউকোহামা এবং আইইউজে বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি, গভরনেন্স স্টাডিজ, ইন্টারন্যাশনাল রিলেশন, পরিবেশ বিজ্ঞান, আইন ইত্যাদি বিষয়ে দুই বছরের মাস্টার্স কোর্সে  অংশগ্রহণ করবেন। 
রাষ্ট্রদূত বৃত্তিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের স্বাগত জানান এবং তাদেরকে বাংলাদেশের শুভেচ্ছাদূত হিসাবে কাজ করার আহ্বান জানান। লেখাপড়ার পাশাপাশি সবাইকে তিনি জাপানি জীবন ও কর্ম পদ্ধতি থেকে শিখতে এবং তা নিজ, পারিবারিক ও রাষ্ট্রীয় কাজে প্রয়োগের পরামর্শ দেন। 
এসময় দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।
#
 
শিপলু/অনসূয়া/শহিদ/জসীম/কুতুব/২০১৭/ ১৫৩৫ ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ২৩০৩
 
২০১৭ সালে সর্বোচ্চ সংখ্যক বাংলাদেশির হজ পালন 
                                
মক্কা আল-মোকারমা, সৌদি আরব, (৬ সেপ্টেম্বর) :  
 
ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বলেছেন, এ বছর বাংলাদেশ থেকে আগত সর্বমোট ১ লাখ ২৭ হাজার ২২৯ জন হজযাত্রী সৌদি আরবে সুষ্ঠুভাবে হজ পালন করতে সক্ষম হয়েছেন। হজযাত্রীদের এ সংখ্যা বাংলাদেশের ইতিহাসে যেকোন সময়ে সর্বোচ্চ। সর্বোচ্চ সংখ্যক হজযাত্রী নিয়ে সুন্দরভাবে হজ পালন করতে পারায় তিনি আল্লাহপাকের শুকরিয়া আদায় করেন। 
 
মন্ত্রী ৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ হজ অফিস, মক্কা আল-মোকাররমা, সৌদি আরবে অনুষ্ঠিত হজউত্তর এক পর্যালোচনা সভাশেষে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, সৌদি আরব সরকারের তথ্য অনুসারে এবছর সারা পৃথিবী থেকে ২৩ লাখ ৫২ হাজার হজযাত্রী হজ সম্পাদন করেছেন। এদের মধ্যে সৌদি আরবের বাইরে থেকে এসেছেন ১৭ লাখ ৫২ হাজার। এ পর্যন্ত সৌদি আরবে সর্বমোট ৭৪ জন বাংলাদেশি হজযাত্রী ইন্তেকাল করেছেন। 
 
মন্ত্রী বলেন, এ বছর হজ ব্যবস্থাপনায় সরকারি হজযাত্রীদের জন্য আরাফাতের তাঁবুতে প্রথম বারের মতো শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ সুবিধা প্রদান করা হয়েছে। হজযাত্রীদের সাহায্যের জন্য সরাসরি হটলাইন চালু করা হয়েছে। স্বাস্থ্যসেবার ক্ষেত্রে অনলাইন মেডিকেল প্রোফাইল এন্ট্রি করে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হয়েছে। হজযাত্রীদের হারানো লাগেজ দ্রুত পাওয়ার জন্য অনলাইন সুবিধা চালু করা হয়েছে। চিকিৎসাসেবায় উন্নততর প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। আইটি সার্ভিসের মাধ্যমে হারানো হজযাত্রীদের নিজ নিজ বাসা/তাঁবুতে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। মিনার মাঠে অতিরিক্ত হজকর্মী নিয়োগ করে হারানো হাজীদের স্ব-স্ব তাঁবুতে দ্রুত পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এভাবে বিভিন্ন সুবিধা বৃদ্ধির মাধ্যমে হজ ব্যবস্থাপনা পূর্বের চেয়ে উন্নততর করার চেষ্টা করা হয়েছে।
 
মন্ত্রী বলেন, হজ একটি দ্বিপাক্ষিক ব্যবস্থাপনা। এখানে বাংলাদেশ সরকার এবং সৌদি আরব সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ের অংশগ্রহণ রয়েছে। বাংলাদেশ এবং সৌদি আরব অংশে বিভিন্ন সংস্থার সাথে সমন্বয় প্রক্রিয়ায় কোন কোন ক্ষেত্রে কিছু ছোট খাটো সমস্যা পরিলক্ষিত হয়েছে। ভবিষ্যতের হজ ব্যবস্থাপনায় এ বিষয়গুলোর প্রতি যথাযথ দৃষ্টি দিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।তিনি আরো বলেন, যেসব বেসরকারি হজ এজেন্সি হজযাত্রীদের সাথে সম্পাদিত চুক্তি অনুসারে সেবা প্রদানে ব্যর্থ হয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করা হচ্ছে এবং শিঘ্রই তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ শাস্তিমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
 
ধর্মমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশের হজযাত্রীগণ হজের কার্যাবলী সম্পন্ন করে ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ তারিখ থেকে বাংলাদেশে ফিরতে শুরু করবেন। হজযাত্রীদের ফিরতি ফ্লাইটের শেষ তারিখ ৫ অক্টোবর, ২০১৭। ফিরতি ফ্লাইটে হজযাত্রী পরিবহণের জন্য ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।
 
ব্রিফিংকালে আরো উপস্থিত ছিলেন, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আব্দুল জলিল, সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ, হজ প্রশাসনিক দলের দলনেতা ও অতিরিক্ত সচিব মো.ফয়েজ আহমেদ ভূইয়া, যুগ্মসচিব (হজ) মো. হাফিজ উদ্দিন, কনসাল জেনারেল, জেদ্দা, এফ এম বোরহান উদ্দিন, কাউন্সেলর (হজ), মক্কা আল মোকাররমা, মুহাম্মাদ মাকসুদুর রহমানসহ হজ প্রশাসনিক দল, হজ চিকিৎসক দল ও হজ আইটি দলের প্রতিনিধিবৃন্দ।
#
আনোয়ার/অনসূয়া/শহিদ/জসীম/কুতুব/২০১৭/ ১৩০০ ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ২৩০৪ 
 
সাবেক সংসদ সদস্য মোজাম্মেল হকের জানাজা অনুষ্ঠিত
ঢাকা, ২২ ভাদ্র (৬ সেপ্টেম্বর) :   
চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মোঃ মোজাম্মেল হকের জানাজা আজ জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত হয়। তিনি ৪ সেপ্টেম্বর,২০১৭ রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন (ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর। 
চিফ হুইপ ও হুইপবৃন্দের পক্ষে হুইপ মোছাঃ মাহবুব আরা বেগম গিনি এমপি, বিরোধীদলীয় নেতার পক্ষে তার সহকারী একান্ত সচিব আঃ রহিম ভূইয়া, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের পক্ষে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম মরহুমের মরদেহে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন।
       মরহুমের জানাজায় সাবেক মন্ত্রী, সংসদ সদস্যসহ সর্বস্তরের নাগরিক, রাজনৈতিক সহকর্মী, গুণগ্রাহী, সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ শরিক হন।
#
 
কামাল/অনসূয়া/শহিদ/জসীম/কুতুব/২০১৭/১২৫৫ ঘণ্টা 
 
Todays handout (6).docx Todays handout (6).docx

Share with :
Facebook Facebook